ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব ৩

11
459

কেমন আছেন আপনারা? আশাকরি আল্লাহর রহমতে ভালই আছেন। :D :D

তাহলে চলেন আজকে আমাদের ফটোশপ এর ৩য় পর্বে ঘুরে আসি

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

যারা ২য় পর্ব এবং ১ম পর্ব মিস করেছেন এখানে দেখেন
প্রথম পর্ব মিস করলে এখানে যান
দ্বিতীয় পর্ব মিস করলে এখানে যান

এখন আমরা বিভিন্ন টুল এর খুঁটিনাটি জানবো :)

মারকিউ টুল


আজকে আমরা মার্কুয়ি টুল(The Rectangular Marquee Tool) সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানার চেষ্টা করব…ছবির যে অংশটি আমরা পরিবর্তন করতে চাই,সে অংশটি,কিংবা সম্পূর্ণ ছবিটি সিলেক্ট করতে আমাদের সাহায্য করে মার্কুয়ি টুল। এছাড়া ছবির কোন একটি অংশ যদি আমরা ছবিটির অন্যকোন অংশে কপি করতে চাই, সেক্ষেত্রেও এই টুলটি আমাদের…সাহায্য করে।মার্কুয়ি টুল দিয়ে বিভিন্ন জ্যামিতিক আকারের (যেমন-আয়তাকার,বর্গাকার,বৃত্তাকার,উপবৃত্তাকার) অংশ ছবি থেকে নির্বাচন করা যায়।
মার্কুয়ি টুল নির্বাচনঃ

মার্কুয়ি টুল নির্বাচনঃ

টুল বারে মার্কুয়ি টুলের চিহ্নটির (ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব ৩ ) উপর মাউস পয়েন্টার নিয়ে রাইট বাটন ক্লিক করলে একটি তালিকা আসবে আমাদের সামনে যেখানে আমরা পাবো চার ধরনের মার্কুয়ি টুল-

১। র‍্যাকটেংগিউলার মার্কুয়ি টুলঃ বর্গ বা আয়ত আকারের এলাকা নির্বাচন করে।
২। এলিপ্টিকাল মার্কুয়ি টুলঃ বৃত্ত বা উপবৃত্ত আকারের এলাকা নির্বাচন করে।
৩। সিঙ্গেল রো মার্কুয়ি টুলঃ এক সারি আকারের এলাকা নির্বাচন করে।
৪। সিঙ্গেল কলাম মার্কুয়ি টুলঃ এক কলাম আকারের এলাকা নির্বাচন করে।

তালিকা থেকে আমাদের যে মার্কুয়ি টুলটি প্রয়োজন তার উপর মাউস পয়েন্টার নিয়ে ক্লিক করলেই সেই টুলটি সিলেক্ট হয়ে যাবে। এছাড়া কীবোর্ডে ‘M’ চেপেও মার্কুয়ি টুল নির্বাচন করা যায়।

মার্কুয়ি টুল অপশনঃ

মার্কুয়ি টুল সিলেক্ট করা হয়ে গেল। এবারে একটু অপশন বারের দিকে তাকান। মনে আছে তো অপশন বারটি কোথায় রয়েছে? হুমম…অপশন বারটি রয়েছে স্ক্রীন-র উপরের দিকে,মেনু বারের নিচে। এই অংশে আমরা আমাদের নির্বাচিত মার্কুয়ি টুলের বিভিন্ন অপশন দেখতে পাব।

 এক একটি আইকন এক একটি অপশন নির্দেশ করে-
১ম আইকনঃ নতুন এলাকা নির্বাচন।
২য় আইকনঃ বর্তমান এলাকার সাথে নতুন নির্বাচিত এলাকা যুক্ত করা।
৩য় আইকনঃ বর্তমান এলাকা থেকে নতুন নির্বাচিত এলাকা বাদ দেয়া।
৪র্থ আইকনঃ বর্তমান এলাকা ও নতুন নির্বাচিত এলাকার মধ্যে কমন এলাকাটি নির্বাচন করা।
আরেকটু ভালোভাবে বুঝতে চলুন নিচের ছবিগুলো দেখি। তবে পুরোপুরি বুঝতে চাইলে অবশ্যই নিজে চেষ্টা করতে হবে-

# আয়তাকার ও উপবৃত্তাকার এলাকা নির্বাচনঃ
খুব সহজ কাজ। প্রথমেই প্রয়োজন অনুযায়ী মার্কুয়ি টুল নির্বাচন করতে হবে। আয়তাকার এলাকার জন্য র‍্যাকটেংগিউলার মার্কুয়ি টুল এবং উপবৃত্তাকার এলাকার জন্য এলিপ্টিকাল মার্কুয়ি টুল নির্বাচন করতে হবে। টুল নির্বাচন করা হয়ে গেলে ছবির উপর কিংবা সাদা স্ক্রীন-র উপর মাউসের লেফট বাটন ক্লিক করুন, মাউসের উপর থেকে হাতের চাপ না সরিয়ে টেনে প্রয়োজন কিংবা পছন্দমত এলাকা তৈরি করুন, পছন্দমত এলাকা তৈরি হয়ে গেলে মাউসের উপর থেকে হাতের চাপ সরিয়ে নিন। ব্যস,হয়ে গেল!

ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব ৩

# বর্গাকার এলাকা নির্বাচনঃ
এক্ষেত্রে প্রথমে র‍্যাকটেংগিউলার মার্কুয়ি টুল সিলেক্ট করতে হবে। কীবোর্ডে ‘Shift’ কী চেপে রেখে মাউসের লেফট বাটন ক্লিক করতে হবে, মাউসের উপর থেকে হাতের চাপ না সরিয়ে টেনে প্রয়োজনমত দৈর্ঘ্যের বর্গাকার এলাকা নির্বাচন করতে হবে।

ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব ৩

# বৃত্তাকার এলাকা নির্বাচনঃ
বৃত্তাকার এলাকা নির্বাচনের জন্য প্রথমে এলিপ্টিকাল মার্কুয়ি টুল নির্বাচন করতে হবে। তারপর একইভাবে কীবোর্ডে ‘Shift’ কী চেপে রেখে মাউসের লেফট বাটন ক্লিক করতে হবে, মাউসের উপর থেকে হাতের চাপ না সরিয়ে টেনে বৃত্তাকার এলাকা নির্বাচন করা যায়।

# এক পিক্সেল সারি বা কলামাকার এলাকা তৈরিঃ
এক্ষেত্রে সারি আকারের এলাকা তৈরির জন্য সিঙ্গেল রো মার্কুয়ি টুল এবং কলামাকার এলাকা তৈরির জন্য সিঙ্গেল কলাম মার্কুয়ি টুল সিলেক্ট করতে হবে। তারপর ১নং পদ্ধতি অনুসরণ করে নতুন কাঙ্ক্ষিত এলাকা নির্বাচন করতে হবে।

২। বর্তমান এলাকার সাথে নতুন নির্বাচিত এলাকা যুক্ত করাঃ

বর্তমান এলাকার সাথে নতুন এলাকা যুক্ত করতে কীবোর্ডে ‘Shift’ কী চেপে রাখুন এবং একই সাথে আগের পদ্ধতিতে নতুন এলাকাটি তৈরি করুন। নতুন এলাকাটি আগের এলাকার সাথে যুক্ত হয়ে যাবে। এলাকা দু’টি একটি আরেকটিকে ছেদ করতেও পারে,নাও পারে। এটি একান্তই আপনার ইচ্ছা।

ফটোশপ বেসিক টিউটোরিয়াল পর্ব ৩

৩। বর্তমান এলাকা থেকে নতুন নির্বাচিত এলাকা বাদ দেয়াঃ
বর্তমান এলাকা থেকে নতুন নির্বাচিত এলাকা বাদ দিতে কীবোর্ডে ‘Alt’ কী চেপে রাখুন এবং একই সাথে আগের পদ্ধতিতে নতুন এলাকাটি তৈরি করুন। নতুন এলাকাটি আগের এলাকা থেকে বাদ চলে যাবে। এক্ষেত্রে এলাকা দুটির একটিকে আরেকটির উপর উঠে থাকতে হবে (overlap) বা ছেদ করতে হবে।

৪। বর্তমান এলাকা ও নতুন নির্বাচিত এলাকার মধ্যে কমন এলাকাটি নির্বাচন করাঃ
১ নং পদ্ধতিতে পরস্পরকে ছেদ করে এমন দুটি এলাকা তৈরি করুন। ফলাফল হিসেবে আপনি পাবেন দুটি এলাকার মধ্যকার কমন অংশটি।

আপনার যে অপশনটি প্রয়োজন সেই অপশন-র আইকনে ক্লিক করুন এবং পছন্দমত এলাকা নির্বাচন করুন।

ফেদারিং বক্সঃ

অপশন বারের পরের অপশনটি হল যা নির্বাচিত এলাকার প্রান্তগুলোকে ব্যাকগ্রাউন্ডের সাথে সুন্দরভাবে মিশিয়ে দিতে সাহায্য করে।

এন্টি-এলিয়্যাস বক্সঃ

ফেদারিং বক্সের পরের অপশনটি হল ‘এন্টি-এলিয়্যাসড’। আমাদের নির্বাচিত গোলাকার এলাকার প্রান্তগুলোকে অমসৃণ, এবড়ো-থেবড়ো হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে এই অপশনটি।

এন্টি-এলিয়্যাস বক্সের পর রয়েছে মার্কুয়ি স্টাইল বক্স। এটি তিনটি অপশন-র একটি ‘ড্রপ-ডাউন’ তালিকা। তালিকার ১ম অপশন টি হল ‘নরমাল’ যা দিয়ে আমরা ইচ্ছেমত এলাকা সিলেক্ট করতে পারব। এর পর রয়েছে ‘ফিক্সড এস্পেক্ট রেশিও’এই অপশনটি নির্দিষ্ট অনুপাতে এলাকা নির্বাচন করতে সাহায্য করে। আর ‘ফিক্সড সাইজ’ অপশন নির্দিষ্ট প্রস্থ-উচ্চতার এলাকা নির্বাচন করতে সাহায্য করে।

মার্কুয়ি টুলের ব্যবহারঃ

# কোন অংশ দূর করতে বা মুছে ফেলতেঃ
মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে কোন একটি এলাকা নির্বাচন করে কীবোর্ডের ‘Delete’ কী চাপলেই নির্বাচিত এলাকাটি মুছে যাবে এবং ফাঁকা জায়গাটি ব্যাকগ্রাউন্ড কালার দিয়ে ভরে যাবে। তবে নির্বাচিত এলাকাটি যদি আলাদা একটি লেয়ারের উপর বসানো থাকে সেক্ষেত্রে সেখানে একটি ফাঁকা গর্ত দেখা যাবে।
# কোন অংশের স্থান পরিবর্তন করতেঃ
কোন অংশের স্থান পরিবর্তন করতে প্রথমে মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে কাঙ্ক্ষিত অংশটি নির্বাচন করতে হবে। তারপর কার্সরটিকে নির্বাচিত অংশের ভিতর নিয়ে গেলে নিজে থেকেই মুভ টুল সিলেক্ট হয়ে যাবে যার সাহায্যে আমরা নির্বাচিত অংশটির স্থান ইচ্ছেমত পরিবর্তন করতে পারব।
# অনুলিপি বা কপি তৈরি করতেঃ
ছবির কোন একটি অংশের অনুলিপি বা কপি তৈরি করতে প্রথমে মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে অংশটি সিলেক্ট করতে হবে। তারপর মাউসের লেফট বাটন, কীবোর্ডের ‘Ctrl’ এবং ‘Alt’ কী একসাথে চেপে ধরে কার্সরটিকে সরিয়ে আমরা যে জায়গায় অংশটির কপি তৈরি করতে চাই সেখানে পৌঁছে হাতের চাপ সরিয়ে নিলেই আমাদের কাঙ্ক্ষিত স্থানে নির্বাচিত অংশটির কপি তৈরি হয়ে যাবে।
এলিপ্টিকাল মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে কপি করে আমি সীগালটির তিনটি চোখ বানিয়ে দিয়েছি…  আপনিও চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

# কাট-পেস্ট করতেঃ

ছবির একটি অংশ কেটে কাটা অংশটি অন্য জায়গায় জোড়া দিতেও এই টুল আমাদের সাহায্য করে। এক্ষেত্রে প্রথমে মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে এলাকাটি নির্বাচন করতে হবে। কীবোর্ডে ‘Ctrl+C’ চাপলে এলাকাটির একটি কপি তৈরি হবে। তারপর নির্বাচিত অংশটি কেটে আনতে কীবোর্ডে ‘Ctrl+X’ চাপতে হবে। কাটা অংশটি আমরা যে জায়গায় জোড়া লাগাতে চাই সেখানে নিয়ে ‘Ctrl+V’ চাপলেই নির্বাচিত অংশটি একটি নতুন লেয়ারের উপর আমরা যেখানে চাই সেখানে বসে যাবে।

# ফাইন টিউনিং

ছবির কোন অংশ নির্বাচন করতে যেয়ে সেটা যদি জায়গামত না হয় অর্থাৎ কাঙ্খিত জায়গা থেকে কিছুটা ডানে,বামে,উপরে কিংবা নিচে সরে যায় তবে কীবোর্ডের ‘অ্যারো কী’-র সাহায্যে আমরা সেটা ঠিক করতে পারি।

# কোন অংশকে পরিবর্তন থেকে মুক্ত রাখতেঃ

যদি ছবির বেশিরভাগ অংশই আমদের পরিবর্তন করতে হয় এবং কোন একটি নির্দিষ্ট অংশ পরিবর্তন থেকে মুক্ত রাখতে হয়, তবে আমরা ছবিটির যে অংশে পরিবর্তন চাই না সেই অংশটি মার্কুয়ি টুলের সাহায্যে সিলেক্ট করে কীবোর্ডে ‘Ctrl+Shift+I’ চাপলেই নির্দিষ্ট অংশটিতে কোন পরিবর্তন হবে না।

# সম্পূর্ণ ছবি নির্বাচন করতেঃ

সম্পূর্ণ ছবি নির্বাচন করার জন্য র‍্যাকটেংগিউলার মার্কুয়ি টুল দিয়ে ছবিটির বাহিরের প্রান্তের চারপাশ অর্থাৎ সম্পূর্ণ ছবিটি নির্বাচন করা যায়। কীবোর্ডে ‘Ctrl+A’ চেপেও আমরা সহজেই কাজটি করতে পারি।

# ডিসিলেক্ট করতেঃ

নির্বাচনে কোন ধরনের ভুল হলে বা পরিবর্তনের দরকার হলে সিলেকশানটি ডিসিলেক্ট করতে রাইট বাটন চেপে ‘ডিসিলেক্ট’ অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে অথবা কীবোর্ডে ‘Ctrl+D’ চাপতে হবে।
এবার সিঙ্গেল কলাম অথবা সিঙ্গেল রো শিখি :)
এটা শুধু একটা ব্যবহার। এরকম আরও ব্যবহার সামনে শিখবো। আশাকরি এটা দেখে অনেকই বুঝেই যাবেন এটা দিয়ে আর কি কি করা যায় । এটা আমার কাছে অনেক মজা লাগে করতে :)
http://www.youtube.com/watch?v=-gPGpzr3iLY
তো,জানা হয়ে গেল মার্কুয়ি টুলের খুঁটিনাটি প্রায় সব। এ জিনিসগুলো খুবই দরকারী,কেননা পরবর্তীতে অন্যান্য টুল সম্পর্কে জানার সময় এগুলো আমাদের কাজে লাগবে। তাই মনে রাখার চেষ্টা করতে হবে আর অবশ্যই বেশি বেশি অনুশীলন করতে হবে…

আর আপনারা অনুশীলন হিসাবে  এইটা করতে পারেন। এইটা বানিয়ে গ্রুপে জমা দিন কোথাও ভুল হয়েছে কিনা তা দেখতে।

Photoshop Basic Tutorial

 

 

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

11 মন্তব্য

  1. চমৎকার টিউটোরিয়াল। এমনই ভাবে ব্যাসিক জিনিস থেকে শেখালে মানুষ খুবই এক্সপার্ট হয়ে যাবে। আশা করি নিয়মিত এভাবে চালিয়ে যান। তবে আপনাকে খুবই কম দেখা যায় কাহিনী কি জনাব ??? :)

  2. চরম! আই এম স্পীচ লেস দুস্ত।
    ৪ নাম্বারে পেন টুল দিবি কিন্তু। হুম

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × 2 =