মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান “বি-২ স্পিরিট” প্রযুক্তি

6
1075
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি

যুক্তি বাদী

নাস্তিক্যবাদ বিশ্বাস নয় বরং অবিশ্বাস এবং সংশয়ের ওপর প্রতিষ্ঠিত। বিশ্বাসকে খণ্ডন নয় বরং বিশ্বাসের অনুপস্থিতিই এখানে মুখ্য।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি

আসা করি সবাই ভাল আছেন আমার প্রিয় টিজেরা। আজকে আবারো একটি অন্যরকম পোস্ট নিয়ে এলাম। সকল তথ্য wiki থেকে নেয়া হয়েছে এবং google স্যার সাহায্য করেছেন আসা করি আপনাদের ভাল লাগবে।

বি-২ স্পিরিট (ইংরেজি ভাষায়: B-2 Spirit) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান, যা স্টেল্থ বোম্বার (Stealth Bomber) নামেও পরিচিত। এটি তৈরি করেছে নর্থরোপ গ্রুমম্যান। এটি রাডার দ্বারা সহজে শনাক্ত করা যায় না, এবং বড় ধরনের আকাশযুদ্ধের উপযোগী করে এটিকে নির্মাণ করা হয়েছে। এটি প্রচলিত ও নিউক্লীয় উভয় প্রকার বোমা বহন ও বর্ষণ করতে পারে। এই বিমানটির উচ্চ নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণ খরচের জন্য এটি মার্কিন কংগ্রেস ও পেন্টাগনে বেশ কিছু বিতর্ক তৈরি করেছে। উচ্চ নির্মাণ ব্যয়ের কারণে ১৯৮০-এর দশকের শেষ ভাগ থেকে ১৯৯০-এর দশকে, মার্কিন কংগ্রেস প্রাক্কালিত ১৩২টি বিমান নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে মাত্র ২১টি বিমান নির্মাণ করে।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি

প্রতি বি-২ স্পিরিট বিমানের গড় নির্মাণ ব্যয় ৭৩.৭ কোটি মার্কিন ডলার।এছাড়া প্রতিটি বিমানের রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় গড়ে প্রায় ৯২.৯ কোটি মার্কিন ডলার, যার মধ্যে আছে খুচরো যন্ত্রাংশ, বিভিন্ন প্রয়োজনীয় উপকরণ, রেট্রোফিটিং, এবং সফটওয়্যার সাপোর্ট।এই বিমান নির্মাণ প্রকল্পে প্রতিটি বিমানের ক্ষেত্রে গড়ে মোট ব্যয় হয়েছে প্রায় ২১০ কোটি মার্কিন ডলার (১৯৯৭ সালে ডলারের মূল্যমান অনুযায়ী), এবং এর মধ্যে আছে উন্নয়ন, প্রকৌশল, পরীক্ষণ প্রভৃতি ব্যয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী মোট ২০টি বি-২ স্পিরিট পরিচালনা করছে। যদিও এই বিমানগুলো স্নায়ু যুদ্ধকে সামনে রেখে নির্মাণ করা হয়েছে, কিন্তু পরবর্তীকালে এগুলো ১৯৯৯ সালের কসোভো যুদ্ধে সাইবেরিয়াতে, এবং ইরাক যুদ্ধ ও ২০০১-এর আফগানিস্তান যুদ্ধেও ব্যবহৃত হয়েছে। ২০০৮ সালে উড্ডয়নের মুহুর্তে ক্র্যাশ করে একটি বিমান ধ্বংস হয়ে যায়।

এই বিমানে মোট আরোহীর সংখ্যা দুই, এবং এটি ৮০ × ৫০০ পাউন্ড (২৩০ কেজি) জেডিএএম জিপিএস নিয়ন্ত্রিত বোমা, অথবা অত্যন্ত বিমান সুরক্ষিত স্থানে ১৬ × ২,৪০০ পাউন্ড (১,১০০ কেজি) বি৮৩ নিউক্লিয়ার বোমা একবারে ফেলতে পারে। বি-২ স্পিরিট-ই একমাত্র বিমান যা দূর আকাশ থেকে স্টেল্‌থ অবস্থানে থেকেও ভূমিতে নির্দিষ্ট লক্ষমাত্রায় বোমা ছুড়তে পারে

বি-২ স্পিরিট
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি
যুক্তরাষ্ট্র বিমান বাহিনীর উড্ডয়নরত বি-২ স্পিরিট বিমান
ভূমিকা স্টিলথ বোম্বার
উৎপত্তির দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভারী বোমারু বিমান "বি-২ স্পিরিট" প্রযুক্তি যুক্তরাষ্ট্র
নির্মাতা নর্থরোপ কর্পোরেশন
নর্থরোপ গ্রুমম্যান
১ম উড্ডয়ন ১৭ জুলাই, ১৯৮৯
সূচনা এপ্রিল ১৯৯৭
বর্তমান অবস্থা বর্তমানে কর্মরত: ২০টি বিমান
প্রাথমিক
ব্যবহারকারী
যুক্তরাষ্ট্র বিমান বাহিনী
সর্বমোট
উৎপাদন সংখ্যা
২১টি
নির্মাণ
কার্যক্রম ব্যয়
৪৪.৭৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (২০০৪ সাল পর্যন্ত আনুমানিক)
প্রতিটির ব্যয় ৭৩৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (শুধুমাত্র ১৯৯৭ সালে উৎপন্ন প্রতিটি বিমানের নির্মাণ ব্যয়)

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

6 মন্তব্য

  1. বোমারু বিমান তৈরি করার এত টাকা তারা কোথা থেকে পায় ? ধন্যবাদ ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

nineteen − 8 =