ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস।  FavoriteLoadingবুকমার্ক

“বিসমিল্লাহির রহমানীর রাহীম”

একটি ব্লগের প্রাণ বলতে আমি ভিজিটরদেরই মনে করি এবং আশা করি এটি নিয়ে কারো দ্বিমত থাকার কথাও নয়। এইযে আমি/আপনি পোষ্ট লিখে ব্লগে প্রকাশ করছি তা কাদের জন্য? কিসের জন্য? অবশ্যই তা ভিজিটদের জন্য। আমি একটি বিষয়ে কিছুটা ভালোপারি,বিষয়টির প্রতি আমার জ্ঞান রয়েছে আমি অবশ্যই তা অন্যদের শেখাতে চেষ্টা করবো এই ব্লগের মাধ্যমেই তাই নয় কি? আমি যদি নিজেই নিজের সাথে বলতে থাকি যে আমি এটি পারি কিন্তু আশেপাশের কেওই জানলো না তবে এটার সঠিক মূল্যায়ন টি হবে কি করে? আমাদের অবশ্যই তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। তবেই না মানুষ আমাকে মূল্য দেবে!! :) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। আর এই মূল্যটা আপনাকে দিয়ে থাকবে ভিজিটর গণ। যারা কিনা আপনার লেখার পাঠক। আপনি একটি লেখা লিখলেন এবং তা ফেলে রাখলেন সবার মাঝে না ছড়িয়ে দিয়ে? তবে আপনিই বলুন কিভাবে তারা আপনাকে চিনবে? আপনার ব্লগটিতে এসে আপনার লেখা পড়বে? আরেকটি কথা বলতেই হয়। ভার্চুয়াল জগৎ এর মাঝে লক্ষ্য করলেই দেখতে পাবেন একটি লেখা ছড়িয়ে রয়েছে বিভিন্ন দিকে। এর মাঝেই আপনাকে কষ্ট করতে হবে। তৈরি করতে হবে নিজের একটি অবস্থান। নিজ থেকে এই পৃথিবীতে যেমন একটি আপেল কক্ষনোই উপড়ে উঠতে পারে না কারো না ছুরে মারা পর্যন্ত । ঠিক তেমনি আপনার চেষ্টা ছাড়া আপনিও কক্ষনোই পারবেন না উঠে দাঁড়াতে সঠিক ভাবে। কারণ আপনাকে উপড়ে উঠাতে কেও আপনার জন্য বসে নেই ,তবে নিচে নামাতে তৈরি হয়ে রয়েছেন অনেকেই ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস।
তাই আজ আমরা কিছু টিপস জানতে চেষ্টা করবো যা আপনার ব্লগের দিকে,আপনার লেখার দিকে কিছুটা হলেও পাঠক তৈরিরে সাহায্য করবেঃ-

ডোমেইন নেমঃ-

আপনাকে আমার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে একটি কথা বলতেই হয় তাহলোঃ- আপনি একটি ফ্রী সাইট বানালেন ধরুন সাইটটির নাম tuningbd.wordpress.com বা tuningbd.blogspot.com আপনি অবশ্যই লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন যে আপনার wordpress.com এ বানানো সাইট টি থেকে tuningbd.com সাইট টিতেই বেশি ভিজিটর যাচ্ছে। অনেকেই বলে থাকেন “আরে ধুর লেখা ভালো হলে সবি ঠিক” কিন্তু আমি তাদের সাথে সহমত হতে পারলাম না। কারণ আমি আপনাকে গ্যারান্টি সহকারে বলবো wordpress.com আর .com এ একি লেখা থাকার পরেও .com এর মাঝেই আপনি সবচে বেশি ভিজিটর পাবেন। এটি কেন হয়??:- আসলে মূলত আমি বলবো এটি একারণেই হয় যেঃ- আমাদের দেশের মূল্যে একটি ডোমেইন ও হোস্টিং কিনে সাইট বানাতে মিনিমাম ১৫০০ টাকা লাগে। এখন ভিজিটর প্রথমে এটিই চিন্তা করে যা হলো “তামিম ভাই একটি সাইট বানিয়েছে ১৫০০ টাকা খরচ করে তাহলে ত অবশ্যই ভালো কিছু দেবার জন্যই না হলে তিনি ত ফ্রী তেই বানাতে পাড়তেন যদি ফালতু কিছু দিয়ে রাখেন”। আসলে এটিই সঠিক চিন্তা কারণ ১৫০০ টাকা দিয়ে একটি ব্লগ খুলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ফালতু কিছু দেয়া হয় না। তাই ফ্রী সাইট থেকে টাকা দিয়ে বানানো সাইট টিই মানুষ কে বেশি টানে।

কোয়ালিটিঃ-

আপনি একা কিন্তু আপনার ব্লগের পাঠক গণ অসংখ্য এবং প্রতিটি মুহূর্ত তৈরি হচ্ছে আরো। এখন সবার চাহিদাই কি এক?? অবশ্যই নয়। কেও হয়তো খোঁজে বেড়ায় ডাউনলোড , সফটওয়্যার বা গেমসের সাইট। কেওবা খোঁজে ফেরে টেঁকি বা সাহিত্যিক ব্লগ। তাই আপনার ব্লগে ঠিক তারাই সর্বদা থাকবে যারা তাদের ঠিক চাহিদা ভিত্তিক জিনিশ আপনার এখানে পেয়েছে ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। আপনার ব্লগ যদি টেঁকি ভিত্তিক হয় তবে একমাত্র টেঁকি প্রেমীরাই থাকবে আপনার ব্লগে পার্মানেন্ট ভাবে। কোন ডাউনলোড প্রেমী অবশ্যই নয়:P ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। । আমি এই বিষয়টি এজন্যই তুলে ধরেছি কারণ অনেকেই বলতে শুনা যায় “ভাই আমার ব্লগে গতকাল এসেছে ৫০০ ভিজিটর কিন্তু আজকে মাত্র ৫০ জন!! আমার খুব দুঃখ লাগছে”  । আমি তাদের বলবো এখানে দুঃখ করার কি রয়েছে? আপনি সহজ ভাবে চিন্তা করুন। আমাকে দিয়েই আমি বলিঃ- আমি মাঝে,মাঝে ঘুরতে,ঘুরতে চলে যাই বিভিন্ন হ্যাকিং শেখার ব্লগে কিন্তু আমার হ্যাকিং এর প্রতি কোন আগ্রহই নেই তাই আমি কি পরের বার ওই সাইটে ভিজিট করি? অবশ্যই নয়। যার ফলে গত দিনের ১ জন ভিজিটর এভাবেই চলে যেতে পারে এবং এটাই স্বাভাবিক। এতে দুঃখ করে আর চিন্তা করে রাতের ঘুম হারাম করার কিছুই নেই। এক মাত্র তারাই থাকবে যারা হ্যাকিং এ আগ্রহী ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস।

শেয়ার বাটনঃ-

আপনার ব্লগটি এবং লেখা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে অবশ্যই এটি প্রয়োজনীয়। কেন প্রয়োজনীয় আপনি নিজ থেকেই চিন্তা করলে বের করতে পারবেন। চিন্তা করুন একটি জিনিশ আপনি কি ফেসবুক থেকে কক্ষনো কোন পোষ্টে যান না? অবশ্যই যান। এবং ফেসবুক থেকেই প্রতেক্তি ব্লগে পাঠক যেয়ে থাকে সবচে বেশি। ধরুন আমার এই লেখাটি আপনার ভালো লেগেছে এবং তা যানাতে হলে ত অবশ্যই মন্তব্য না লাইক বাটনে ক্লিক করতে হবে। যার ফলে কি হলো? আপনি ফেসবুক,টুইটার বা গুগলি+ যেখান থেকেই লাইক করেন না কেনো সেটি আপনার একাউন্ট এর মাঝেও শেয়ার হয়ে গেলো। যার ফলে আপনার ৪০০/৫০০ বন্ধু ও ফেসবুকে দেখতে পেলো এটি!! তাহলে কি সেখান থেকে একজন ও আবার  উক্ত লিঙ্কে ক্লিক করে পড়তে আসবে না? অবশ্যই আসবে :) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। যদি সেও লাইক করে তাহলে তার মাধ্যমেও ছড়িয়ে গেলো আমার লেখাটি। যার ফলে এভাবে ছড়িয়ে যেতে পারে কয়েকশত থেকে কয়েক হাজারে :D ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। তাই অবশ্যই আপনার লেখা টির মাঝে শেয়ার অপশন রাখতে ভুল করবেন না ।

প্রথমত যেখান থেকে ভিজিটর পাবেনঃ-

একটি ব্লগ তৈরি করার পর আপনি নিশ্চয়ই চিন্তা করবেন না যে আজকেই আমার সকল পোষ্টে সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর আসতে শুরু করবে!! আপনার ভিজিটর প্রথম দিকে একটি অনেক বড় অংশ আসবে Social Media থেকে। যেমন ধরুনঃ- ফেসবুক,টুইটার,গুগলি+,বিং এবং ইত্যাদি জনপ্রিয় মিডিয়া। তাই আপনি ব্লগ বানানোর পর অবশ্যই এখানে একটি করে একাউন্ট বানিয়ে নেবেন এবং আপনার পোষ্ট গুলো শেয়ার করতে ভুলবেন না। আর অবশ্যই ফেসবুক ফ্যান পেজে বানিয়ে নিবেন একটি। কারণ ফেসবুকে যেখানে আপনার বন্ধু হতে পারে ৫০০০ ,সেখানে পেজে ৫০০০০০ ফ্যান হলেও কিছুই হবে না। তাই ফ্যান পেজ থেকেই প্রচুর ভিজিটর পেতে পারেন।

আন্তরিকতা এবং ভদ্রতাঃ-

আপনার পোষ্টের লেখাতেই যে সবাই সব কিছু বুঝে ফেলতে পারবে তা কিন্তু নয়। অনেকেরই বিভিন্ন ধরণের সমস্যা হতে পারে যা তারা আপনাকে বলবে। আপনি অবশ্যই তা সঠিক ভাবে সমাধান করার চেষ্টা করবেন। আমাদের অনেকেই আছেন যে কারো পোষ্টে গিয়ে পার্ট নেন যেমনঃ- পুরান জিনিশ, আগের থেকেই জানি, ফালতু বা আরো নানা রকমের কটু মন্তব্য করে থাকেন বা স্প্যাম করে থাকেন। এগুলো করার সময় এটি অবশ্যই মাথায় রাখবেন তিনিও কিন্তু আপনার লেখারই একজন পাঠক ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। আপনার ব্লগে কেও মন্তব্য করলে বা নতুন আসলে তাকে যতটা সম্ভব আমন্ত্রণ জানান। তাকে মিষ্টি করে বলতে পারেন “আমার নীড়ে আসার জন্য ধন্যবাদ আশা রাখবো আপনাকে হয়তো আবারো আমার ব্লগের মাঝে পাবো” বা ইত্যাদি। আসলে সত্য কথা বলতে ভদ্রতা দিয়েও কিন্তু অনেক কিছুই হয় যা অন্য কিছু দ্বারা করা সম্ভব নয়। আপনার ব্লগে কেও আসলে আপনি কিছুটা হলেও চেষ্টা করবেন তার ব্লগ বাড়িতে ঘুরে আসতে। সবচে ভালো হয় একটি সুন্দর মন্তব্য করে আসতে পারলে। এতে করে আপনাদের দুই জনের মাঝে একটি সম্পর্ক তৈরি হবে। দুই জনি পাবেন এক জন ভালো পাঠক ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। তাহলে ভালো না হয়ে খারাপ কেন হবে বলুন?? :D ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস।

আপনার লেখা,আপনার স্টাইলঃ-

লেখা তো অনেকেই লেখে। আবার একটি বিষয় নিয়েই অনেকেই লিখে থাকে? তাই বলে কি সবার পাঠক এক হয়? অবশ্যই নয় কারো পাঠক হয় ১০০ জন কারো বা ১০,০০০ জন :D ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। । চেষ্টা করুন লেখাটি সব সময় পরিষ্কার এবং সহজ করে লিখতে। কারণ আপনার লেখাটি কে পড়বে বেশি বলতে পারেন?? আপনার লেখাটি তিনিই পড়বেন জিনি এই সম্পর্কে জানেন না বা খুব কম জানেন। তাহলে তিনি কি প্রত্যাশা করবে আপনার কাছে? অবশ্যই সহজে যেন বুঝতে পারে তাই প্রত্যাশা করবে। এখন আপনি যদি অন্যান্য বিশাল,বিশাল গম্ভীর হিট ব্লগার দের লেখা দেখে তাদের মতন লিখতে চেষ্টা করেন তবে কেও কি আপনার লেখাটি বুঝবে? আর না বুঝলে কি পড়বে? অবশ্যই পড়বে না। আর ওই সব বড়,বড় ব্লগার রা ত আপনার লেখা পড়ার কথাই নয়। কারণ তারা অনেক আগেই এসব পার করে চলে গিয়েছেন ;) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। এখানে একটি উদাহারন দিতে খুবি ইচ্ছে করছে তা হলো ক্লাস নাইনে পড়া বাংলা রচনাবলী বইয়ের “রচনার শিল্পগুণ” এর কয়েকটি লাইনঃ- “যদি বলি হুতভুক সাহায্যে বাষ্পীয় যন্ত্র সঞ্চালিত হয়,তবে অধিকাংশ বাঙালী আমার কথা বুঝিবে না। যদি বলি যে,অগ্নির সাহায্যে বাষ্পীয় যন্ত্র চলে,সকলেই বুঝিবে”। অনেক্ষন যাবত লিখতেছি,আজ আর লিখবো না। আমার লেখায় ভুল থাকতেই পারে। যদি আপনাদের কাছে কোন কিছু ভুল লাগে, বা কোন পরামর্শ দিতে চান তবে মন্তব্য করতে পারেন। আর ভালো লাগলে অবশ্যই মন্তব্য করবেন। আপনাদের মন্তব্য পেলে অনেক ভালো লাগে :) ব্লগ, ব্লগিং এবং পাঠক তৈরিতে কিছু টিপস। আসলে আপনারা পড়বেন,মন্তব্য করবেন এতেই ত এতোটা কষ্ট করে লেখার সার্থকতা পাবো।

সবাই ভালো থাকবেন,ভালো থাকার চেষ্টা করবেন।

এই জাতীয় আরো টিউন

27 মতামত গুলো

  1. BLuE

    আসসালামু আলাইকুম . . . . সত্যি চমত্কার পোস্ট . . . . শিখলাম অনেক কিছু . . . . থাঙ্কস . . . . ভালো থাকবেন সব সময়

    মতামতের উত্তর

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eighteen + twelve =