বিজয়ীরা ভিন্ন ধরনের কিছু করে না, তারা একই কাজ ভিন্নভাবে করে

0
1798

You Can Win বইটা আমি পরেছি অনেক দিন আগে।খুব ভাল মানের (বেস্ট সেলিং) বই। বইটির নাম “তুমিও জিতবে”। নিলখেতে অনেকেই দেখে থাকবেন এই বইটা।আজ ওয়েবসাইট ঘুরতে ঘুরতে এই বইটির সফট কপি পেয়ে গেলাম। তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

ডউনলোড লিংকের জন্য এখানে ক্লিক করুনঃ “তুমিও জিতবে”

 “বিজয়ীরা ভিন্ন ধরনের কিছু করে না, তারা একই কাজ ভিন্নভাবে করে”

-শিব খেরা

বিজয়ীরা ভিন্ন ধরনের কিছু করে না, তারা একই কাজ ভিন্নভাবে করে

জীবনে তারাই সফল হয় যারা নিজেদেরকে জানতে পারে।নিজেকে জানতে হলে অথবা নিজের মনের মাঝের মানুষটাকে জাগিয়ে তুলতে হলে অনুপ্রেরণা প্রয়োজন।এই অনুপ্রেরণা হতে পারে একটি উক্তি থেকে বা কোনো গল্প থেকে বা কোনো বই থেকে।

সবসময় সবাই এটা বলে যে সফল হতে হলে ঠিক কোন কাজটা করতে হবে, কোন পথে আর কি করে করলে দ্রুত সফলতার মুকুটকে মাথায় তোলা যাবে। কিন্তু একজন সফল মানুষ হতে গেলে কেবল কিছু কাজ করলেই হয়না, এর পাশাপাশি কিছু কাজ থেকে বিরতও থাকতে হয়। আর তাই সফল হবার মূলমন্ত্র হিসেবে জেনে নিন সফল হতে হলে কোন কাজগুলোকে না বলতে হবে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

১. দোষারোপ করা বন্ধ করুন

মানুষ প্রতিদিন নানারকম কাজ করে। কোনোটা থেকে সফলতা আসে, কোনোটায় ব্যর্থতা। সফল হলে অবশ্যই খুশি হবেন আপনি। সফলতার স্বাদ নেবার অধিকার সবার রয়েছে। কিন্তু তাই বলে দশবারের ভেতরে একবার ব্যর্থ হলে সেটা নিয়ে মানসিক চাপ নেওয়া বা নিজেকে দোষারোপ করা থেকে বিরত থাকুন। কারন, জীবনে এমনটা হবেই। ব্যর্থ হলে তাই নিজের সফলতাগুলোকে সামনে রেখে আবার নতুন করে কাজ শুরু করুন।

২. হ্যাঁ বলা বন্ধ করুন

জীবনে অনেকের সাথে পরিচিত হতে হয় পথে চলতে গেলে। আর সেই সাথে বাড়তে থাকে আশপাশের মানুষদের চাহিদাও। হয়তো কোন একটা কাজ ভালো লাগছে না আপনার। কিন্তু কেবল কাছের মানুষেরা কষ্ট পাবে ভেবে হ্যাঁ বলছেন তাদেরকে। করছেন কাজটা। এরকম না হলে ভাল। তবে যদি এমনটাই হন আপনি আর আপনার জীবন তাহলে এখনই পাল্টে যেতে চেষ্টা করুন। অন্যকে শক্তভাবে না বলতে শিখুন। অপছন্দের মানুষ কিংবা অসৎ মানুষদের কাছ থেকেও দূরে থাকুন। স্পষ্ট ভাষায় না বলে হ্যাঁ বলা থেকে বিরত থাকুন প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে।

৩. নিজেকে ছোট করা বন্ধ করুন

অনেকে অন্যদের সামনে নিজেকে নিয়ে অনেক রসিকতা করবার চেষ্টা করে। হয়তো সেটা ভালো। তবে সবসময় নয়। কারন একটা কথা দু থেকে তিনবার বললে সেটা আপনার মনের আর মগজের ওপরে একটু হলেও প্রভাব ফেলে। একটু হলেও আপনাকে ভাবতে সাহায্য করবে যে আপনি আসলেই অদক্ষ বা খারাপ। তাই নিজেকে ছোট করা বন্ধ করুন।

৪. বর্তমানকে প্রাধান্য দেওয়া বন্ধ করুন

হ্যাঁ, যদি সেটা হয় কিছুদিনের জন্যে, প্রয়োজনীয় কাজ বা নিজের কষ্টকে ভুলে থাকার জন্যে তাহলে ঠিক আছে। কিন্তু সবসময়কার জন্যে কেবল বর্তমান নিয়ে থাকলে ভবিষ্যৎ কখনোই ভালো ফল বয়ে আনবে না আপনার জন্যে। এমনকি অতীত নিয়ে না ভাবায় অনেক ভূল থেকে যাবে আপনার বর্তমানে। আর তাই কেবল বর্তমান নিয়ে না ভেবে অতীত আর ভবিষ্যতকেও পাশে রাখুন। তবে এটাও মনে রাখুন যে অতীতকে মনে রাখা মানে এই নয় যে অতীতের খারাপ ব্যাপারগুলোকেও সবসময় মনে রাখবেন আপনি।

৫. অবহেলা করা বন্ধ করুন

এই অবহেলাটা কেবল কাছের মানুষকেই নয়, বরং নিজেকেও। অনেকে কাজের চাপে কাছের মানুষদেরকে অবহেলা করেন। অবহেলা করেন নিজের শখ আর ভালোলাগাকেও। কিন্তু সফলেরা তা করেনা। তারা কাজের পাশাপাশি সব ব্যাপারকেই গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। নিজের ভাবনা, নিজের ইচ্ছা, শখ আর লক্ষ্যকে এগিয়ে রাখে তারা নিজেদের জীবনে।


৬. তুলনা করা বন্ধ করুন

অনেকেই অন্যদের সাথে নিজেকে তুলনা করেন। ফলে কখনো অহংকারী আবার কখনো হীনমন্ম্যতায় ভোগেন। কিন্তু সফল মানুষেরা কখনোই সেটা করেন না। তারা তুলনা করেন। তবে অন্য কারো সাথে নয়। নিজের সাথেই। আজকের আপনি আর গতকালের আপনিকে তুলনা করুন। দেখুন গতকালের ভুল থেকে একটু হলেও এরিয়ে আসতে পেরেছেন কিনা আপনি। অন্যের নয়, নিজের খুঁতগুলো বের করার চেষ্টা করুন। তাহলেই সফলতা ধরা দেবে আপনার হাতে।

ভাল থাকবেন সবাই

Technology সম্পর্কে বিভিন্ন Tips পেতে আমার সাইটে ঘুরে আস্তে পারেন।

একটি উত্তর ত্যাগ