মোবাইলের নেশা কাটানোর কিছু উপায়

0
161

বর্তমান সময়ে মোবাইল একটি প্রয়োজনিয় যোগাযোগের মাধ্যম। কিন্তু ইন্টারনেটের বদৌলতে মোবাইলের প্রতি দিন দিন মানুষ আসক্ত হয়ে পড়ছে। আপনিও কি এই সমস্যার মাধ্যে আছে? রাস্তা পার হন বা টয়লেটে থাকুন— কিছুতেই চোখ সরাতে পারেন না মোবাইলের স্ক্রিন থেকে? রাতে বিছানায় শোওয়ার পরেও ফেসবুক বা হোয়াটস অ্যাপের মেসেজ চেক না করলে ঘুম আসে না চোখে! এমনই সমস্যার মাঝে রয়েছেন নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা। তাহলে জেনে নিন এই নেশা কাটানোর কয়েকটি উপায়—

index মোবাইলের নেশা কাটানোর কিছু উপায়

১. কাজ থেকে বাড়িতে ফেরার পরে মোবাইলটিকে সাইলেন্ট করে দিন। খুব প্রয়োজন না থাকলে ফোনটিকে কোনো ড্রয়ার বা আলমারিতে রেখে দিন। আধ ঘন্টা বা এক ঘন্টা পরে ফোন বার করে দেখুন ইতিমধ্যে কোনো জরুরি ফোন বা মেসেজ এসেছে কি না। এই নিয়ে অযথা দুশ্চিন্তা না করে কল ব্যাক করুন বা মেসেজের রিপ্লাই দিন।

২. অফিসে থাকাকালীন টয়লেট যেতে হলে মোবাইলটিকে রেখে যান নিজের ডেস্কে। কাজের সময় মোবাইলের থেকে দুরে থাকাই ভালো। কারণ কাজের সময় মোবাইল হাতে থাকলে বড় বস দেখলে রাগও করতে পারে। অযথা মোবাইল নিয়ে হাতাহাতি না কারাই ভালো। টেবিলের উপর রেখে দিন প্রয়োজন হলে কল বা অন্য কাজ করবেন। এভাবে কিছুদিন চর্চা করতে থাকুন।

৩. আপনি যখন রাস্তায়, তখন নিজের চারপাশের পরিবেশের দিকে মনোযোগ দিন। আশপাশের মানুষজনের দিকে তাকান, তাদের পোশাক-আশাক লক্ষ করুন। রাস্তা যদি ফাঁকা থাকে তাহলে দেখুন আকাশের অবস্থা, বা তাকান গাছপালার দিকে। আর রাস্তা পেরনোর সময়ে অবশ্যই তাকান ট্র্যাফিক সিগনালের দিকে। মোট কথা মোবাইল থেকে মন সরান।

৪. গাড়ি চালানোর সময়ে মোবাইলটিকে সাইলেন্ট করে নিজের নজরের বাইরে রেখে দিন। বাসে বা ট্রেনে থাকাকালীন মোবাইলে গান শোনা, গেম খেলা বা ভিডিও দেখার অভ্যেস ছাড়তে হবে। দরকার হলে সাময়িক ভাবে নেট-অফ করে দিন। বাস-ট্রেনের জানলা দিয়ে বাইরের দৃশ্য উপভোগ করার অভ্যেস গড়ে তুলুন।

৫. দিনে অন্তত ১০-১৫ মিনিট মেডিটেশন বা অন্য কোনো মেন্টাল রিল্যাক্সেশন এক্সারসাইজের জন্য নির্ধারিত রাখুন। শুধু মোবাইল-নেশা নয়, যেকোনো ক্ষেত্রেই নিজের মনকে নিয়ন্ত্রণ করার এটি একটি কার্যকর উপায়।

একটি উত্তর ত্যাগ