যেসকল কারণে ম্যাকের চেয়ে পিসি ভালো  FavoriteLoadingবুকমার্ক

পিসির ভলিউম টোয়েক করা
বাই-ডিফল্ট উইন্ডোজ ৭ স্বয়ংক্রিয়ভাবে পিসির সাউন্ডের ভলিউম কমিয়ে দেয় যখনই এটি শনাক্ত করতে পারে যে পিসি ফোনভিত্তিক কল করে বা রিসিভ করে। যদি এটি বিরক্তির মনে হয়, তাহলে আপনি অন্যান্য শব্দের সাথে এই শব্দকেও বন্ধ করে দিতে পারেন। এরপর খুব সহজেই প্রয়োজন অনুযায়ী সেটি পরিবর্তন করে নিতে পারেন। এজন্য টাস্কবারে স্পিকার আইকনে ডান ক্লিক করে সিলেক্ট করুন Sound→Communication অপশন। এরপর উইন্ডোজকে বলে দিন কী করতে হবে।

index যেসকল কারণে ম্যাকের চেয়ে পিসি ভালো

সিস্টেম ট্রে পুর্নর্বিন্যাস করা
উইন্ডোজ ৭-এ দেখা যাচ্ছে, সিস্টেম ট্রে আইকন প্রায় একই ধরনের আচরণ করে যেমনটি টাস্কবারে করে থাকে। সুতরাং ট্রে’র বাইরে যদি সেগুলোকে রি-অ্যারেঞ্জ বা পুনর্বিন্যাস করতে চান, তাহলে ডান দিকে গিয়ে ইচ্ছেমতো সেগুলোকে ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ করুন। এমনকি আপনি গুরুত্বপূর্ণ আইকনগুলোকে সরিয়ে ট্রে’র বাইরে নিয়ে যেতে পারেন, ড্রপ করতে পারেন ডেস্কটপে। এরপর আবার সেগুলোকে ফিরে নিয়ে যেতে পারেন যখন আর আপনার নজরদারির দরকার হবে না।

ব্যাটারির আয়ু দীর্ঘায়িত করা
উইন্ডোজ ৭-এ সম্পৃক্ত করা হয়েছে নতুন পাওয়ার অপশন, যা নোটবুকের ব্যাটারির আয়ু উন্নত করতে সহায়তা করে। এগুলো দেখতে চাইলে Start-এ ক্লিক করে Power Options লিঙ্কে ক্লিক করম্নন। এরপর আপনার বর্তমান পরিকল্পনার জন্য Change Plan Settings অপশনে ক্লিক করম্নন এবং Change Advanced Settings অপশন সিলেক্ট করম্নন। এবার মাল্টিমিডিয়া অপশন সম্প্রসারণ করম্নন, যেমন Multimedeia Settings। এর ফলে আপনি পাবেন এক নতুন ‘playing video’ সেটিং, যা পাওয়ার সেভিংকে খানিকটা অপটিমাইজ করার জন্য সেট করতে পারবে। অন্যান্য সেটিং জুড়ে ব্রাউজ করম্নন এবং নিশ্চিত করম্নন এগুলো অপনার প্রয়োজন মেটানোর উপযোগী হয়েছে।

ভয়ানক আবর্জনার সত্মূপ ফাইল রাইট করা
উইন্ডোজ ৭ memory.dmp ক্র্যাশ ফাইল তৈরি করে না যদি আপনার হার্ডডিস্কে ২৫ গিগাবাইটের কম ফ্রি স্পেস থাকে। এ অবস্থায় যদি উইন্ডোজ ডিবাগিং টুল ইনস্টল করা থাকে এবং আপনার ক্র্যাশের কারণ ডায়াগনাস করতে চান, তাহলে এই ফিচার বন্ধ করে রাখতে পারেন।

এজন্য ব্রাউজ করম্নন HKEY_LOCAL_MACHINESYSTEMCurrentControlSetControlCrashControl-এ। এবার একটি নতুন DWORD ভ্যালু তৈরি করম্নন, যা AlwaysKeepMemoryDump হিসেবে পরিচিত। এরপর থেকে ক্র্যাশ ডাম্প ফাইল সবসময় সেভ হবে।

মান্ড লাইনে ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ
কমান্ড লাইনে কাজ করার সময় প্রায়ই আমাদেরকে ফাইলে অ্যাক্সেস করতে হয়, যার অর্থ দীর্ঘ পাথ টাইপ করে সঠিকভাবে কিছু পাওয়ার আশা করা। তবে উইন্ডোজ ৭ অফার করে আরও অধিকতর সহজ উপায়। কমান্ড লাইন উইন্ডোতে শুধু ফাইল ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ করলেই পুরো পাথ আবির্ভূত হবে, যা সম্পন্ন হয় কোটেশন দিয়ে এবং ব্যবহারের জন্য প্রস্ত্তত হয়।
এই ফিচারটি পুরোপুরি নতুন নয়। এই কাজটি উইন্ডোজ এক্সপিতেও করা যায়, তবে ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ ফিচারটি উইন্ডেজ ভিসতায় যুক্ত করা হয়নি। নিয়মিত ব্যবহারকারীর মতো কমান্ড প্রম্পট ওপেন করার ক্ষেত্রে উইন্ডোজ ৭-এ মনে হয় কিছুটা দুর্বোধ্যতা রয়েছে। এজন্য একজন অ্যাডমিনিস্ট্রের হিসেবে রান করুন এবং যখন এটি ড্রপ করা ফাইল এক্সসেপ্ট করে, তখন পাথ আবির্ভূত হবে না।

দ্রুত প্রোগ্রাম চালু করা
উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি একবার একটি প্রোগ্রাম চালু করার পর আরেকটি প্রোগ্রাম স্টার্ট করতে চান, তাহলে আবার ফিরে স্টার্ট মেনু থেকে কাজ শুরু করার দরকার নেই। এই কাজটি দ্রম্নত করার জন্য শিফট কী চেপে ধরে প্রোগ্রাম আইকনে ক্লিক করুন এবং উইন্ডোজ ৭ আপনার জন্য শুরু করবে নতুন দৃষ্টাত্ম।

জাম্প লিস্ট কাস্টোমাইজ করা
আপনার টাস্কবারে একটি আইকনে ডান ক্লিক ধরুন, নোটপ্যাড। এর ফলে আপনি দেখতে পারবেন একটি জাম্প লিস্ট মেনু, যা সম্প্রতি কাজ ডকুমেন্টে সহজ অ্যাক্সেস দেয়। তবে সেখানে হয়তো আরেকটি ডকুমেন্ট থাকতে পারে, যেখানে আপনি সবসময় থাকতে চান? এরপর এটি টাস্কবার আইকনে ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ করুন। এর ফলে এতে সহজে অ্যাক্সেসের জন্য জ্যাম্প লিস্টের উপরে পিন হবে। এবার ফাইল নেমের ডান দিকের পিনে ক্লিক করুন অথবা এতে ডান ক্লিক করুন এবং যখন এটি অপসারণ করতে চাইবেন তখন সিলেক্ট করম্নন Unpin from this list অপশন।

lt+Tab এর বিকল্প

ধরুন, পাঁচটি ওপেন এক্সপেস্নারার উইন্ডোর একটিতে অ্যাক্সেস করতে চাচ্ছেন। তবে সেখানে আরও অন্যান্য প্রোগ্রামও রানিং অবস্থায় থাকতে পারে। এখানে Alt+Tab কী চেপে অ্যাক্সেস করা কঠিন হয়ে পড়ে, কেননা কোনটি আপনার জন্য দরকার তা এ মুহূর্তে নির্ধারণ কঠিন। এমন অবস্থায় Ctrl কী চেপে এক্সপেস্নারার উইন্ডো আইকনে ক্লিক করুন। এরপর আপনি উইন্ডোজ ৭-এর এক্সপেস্নারার জুড়ে সাইকেল করতে পারবেন, যা হবে আগের চেয়ে অনেক দ্রুত উপায়। অবশ্যই এটি যেকোনো অ্যাপিস্নকেশনে কাজ করবে, যেখানে মাল্টিপল উইন্ডো ওপেন থাকবে।

দ্রুত ইন্টারনেট এক্সপেস্নারার লোড করা
কিছু ইন্টারনেট এক্সপেস্নারার অ্যাড-অনস স্টার্ট হতে বেশ সময় নেয়, যা ব্রাউজিং পারফরম্যান্সকে কমিয়ে দেয়। তবে ইন্টারনেট এক্সপেস্নারার ৮ বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ রিসোর্স কোনটি তা নির্দিষ্ট করতে পারে। এজন্য ক্লিক করুন Tools→Manage Add→Ons। এরপর ডান দিকের কলাম থেকে Load Time চেক করে নিন। এর ফলে আপনি তাৎক্ষনিক দেখতে পারবেন কোন ব্রাউজার এক্সটেনশনের কারণে স্টার্ট হতে বেশি সময় নিচ্ছে।
জায়গামতো ছবি ফিক্স করা

ডকুমেন্টে টেক্সট যুক্ত করা হলে ওয়ার্ড ডকুমেন্ট আপনার বিদ্যমান ছবিকে কাঙ্ক্ষিত জায়গা থেকে সরিয়ে অন্য জায়গায় নিয়ে যায় যেখানে আপনি চান না। এমন অবস্থার সমাধান হলো জায়গামতো ইমেজকে লক করা। এ জন্য ইমেজে ডান ক্লিক করে Format Picture সিলেক্ট করম্নন। এবার Layout ট্যাবে ক্লিক করুন। এরপর ট্যাবের নিচের দিকে অফাধহবফ ট্যাবে করুন। এবার ইমেজের জন্য র্যাকপিং স্টাইল সিলেক্ট করম্নন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বর্গাকৃতি বেছে নেয়া হয়।
এবার Picture Position ট্যাবে ক্লিক করে Lock anchor অপশন সিলেক্ট করম্নন। এরপর উভয় উইন্ডোতে ওকে করম্নন। এরপর স্ক্রিনজুড়ে ছবিকে ক্লিক ও ড্র্যাগ করা সম্ভব হয়।

এই অপশন ছবিকে প্যারাগ্রাফে লক করে দেবে, যাতে এর ওপরে আরও টেক্সট যুক্ত করলে ছবি নিচে চলে যাবে। যদি আপনি ছবিকে পেজের একটি সুনির্দিষ্ট জায়গায় ফিক্স করতে চান, তাহলে Picture Position ট্যাবে ফিরে যান এবং Absolute Position-এর জন্য ডান দিকের উভয় মেনুর Page সিলেক্ট করম্নন। এরপর Ok-তে ক্লিক করম্নন।

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nineteen − 1 =