আপনার নিত্যদিনের যাতায়াত খরচ সহজেই কমিয়ে নিন  FavoriteLoadingবুকমার্ক

নিত্যদিনের কাজের তাগিদে অথবা পড়াশোনার খাতিরে আমাদেরকে নিয়মিতই বের হতে হয়, যাতায়াত করতে হয় নির্দিষ্ট গন্তব্যে। যাত্রা পথে ট্রাফিক জ্যাম, সময়মত গন্তব্যে পৌঁছাতে না পারা ইত্যাদি ঝামেলা ছাড়াও আরেকটি বড় যে ঝামেলা পোহাতে হয় তা হলো অতিরিক্ত যাতায়াত খরচ। আমাদের প্রতিদিনের খরচের একটি বড় অংশ যায় এই যাতায়াতের পেছনেই। একটু সচেতনতা অবলম্বন করলেই আপনি এই বড় খরচের হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন।যাতায়াত খরচ কমাতে ব্যবহার করুন সাইকেল 

 Transportation-options1_1 আপনার নিত্যদিনের যাতায়াত খরচ সহজেই কমিয়ে নিন

এর জন্য আপনাকে মেনে চলতে হবে কয়েকটি বিষয়। এগুলো হলঃ

১। যাতায়াতে সাইকেল বা হাঁটা

পরিবেশ বান্ধব যানবাহন বলতে গেলে বলা যায় দুই চাকার সাইকেলের কথা। আপনার কাছের বা দূরের, যে প্রয়োজনেই হোক ব্যবহার করতে পারেন সাইকেল। এটি কোন বায়ু দূষণ করে না তাই পরিবেশের জন্য উপকারী। দুই চাকার সাইকেলের পাশাপাশি আপনার দুই পা’র কথা ভুলে যাবেন না। কাছের দূরত্বে যেতে পারেন পায়ে হেঁটে। সাইকেল চালানো এবং হাঁটা- দুটোই পরিবেশ, আপনার স্বাস্থ্য এবং আপনার অর্থ সব কিছুর জন্যই ভাল!

২। ব্যবহার করুন পাবলিক ট্রান্সপোর্ট

রিকসা, সিএনজি, ট্যাক্সি ক্যাব বা নিজের প্রাইভেট কার যাই ব্যবহার করুন না কেন খরচ হবে আকাশচুম্বী। নিজের গাড়ি হলে তো কথাই নেই। তেল-গ্যাসের খরচের পাশাপাশি আছে নির্দিষ্ট জায়গায় পার্কিং এর খরচ। এছাড়াও রয়েছে মেইন্টেনেন্স। সুতরাং এত ঝামেলায় না গিয়ে ব্যবহার করুন পাবলিক ট্রান্সপোর্ট, যেমন- বাস। এর মাধ্যমে আপনি সহজেই এবং অপেক্ষাকৃত কম ভাড়ায় যাতায়াত করতে পারেন। পাবলিক বাসের রয়েছে লোকাল ও সিটিং সার্ভিস। ভিড় এড়াতে চাইলে ব্যবহার করতে পারেন সিটিং সার্ভিস যার জন্য বহন করতে হবে কিছু বাড়তি অর্থ কিন্তু সেটি অবশ্যই অন্য পরিবহনের ভাড়ার চেয়ে অনেক কম।

৩। প্রাতিষ্ঠানিক পরিবহনে যাতায়াত

প্রাতিষ্ঠানিক পরিবহনে যাতায়াত অনেক সুবিধাজনক অন্য যেকোনো পরিবহনের চেয়ে। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যেমন নিজস্ব পরিবহন থাকে ঠিক তেমনি অনেক প্রতিষ্ঠান তার কর্মীদের পরিবহন সুবিধা দিয়ে থাকে। এর ফলে যাতায়াতের খরচ কিন্তু অনেকটাই বেঁচে যায়। এক্ষেত্রে সাধারণত বছরের প্রথমে বা মাস হিসেবে পরিবহনের টাকা প্রতিষ্ঠান নিয়ে নেয় তবুও তা প্রতিদিনের যাতায়াত খরচের চেয়ে অনেক কম এবং অবশ্যই এর মাধ্যমে যাতায়াত কম কষ্টকর ও এতে নিশ্চয়তা রয়েছে যে সময়মত পৌঁছানো যাবে।

৪। একত্রে যাতায়াত

আমাদের অনেকেরই হয়ত গন্তব্য এক এবং থাকি একই জায়গায়। সেক্ষেত্রে যে কাজটি করা যায় ৪-৫ জন মিলে একটি ক্যাব ভাড়া করা যায় যা নিয়মিত পরিবহন সুবিধা প্রদান করবে। সংখ্যায় বেশি হলে মাইক্রো বাসও ভাড়া করা যায়। গাড়ি প্রত্যেককে তার বাড়ি থেকেও পিক করতে পারে অথবা সবাই একটি নির্দিষ্ট জায়গায় এসে সেখান থেকে গাড়িতে উঠতে পারে। এটি নিজেদেরকেই ঠিক করে নিতে হবে। এর মাধ্যমে ভাড়া অনেকটাই সেভ করা সম্ভব হবে কেননা মূল ভাড়া কয়েকজনের মধ্যে ভাগাভাগি হয়ে যাবে।

৫। সময় হাতে রেখে বের হন

আমাদের আরেকটি বদভ্যাস হল আমরা সময়ের গুরুত্ব বুঝি না এবং নির্দিষ্ট টাইমের পর বের হই। আমি নিজেই এই কাজ টা করি যা ঠিক না। দেরিতে বের হলে আপনি যে জায়গায় বাসে পৌঁছাতে পারতেন অনেক সহজে তার জন্য আপনাকে নিতে হচ্ছে সিএনজি- অতএব বেশি টাকা খরচ। তাই যেখানেই যাবেন তার দূরত্ব বিবেচনা করে এক থেকে দের ঘণ্টা আগে বের হওয়ার চেষ্টা করুন। এতে লাভ আপনারই হবে।

৬। নিজের গাড়ির যত্ন নিন

“গাড়ি পোষা নাকি হাতি পোষার সমান” হ্যাঁ, তা অনেকাংশে সঠিক। বর্তমানে যানবাহনের অভাবে অনেকেই কষ্ট করে হলেও নিজের একটি গাড়ি রাখতে চায় যাতে গন্তব্যে পৌঁছানো সহজ হয়। কিন্তু গাড়ির সাথে জড়িত থাকে অনেক বিষয় যেমন মেইন্টেনেন্স, ইনস্যুরেন্স ইত্যাদি ইত্যাদি। এর ফলে আপনার যাতায়াতের খরচ বেড়ে যায় অনেকটাই। তাহলে উপায়? খরচ কি কমান সম্ভব না? অবশ্যই সম্ভব। প্রথমেই বলি স্পীডের কথা। গাড়ির স্পীড বেশি হলে আপনার ফুয়েল খরচ বেশি হবে। গুনতে হবে বাড়তি টাকা। তাই স্পীড লিমিটের মধ্যে রেখে গাড়ি চালান। এছাড়া নিয়মিত আপনার গাড়ির চেক আপ করুন, টায়ার ঠিক আছে কিনা, তেল আছে কিনা, ব্রেক ঠিক আছে কিনা ইত্যাদি। এর ফলে হুট করে আপনার গাড়ি নষ্ট হবার ভয় থাকবে না এবং আপনার এক গাদা অর্থও খরচ হবে না। তাছাড়া আরেকটি কাজ করতে পারেন তা হল ওয়ার্কশপে কার ওয়াশ।  ওয়ার্কশপে না করে এই কাজ আপনি করতে পারেন বাসায় যা আপনার খরচ কমিয়ে দেবে।

প্রতিদিন যাতায়াতের পেছনে আমাদের খরচ হয় অনেক টাকা। খরচ মেনে নিয়েই আমাদের কাজের তাগিদে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়। প্রতিদিনের যাতায়াত অভ্যাসে একটু পরিবর্তন আনলে এবং একটু চিন্তা ভাবনা করে কাজ করলেই আমরা আমাদের প্রতিদিনের বড় একটি খরচের হাত থেকে বেঁচে যেতে পারি।

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fifteen − eleven =