শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)  FavoriteLoadingবুকমার্ক

শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)

HasiburNasif

আমি গেম খেলতে আর অজানা বিষয় জানতে পছন্দ করি। প্রোগ্রামিং আর ওয়েব ডিজাইনিং শিখতে আগ্রহী।
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)

শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)

১৬জুলাই ১৯৬৯, মানবসভ্যতার ইতিহাসে নতুন দ্বার উন্মোচিত হল। রূপকথার চাঁদের বুড়ির চাঁদকে জয় করল মানুষ। চাঁদের বুকে এঁকে দিলো মানবসভ্যতার চিহ্ন। পা রাখল  চাঁদের ভূত্বকে। আমেরিকার তৈরি Apollo 11 নামক মহাকাশযানে করে চাঁদে পৌঁছল মানুষ। ইতিহাস গড়ল তিনজন। নীল আর্মস্ট্রং, মাইকেল কলিন্স এবং এডঊইন বাজ অল্ড্রিন। প্রথম মানব হিসেবে চাঁদে নামেন নীল আর্মস্ট্রং তারপর দ্বিতীয় ব্যাক্তি হিসেবে অল্ড্রিন চাঁদের ভূত্বকে পা রাখলেন।

সেই অভিযানে মানুষ কি সত্যিই চাঁদে গিয়েছিল? নাকি এর পেছনে অন্য গল্প রয়েছে?

আমেরিকা বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র। সামরিক বা অর্থনৈতিক সকল দিক থেকে আমেরিকা নাম্বার ওয়ান। কিন্তু ১৯৬৯ সালে ব্যাপারটা এমন ছিল না। তখন বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র ছিল অবিভক্ত সোভিয়েত ইউনিয়ন। ১৯৪৫ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে উন্নত দেশগুলো ঝুঁকে পড়েছিল মহাকাশ নিয়ে। মহাকাশ গবেষণায় কে কত অগ্রবর্তী হতে পারে সে নিয়ে শুরু হয়েছিল প্রতিযোগিতা। প্রায় সবরকম মহাকাশ সম্পর্কিত ব্যাপারে সোভিয়েত আমেরিকার চেয়ে কয়েকগুন এগিয়ে ছিল(ইতিহাস সাক্ষ্যী)। সেই আমেরিকা হঠাৎ করে চাঁদে প্রথমবারের মত মানুষাভিযান করে সম্পূর্ণরূপে সফল হল! আশ্চর্যের বিষয়ই বটে!!! এর একটা ব্যাখ্যা হল ধূর্তামির রাজা আমেরিকা এখানেও ধূর্তামির আশ্রয় নিয়েছে।

কি ছিল আসলে Apollo 11 অভিযান?????

Apollo 11 আসলে আমেরিকার করা একটা নিপুণ সিনেমা ব্যাতিত কিছুই নয়। উচ্চমানের স্টুডিওতে বেশ চালাকির সাথে সেট তৈরি করে ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট, কম্পিউটার আর ক্যামেরার কারসাজিতে করা একটা অসাধারণ চলচিত্র। যে চলচিত্র ধোঁকা দিয়ে চলছে ইতিহাস এবং মানুষকে, তাও আবার বহু বছর ধরে।

The Apollo 11 Mission:

প্রথমে ভিডিওটা দেখুন:
[youtube https://www.youtube.com/watch?v=xLu0Ak9Blog?feature=player_embedded]

এই ছবিটি দেখুন…
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)

শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
  • আপনি কি আকাশে তারা দেখতে পাচ্ছেন ?? আমি তো পাচ্ছি না !!! তারা দেখা যাওয়ার কথা ছিল না ??
  • চাঁদে তো বাতাস নেই । তো পতাকা উড়ছে কিভাবে ?? [ ভূত নেই তো !! :roll: শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন) ]
  • মডিউলটি যেখানে অবতরণ করে, সেখানে কি গর্ত সৃষ্টি হওয়ার কথা ছিল না ! গর্ত তো দেখি না !!!
  • মডিউলের পায়ে ধূলা জমার কথা ছিল, কিন্তু ভিডিও-তে তা দেখা যায় না ।
  • OK, আপনি এবার আর্মস্ট্রং ভাইয়ের হেলমেটের গ্লাসের দিকে তাকান । কি, কিছু বুঝলেন ??
  • একেক বস্তুর ছায়া কেন একেক রকম, আলোর উৎস তো কেবল সূর্য ( নাকি অন্য কিছুও আছে ! ???? )
  • অভিযানের টেলিমেট্রি ডাটা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না ( অবশ্য নাসা বলে এটা নাকি হারানো গিয়াছে )…… এত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হারায়ে গেল !!
  • লক্ষ করে দেখবেন, সব ছবিরই Background এক  ( কারন, পুরা মুভি একই শুটিং স্পটে করা  ???? )
  • আমার মতে চাঁদের পাথর, পৃথিবীর পাথরের মত হওয়ার কথা না । কিন্তু তাদের আনা পাথরকে দেখলে বলবেন, এই পাথর দিয়ে আপনে ছোটবেলায় খেলেছেন ????
  • ভিডিও-তে দেখতে পাওয়া যায়, দুটি বস্তু পরস্পর ছেদ করে, কিন্তু আলোর তত্ত্ব অনুযায়ী কি এটা সমান্তরাল হওয়ার কথা না ?
  • উনারা ভ্যান হেল বেল্ট এর মারাত্মক রশ্নি থেকে বেঁচে গেলেন, তাদের তো ওখানেই ইন্তেকাল করার কথা !

আমার আরও কিছু যুক্তি আছে, যা সাধারণ চোখে ধরা পড়বে না । যেমনঃ

  • এখন তো প্রযুক্তি অনেক এগিয়েছে, তো আর চাঁদে যাওয়া হচ্ছে না কেন ??
  • চাঁদে গেল ভাল কথা, তারা ফিরে এল কিভাবে ??
  • চাঁদে Apollo গেল যে শক্তি বলে, সেই বল তো ফিরার সময়ও থাকা উচিত ! তাহলে এটা কি অসম্ভব না ?

1974 সালে বিল কেসিং নামের একজন আমেরিকান তার ” We Never Went to the Moon” বইয়ে এসব যুক্তি উপস্থাপন করেন ।
আমি আপনাদের এবার ছবি দিয়ে বোঝাব । প্রতিটা ছবি খুব সূক্ষ্মভাবে দেখবেন…

শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
ছবিতে দেখা যাচ্ছে, বাজ অলড্রিন আর নীল আর্মস্ট্রংকে । আর্মস্ট্রং পতাকা গাঁথছেন আর অলড্রিন দাঁড়িয়ে আছেন।
A লক্ষ করুন,
সূর্যই যদি একমাত্র আলোর উৎস হয়, তবে আর্মস্ট্রং-এর থেকে অলড্রিন-এর ছায়া কি বড় হওয়া সম্ভব??
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
এবার এই ছবি দেখেন।
B-তে Aldrin এর SpaceSuit-এ একটা ছায়া দেখা যাচ্ছে । সূর্য একমাত্র উৎস হলে তো ছায়া আরও Dark হত, তাইনা??
C-তে দেখুন যত দূরত্ব বাড়ছে, মাটি তত Fade হয়ে যাচ্ছে । যেখানে বায়ু নাই, সেখানে এটা অসম্ভব ।
D-তে দেখেন, হেলমেটের মধ্যে লাল চিহ্নিত গোল –ওটা কি ??? নাসাও বলতে পারেনি, এড়িয়ে গেছে ।
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
পরের ছবিতে আসা যাক ।
E-তে কোন ছায়া দেখছেন ??
নাসা বলেছে, Spaceship ফ্লাই করার সময় ওটা Shadow . কিন্তু পৃথিবীতে বিমান বা অন্য কিছু ওড়ার সময়ও এত Dark ছায়া পড়ে না।
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
এখন এই ছবি দেখুন…
K-টা পুরাই অন্ধকার, কিন্তু আমেরিকার পতাকা দেখা যাচ্ছে Lolzzz…
আর J-তে তো তারা দেখি না !!!
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
ক্যামেরা যদি বুকেই বাধা থাকে, তবে
L-কখনই ছবিতে আসবে না, ভেবে দেখুন …
M-এর ছায়া আসমান্তরাল, একটু আগেই বলেছিলাম । কিন্তু এটা হতে পারে না ।
N-এ খেয়াল করুন, আমি যদি বলি আলোটা Spacesuit থেকেই আসছে !
শতাব্দীর সেরা মিথ্যা: চন্দ্রাভিযান(সত্য জানুন)
দেখুন, Q-চিহ্নিত স্থান আর গোল দাগ করা স্থানের মাটির কত পার্থক্য !!
R -এ একটা C অক্ষর দেখা যায় । এটা ওদের শুটিং-এর সুবিধার্থে করা ।
S-দেখুন, যেখানে পানি নাই, সেখানে এত সুন্দর করে সিনেমা সাজিয়েছে; বোঝায় যায় এটা পানির মিশ্রণ ছাড়া অসম্ভব ।
তাহলে ঐ চিহ্ন আসল কোত্থেকে ?????

এবার এই সিনেমার Behind The Scene টা আমরা একনজর দেখে নিই:

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=H8ZzFemBUJQ?feature=player_embedded]

কি এসব বিশ্বাস হয় না ? তাইলে এটা দেখেন তো!

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=SFPiwnVL9ic?feature=player_embedded]

আপনাদের কারও যদি যুক্তি থাকে, যে মানুষ চাঁদে গেছে… কমেন্টের মাধ্যমে জানান ।
আমরা এই বিষয় নিয়ে যুক্তি/তর্ক/আলোচনা করতে চাই …

যে কোন কারনে ঘুরে আস্তে পারেন আমার ব্লগ .

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

18 − 2 =