স্মার্টফোনের চার্জ সমস্যা সমাধানের কিছু উপায়

0
259

দুপুর পেরোনোর আগেই যদি দেখেন আপনার স্মার্টফোনের চার্জ নেমে এসেছে ৪০ শতাংশে, আর আপনি হয়তো জরুরী কোন কাজে বাহিরে। নিজেকে অসহায় ভাবা ছাড়া হয়তো কিছু করার নাই আপনার তখন। স্মার্টফোনের এই যুগে ফেসবুকিং, মেইল চেক, গেইম বা ই-বুক পড়া সবই চলে এতে, আর রাস্তার বিরক্তিকর জ্যামে বসে অনেকেই এখন স্মার্টফোনেই অনেক কিছু করে সময় কাটান। আর তাই এভাবে ব্যাটারির চার্জ ফুরিয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক নয়। আর সমস্যার বিকল্প হিসেবে থাকছে আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারির চার্জ বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগ।

index স্মার্টফোনের চার্জ সমস্যা সমাধানের কিছু উপায়

১. ব্যাটারি কেস

নাম শুনেই বুঝতে পারছেন কি হতে পারে এটা। হ্যাঁ, আপনি যা ভাবছেন তাই। স্মার্টফোনের ফোনের পেছনে আমরা যে ব্যাক কভার ব্যাবহার করি এটিও তাই। তবে আমরা সাধারণত যে কেসগুলো দেখি সেগুলো পাতলা হলেও, বিশেষ এই খাপটি একটু মোটা। আর এখানেই থাকে অতিরিক্ত আরেকটি ব্যাটারি। আপনার মোবাইলে আপনি যেভাবে চার্জের সংযোগ দিয়ে থাকেন, একইভাবে এই খাপে থাকা ব্যাটারির সাথে সুইচের মাধ্যমে সংযোগ দিয়ে আপনার মোবাইলটি চার্জ করে নিতে পারবেন। আর দুটিতেই যখন চার্জ ফুরিয়ে যাবে, তখন ব্যাটারি কেস এ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে দুটিকেই চার্জ করতে পারবেন একসাথে।

কৌশলগত ভাবে এটি পৃথক আরেকটি ব্যাটারি ছাড়া আর কিছু নয়। একটু মোটা খাপ ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি পাচ্ছেন অতিরিক্ত একটি ব্যাটারি বহনের সুবিধা। আর এটি ঠিক আপনার মোবাইলের একটি অংশ হিসেবেই থাকবে, আর এতে করে আপনার পৃথক কোন ব্যাটারি বহনের প্রয়োজন হচ্ছে না। আর যখনই আপনার ব্যাটারির চার্জ ফুরিয়ে যাবে তখন শুধু সুইচ টিপে দিলেই হল, ব্যাক কভার এর ব্যাটারি আপনার মোবাইলের ব্যাটারি চার্জ করা শুরু করবে।

বেশি ব্যবহারের ফলে আপনার যদি ক্রমাগত ব্যাটারির চার্জ ফুরিয়ে যেতে থাকে, তবে এটিই হতে পারে আপনার জন্য সবথেকে ভালো সমাধান। Mophie ব্র্যান্ড এর আইফোন ব্যাটারি কেস খুবই সুপরিচিত। এরা অন্যান্য ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনের ব্যাটারি কেসও তৈরি করে। এছাড়া আরও বেশকিছু কোম্পানি ব্যাটারি কেস প্রস্তুত করে থাকে। তবে যেটিই কিনুন না কেন, কেনার আগে আপনার স্মার্টফোনের মডেলের সাথে অবশ্যই মিলিয়ে কিনুন। নতুবা ঠিকমত ফিট হবে না।

অ্যামাজন বা এ ধরনের ই-কমার্স সাইটগুলোতে এই ব্যাটারি কেসগুলো পাওয়া যাবে।

২. অন্য ব্যাটারি ব্যবহার করা

বেশীরভাগ ফোনেই ব্যবহারকারীর ইচ্ছেমত ব্যাটারি পরিবর্তন করে নেয়ার সুযোগ নেই। তবে কিছু কিছু ডিভাইসের ক্ষেত্রে সম্ভব। এক্ষেত্রে স্যামসাং এর গ্যালাক্সি সিরিজের ফোনগুলোর কথা বলা যায়। এমনকি অভিজাত S5 বা S সিরিজের অন্যান্য সেটগুলোতেও ব্যাটারি প্রতিস্থাপন করার সুযোগ রয়েছে। এখানে ব্যাটারির সাথে ফোনের পুরো ব্যাক প্যানেলটিই পরিবর্তন করা যায়। এতে করে ব্যাটারি পরিবর্তনের সময় একটু বড় সাইজের ব্যাটারি লাগানো যায় যেটি কিনা নতুন ব্যাক কভারের সাথেও সামঞ্জস্যপূর্ণ।

আপনার ফোনটিতে যদি ব্যাটারি পরিবর্তনের সুযোগ থাকে, সেক্ষেত্রে ব্যাটারিটি বদলে নেয়াই ভালো। বড় সাইজের ব্যাটারি আর সাথে থাকা ব্যাক কভারটি বদলে নিলে এটি ব্যাটারি কেস ব্যবহারের থেকেও কার্যকরী সমাধান হতে পারে। কারণ এতে আপনার মোটা আরেকটি ব্যাটারি আর কেস ব্যবহার করার ঝামেলা করতে হচ্ছেনা। “extended battery” আর সাথে আপনার ফোনের মডেল লিখে গুগল করলেই খুঁজে নিতে পারবেন আপনার ফোনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ বড় ব্যাটারি। যেমন বলা যেতে পারে স্যামসাং S5 এর জন্য ব্যাটারির সন্ধান করলে, অ্যামাজন ডট কমে ৪০ ডলার মূল্যের থার্ড পার্টি ব্যাটারি পাবেন, যেটা ফোনের সাথে থাকা ব্যাটারির চেয়ে ৩ গুন বেশী চার্জ থাকার নিশ্চয়তা দেয়।

ব্যাটারি কেস ব্যবহারে আপনার সেটটি একটু মোটা হবে, অন্যদিকে ব্যাটারি পরিবর্তনের ক্ষেত্রে আপনার ব্যাক কভারটি পরিবর্তন করতে হবে। কোনটি বেছে নিবেন তা আপনার পছন্দের উপর নির্ভর করবে। তবে সারাদিন ব্যাটারি ব্যাকআপ পেতে এই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। যেটিই করুন না কেন, খুব সস্তা কোন কিছু না কেনাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

৩. সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাটারি প্যাক বহন করুন

আপনি ইচ্ছা করলে সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাটারি প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ব্যাটারি কেস ব্যবহার বা ব্যাটারি পরিবর্তনের বদলে বহনযোগ্য ব্যাটারি প্যাক সাথে রাখতে পারেন। যখন ফোনে চার্জ প্রয়োজন হবে তখন তারের মাধ্যমে এর সাথে ফোনের সংযোগ দিয়ে ফোন চার্জ করে নিতে পারবেন। এতে আপনার ফোনটি যেমন আছে তেমনই থাকবে। আর প্যাকটি দিয়ে অন্য ডিভাইসও চার্জ করতে পারবেন। যেমন: ট্যাব, প্যাড ইত্যাদি।
এমনিতে ব্যাটারি প্যাক বেশ ভালো একটি বিকল্প। তবে এটি একটি আলাদা যন্ত্র। আর চার্জ করার সময় আলাদা তার দিয়ে ফোন চার্জ করতে হয়। আর প্যাকটিকেও আলাদা চার্জ করতে হয়। আর প্যাকটি বড় হওয়ায় পকেটে বহন করা যায় না। আর চার্জ করার সময় হাতে বা কোথাও রেখে নিতে হয়। যেমনটা ব্যাটারি কেসের ক্ষেত্রে করতে হয়না। এই সমস্যাগুলো বাদে ব্যাটারি প্যাক উপরের দুইটি উপায়ের চেয়ে ভালো।

আপনার যদি মাঝেমধ্যে অতিরিক্ত চার্জের প্রয়োজন পড়ে, সেক্ষেত্রে আপনি এটি ব্যাবহার করতে পারেন। কিন্তু প্রতিদিনই যদি আপনার মোবাইলের ব্যাবহার আপনার ব্যাটারির ক্ষমতার চেয়ে বেশী হয় সেক্ষেত্রে ব্যাটারি কেস বা বর ব্যাটারি ব্যাবহার করাই শ্রেয়। আর হ্যাঁ, যখন যেখানে সুযোগ হয় সেখানেই মনে করে ফোনটি চার্জ করে নিলে ঝামেলা অনেকটাই কমে যায়। বিশেষত কম্পিউটারে কাজ করার সময় আপনার ডাটা কেবলটি দিয়ে ইউএসবি দিয়ে মোবাইলটি চার্জ করে নিতে পারেন। এতে মোবাইল বা ব্যাটারি কোনটিরই ক্ষতি হবেনা।

LEAVE A REPLY

eleven + 19 =