কয়েকটি অমর প্রাণী !

10
522
কয়েকটি অমর প্রাণী !

অস্পৃশ্য বন্ধু

বর্তমান যুগ বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির যুগ...
আমি বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি প্রেমী একজন অতি সাধারণ মানুষ...
ইন্টারনেট, কম্পিউটার এবং প্রযুক্তি সম্পর্কে আবার প্রবল আগ্রহ...
আমার এই ইচ্ছাই আমার শক্তি...
তাই চেষ্টা করবো আপনাদের সাথে টিজনার পেজে থাকতে...
আপনাদের একান্ত সহযোগিতা আমার কাম্য...

ধন্যবাদ
কয়েকটি অমর প্রাণী !

“আসসালামু আলাইকুম”

কেমন আছেন আপনারা ?
আশা করি আল্লাহর রহমতে সবাই ভালোই আছেন।
সবাইকে আমার নতুন এই পোস্টে স্বাগতম।

আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদেরকে “কয়েকটি অমর প্রাণী” সম্পর্কে জানাবো…

শিরোনাম দেখেই ভড়কে গেলেন ? :D

বিষয়টা অসম্ভব মনে হচ্ছে ? ;)

পোস্টটি পড়লেই বুঝতে পারবেন, বিষয়টা আসলেই সম্ভব কিনা… :)

এই পোস্টে আপনাদের সাথে পরিচয় করাবো এমন ৫ টা প্রাণীর সাথে, যেগুলোকে মারা প্রায় অসম্ভব অথবা যেগুলো যে কোনো সিচুয়েশনই সারভাইভ করতে পারে।


১. ইস্ট আফ্রিকান জায়ান্ট স্নেইল :

৭ সে,মি উচ্চতা এবং ২০ সে,মি দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট এই জাতীয় স্নেইল মূলত ইস্ট আফ্রিকান হলেও সাউদার্ন ও ইস্টার্ন এশিয়াতে ব্যাপক হারে এদের দেখা যায়।। ইস্ট আফ্রিকান লোকজন বিষ, আগুন ইত্যাদি দিয়ে নানানভাবে চেষ্টা করলেও এই প্রাণীকে হত্যা করতে পারে নি। এরা সাধারণত গাছ, লতা-পাতা ফল-মূল খেয়ে বেচে থাকে।

কয়েকটি অমর প্রাণী !

২. ওয়াটার বিয়ার:

টারডিগ্রেড বা ওয়াটার বিয়ার নামে সুপরিচিত এই মাইক্রোস্কোপিক প্রাণীর শরীরে রয়েছে অস্বাভাবিক সহ্য ক্ষমতা। এরা একটি নিউক্লিয়ার বোমা এবং -২৭৩ ডিগ্রী পর্যন্ত নিম্ন তাপমাত্রা সহ্য করার ক্ষমতা রাখে। এছাড়াও প্রায় এক যুগ ধরে পানি ছাড়া সারভাইভ করতে পারে। এদের মারার একমাত্র উপায় হচ্ছে পৃথিবীর বাইরে পাঠিয়ে দেয়া যেখানে ধরে নেয়া হয়েছে ১০ দিন এরা অনায়াসেই কাটিয়ে দিতে পারবে।

কয়েকটি অমর প্রাণী !


৩. ট্রি ওয়েটা:

এদের পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ংকর প্রাণী হিসেবে একসময় বেশ সুপরিচিত ছিলো। এদের রক্তে এক ধরণের স্পেশাল প্রোটিন আছে, যাতে করা এরা যে কোনো অবস্থায় রক্ত সঞ্চালন সচল রাখতে সক্ষম। কোনো ভাবে তাদের বরফে পরিণত করা হলেও এদের রক্ত চলাচল বন্ধ হবে না। পরিস্থিতি নরমাল হলে এরা আবার আগের মত চলাফেরা করতেই সক্ষম। এ পুরাই মরে বেচে উঠার মত অবস্থা লাইক যোম্বি!

কয়েকটি অমর প্রাণী !


৪. লাংফিশ:

এরা পৃথিবীর সবচেয়ে পুরাতন জলজ প্রাণী হিসেবে খ্যাত। এদের দেখা পাওয়া যায় শুধু মাত্র আফ্রিকা, সাউথ আমেরিকা এবং অস্ট্রেলিয়াতে। এরা টানা ৬ মাস বাতাস এবং পানি ছাড়া বেচে থাকতে পারে। ছয় মাস পর সামান্য পানি পেলেই এরা আবার সারভাইভ করতে পারবে।

৫. অমর জেলীফিশ:

সত্যিকারের অমর বলা যায় এই প্রজাতির জেলীফিশ কে। এরা স্বাভাবিক অন্য জেলীফিশের মত জন্ম গ্রহণ করলেও লাইফের একটা স্টেজ-এ গিয়ে এরা আবার পলিপ (অর্থাৎ-জন্মাবস্থায়) ফিরে যায়। আর এভাবেই এর লাইফ সার্কেল চলতেই থাকে অনির্দিষ্ট সময় ধরে।


এছাড়াও ব্যকটেরিয়া, হাইড্রা এবং লবস্টারকেও বায়োলজিক্যলি অমর বলা হয় ভিন্ন ভিন্ন কারণে।


সংগ্রহেঃ আহমাদ মুজতবা

লেখাটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছে নিচের লিংকটিতে…

আপনি জানেন কি? (General Knowledge)


আজকের মত এই পর্যন্তই…
সবাই ভালো থাকবেন এবং আমার জন্য দোয়া করবেন।

“আল্লাহ হাফেজ” :)

10 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ