নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।  FavoriteLoadingবুকমার্ক

আসসালামু আলাইকুম!!!
কেমন আছেন সবাই??
ধরে নিচ্ছি সবাই ভালোই আছেন :D নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা। কারণ আমাদের টিম সবসময় চেষ্টা করে যাচ্ছে আপনাদের নতুন কিছু উপহার দেবার ।
জ্বী আমিও ভালোই আছি আপনাদের দোয়াতে :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
ইনবক্সে অনেক অনেক অনেক মেসেজ আসে বিভিন্ন টপিক নিয়ে লেখার জন্য। অনেক সময় নিজের ক্যাম্পাস জীবনের ব্যাস্ততার জন্য ফোরামে সময় দেওয়া হয় না।
আজ অনেক কষ্টে কিছু টাইম বের করে নিয়েছি আপনাদের জন্য .
গতো সপ্তাহে আমি কম্পিউটার নেটওয়ার্কিং নিয়ে বেসিক কিছু আলোচনা করেছিলাম এবং আপনাদের অনেক সাড়াও পেয়েছি :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
তাই আজ সবার পরিচিত নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম “লিনাক্স” নিয়ে কিছু আলোচনা করবো ইনশাল্লাহ :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
তো কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করা যাক :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
===============নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স)=================
নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিস্টেম (Network Operating System) কে সংক্ষেপে “নস” (NOS) নামে ডাকা হয়। NOS OSI-Model এর Application,presentation, Session layer-এ কাজ করে।
বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম বাজারজাত করেন। আশির দশকে ডাটা কমিউনিকেশনের জন্য নোভেল (Novell) খুব জনপ্রিয় নস হিসেবে ব্যাভার হতো। বর্তমানে লিনাক্স (Linux) অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে বহুল ব্যাবহারিত হচ্ছে।
এবার চলুন জেনে নিই জনপ্রিয় কিছু নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম এর তালিকাঃ
>বানিয়ান (Banyan)
>নোভেল (Novell)
>মাইক্রোসফট (Microsoft)
>Microsoft NT/2000 server
>ইউনিক্স (Unix)
>লিনাক্স (linux)
এবার চলুন জেনে নিই নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিস্টেম কোনটির ক্ষেত্রে কোন অপারেটিং সিস্টেম ব্যাবহারিত হয়ঃ
Network Operating System <———————————————>Protocol
>Microsoft SMB (Server Message Blocks)
>Novell NCP (Netware Core Protocol)
>Linux SAMBA
>Unix SAMBA
==============নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিস্টেম এর শ্রেণীবিভাগ===============
ব্যাবহারকারি অনুসারে নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিস্টেম মূলত দু-প্রকার । যথা-
*User Friendly Operating System (For normal user)
*Non-User Friendly Operating System (For Server)
*User Friendly Operating System সমূহ মূলত সার্ভার ডিজাইন,নেটওয়ার্ক সেট-আপ ইত্যাদি কাজে ব্যাভার করা হয়।
বর্তমানে কম্পিউটার নেটওয়ার্কিং এ Windows base NOS হিসেবে;
Windows Server 2003
Windows Server 2008
এবং linux base NOS হিসেবে;
Radhat Enterprise linux 9,6,5
Fedora
SUSE
Ubuntu
Linux mint
ইত্যাদি খুব জনপ্রিয় নস হিসেবে ব্যাবহৃত হয় :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
আমরা আজ শুধু লিনাক্স নিয়েই আলোচনা করব কারণ আমি দেখেছি প্রায় সব টেকি দের-ই লিনাক্স অপারেটিং সিস্তেম নিয়ে জানার খুব আগ্রহ।
তো চলুন এবার দেখে নিই লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম এর সুবিধাঃ
1.লিনাক্সে একটি Free Software Foundation এর পণ্য যা বিনা মুল্যে পাওয়া যায়।
2.লিনাক্স একটি পরিপূর্ণ অপারেটিং সিস্টেম
3.লিনাক্সের Software সমুহের Format ”.RPM” । লিনাক্সে “.exe” করে না বলে লিনাক্স প্রায় ভাইরাস মুক্ত।
4.লিনাক্স খুব সিকিউর একটি অপারেটিং সিস্টেম যা হ্যাক করাটা খুবই দুঃসাধ্য।
5.লিনাক্স এর Source Code Open তাই ইউজার নিজের ইচ্ছামতো এটিকে ডেভলপ করতে পারে যা অন্য কোন অপারেটিং সিস্টেমে অসম্ভব।
6.RedhatEnterprise Linux-5 Operating System এর সাথে প্রয়োজনীয় প্রায় ২০০০ হাজার Software বিল্ট -ইন অবস্থায় পাওয়া যায়।
7.অপরদিকে উইন্ডোজ (আইনগত পদ্ধতিতে) শুধু একটি সি ক্মপাইলার যোগাড় ক্রতেই কয়েক হাজার টাকা খরচ করতে হয়।
8.একটি লিনাক্স সার্ভার কয়েক মাস যাবৎ একনাগাড়ে চলতে দেখা গেছে,যেখানে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম কে প্রতিনিয়ত রিবুটের মধ্যে থাকতে হয়।
9.লিনাক্স কার্নেল কে নিজের মতো সাজানো যায়।
10.অন্যান্য অপারেটিং সিষ্টেম এর তুলনায় লিনাক্স দ্রুত গতিতে কাজ করে।
11.লিনাক্সের DNS/Name Resolution Service টি খুবই শক্তিশালী। এতে হোষ্ট নেইম অনুসারে আই’পি এড্রেস সেট করা হয় বলে রাউটিং এ লিনায দক্ষতার সাথে ব্যাবহার করা যায়।
12.Linux Operating System ব্যাবহার করে একটি সাধারণ কম্পিউটার কে সুপয়ার কম্পিউটারে রূপ দেওয়া যায়।
13.তুলনা মুলক কম গতি সম্পন্ন কম্পিউটার দিয়েও লিনাক্স চালানো যায়। যেমনঃ Intel-386/486 microprocessor এর পিসি দিয়ে রাউটিং এর কাজ করা যায় আবার পেন্টিয়াম-১০০ দিয়ে মেইল সার্ভার চালানো যায়।
================লিনাক্সের সার্ভিস সমুহের তালিকা=================
*File & Print Service
*Application Service
*Internet Service
*E-mail Service
*DNS/Name Resolution Service ইত্যাদি
আমরা নিচের লিনাক্স কার্নেল ডায়াগ্রাম টি লক্ষ করিঃ
নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
লিনাক্স সিস্টেম ডিরেক্টরীঃ
এক বা একাধিক ফাইল নিয়ে লিনাক্স সিস্টেম ডিরেক্টরী গঠিত। লিনাক্স সিস্টেম ডিরেক্টরঈ মূলৎ দু-প্রকার যথা-
*RooT Directory
*Sub Directory
Root হচ্ছে Super User Directory । Root কে Rename করা যায় না একে “/” Forward Slash দ্বারা নির্দেশ করা হয় । অপরদিকে “\” opposite Slash কে সাবডিরেক্টরী বলা হয়। সাব ডিরেক্টরী ইউজার এর ইচ্ছানুযায়ী সংযোজন-বিয়োজন এবং প্রয়োজনে Rename করা যায়।
যেমন- home Directory এর প্যাথ হচ্ছে /home
আমরা নিচের লিনাক্সের ডিফল্ট ডিরেক্টরী ডায়াগ্রাম টি লক্ষ্য করিঃ
নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
এবার চলুন দেখে নিই ডিরেক্টরী গুলোর কাজঃ
* /bin: এটি হচ্ছে Normal User Directory. সিস্টেম এর executable file সংরক্ষণ করা এই ডিরেক্টরীর কাজ।
* /Sbin: এটি হচ্ছে Administative user Directory. Supper user কর্তৃক ব্যবহৃত executive file সমুহ সংরক্ষণ করা এই ডিরেক্টরির কাজ।
* /root: এটি Super User Directory ।
* /home: Home হচ্ছে বিভিন্ন ইউজার এর ইনফো ডিরেক্টরি। ইউজার কর্তৃক সকল file/documents এই ডিরেক্টরিতে সংরক্ষণ করা হয়।
* /var: এটি হচ্ছে Multimedia File Directory.
* /usr: নির্দিষ্ট user এর info Directory ।
* /etc: Server Configueration file directory.
* /tmp: Tamperally file directory
* /mnt: Cd/DVD,USB,HDD ইত্যাদি /mnt দ্বারা mount করে Access করা হয়
* /swap: এক ধরনের Partition যা দ্বারা RAM এর ধারণ ক্ষমতা দিগুন বৃদ্ধি করা যায়।
* /dev: বিভিন্ন ধরনের input/output ও storage device সমূহের ফাইল গুলো এই ডিরেক্টরিতে সংরক্ষণ করা হয়।
* /boot: Linux start হওয়ার সময় সময় প্রইয়োজনীয় কার্নেল ফাইল সমূহ ধারণ করে।
* /last+found: সিস্টেম এর কোন ডাটা ফাইল ক্রাশ হলে তা পুনরুদ্ধারের ক্ষেত্রে এই ডিরেক্টরি ব্যাবহার করা হয়।
আজ এ পর্যন্তই আগামী দিন অন্য কিছু নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হবো ইনশাল্লাহ!!!
সবাই কে আবারও আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি যে, আমাদের সাথে থেকে আমাদের অনুপ্রেরণা দিয়ে আমাদের চলার পথ এর সঙ্গী হওয়ার জন্য।
আর Mir Fahim Ahmed তো আছেই আপনাদের সাথে :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা। দোয়া করবেন যাতে সামনে আরও ভালো কিছু নিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থিত হতে পারি :) নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিষ্টেম (লিনাক্স) নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।
আর এক্সপার্ট প্যানেল এর ভাই-ব্রাদার সহ পাঠক দের বলছি আমার লেখার ভুল ত্রুটি গুলোকে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন এই আশা রেখে আজকের মতো বিদায় নিচ্ছি।
আল্লাহ হাফেজ!!!!

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

two + six =