ওয়েব ডিজাইন এর কিছু তথ্য  FavoriteLoadingবুকমার্ক

আপনি যদি সত্যি একজন ভালো ওয়েব ডিজাইনার হতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর বাহ্যিক চেহারা দেখে নিতে হবে। আপনার ওয়েবসাইট দেখে যেন সব বয়সের মানুষ পছন্দ করে সেভাবে চিন্তা করে ওয়েবপেজ তৈরি করতে হবে।

index ওয়েব ডিজাইন এর কিছু তথ্য

পেজটি লোড হতে কত সময় লাগছে, বিভিন্ন ব্রাউজার এ কেমন দেখাচ্ছে, পেজ এর কন্টেন্টগুলো কেমন হচ্ছে এবং পেজটি সম্পন্ন হবার পর কেমন দেখাচ্ছে এর সব কিছুই লক্ষ্য করতে হবে। আসুন জেনে নেই ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে কিছু আশ্চর্যজনক ও মজাদার তথ্য-

১. সব ওয়েব ব্রাউজারে ওয়েবপেজ বিভিন্ন রকম দেখা যায়:
আপনি যখন আপনার বাসায় কম্পিউটারে কোন ওয়েবপেজ গুগল-ক্রম এ দেখেন, ঠিক সেই পেজটি যখন আইফোন-এ সাফারিতে দেখবেন পেজটি অন্য রকম দেখাবে। একই ওয়েবসাইট বিভিন্ন যায়গায় ভিন্ন রকম কেন? কারন এটি নির্ভর করে পারসিং এবং রেন্ডারিং এর উপর।

ব্রাউজারগুলো কোড যেভাবে অনুবাদ করে সেভাবেই প্রদর্শন করে। মাঝে মাঝে কিছু কোড অনেক ব্রাউজার চিহ্নিত করতে পারে না, তাই সব ব্রাউজার এ একই পেজ পাওয়া যায় না। যারা

ওয়েবপেজ ডিজাইন করেন, তারা এইচটিএমএল ও সিএসএস সম্পর্কে খুব ভালো করেই জানেন। তাই সব ধরনের ডিভাইস এ যেন ওয়েবপেজটি ভালভাবে প্রদর্শিত হয়। তা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।

২. ডিজাইনের কারনেই ব্যবহারকারীরা আপনার ওয়েবপেজ এর উপর আকৃষ্ট হবে:
ইন্টারনেটে প্রতিনিয়তই বিভিন্ন ওয়েবপেজ এর ডিজাইন ও কনটেন্ট পরিবর্তন করা হচ্ছে। নেলসন নরমান গ্রুপ একটি প্রতিবেদনে বলেছেন, ব্যবহারকারীরা একটি পেজ এ যেয়ে যদি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাবলি সাথে সাথে না পান, তাহলে তারা অন্য পেজ এ খুব দ্রুত চলে যান। তাই সকল প্রয়োজনীয় তথ্য যেন খুব সহজেই পাওয়া যায় সেভাবে পেজটি তৈরি করতে হবে।

৩. দুই বছরের পুরানো পেজটি খুব বেশিই পুরাতন:
কোন পেজ ডিজাইন করলে তা অবশ্যই আপডেট করতে হবে। কারন, নতুন নতুন ফিচার এর কারনে আপনার পেজটি হয়ত অনেক পুরানো মনে হতে পারে। তাই, ওয়েবপেজটি যেন বর্তমান

সময়োপযোগী ও প্রাসঙ্গিক হয়, কোডিং এর মান যেন পেশাদারদের মত হয়। পুরানো ওয়েবপেজগুলো সব ব্রাউজার এ প্রদর্শন না ও করতে পারে। তাই, অবশ্যই পেজ কে সময়ের সাথে সাথে প্রয়োজনীয় আপডেট দিতে হবে।

৪. টেম্পলেট আপনার ওয়েবসাইট এর কার্যক্ষমতা সীমিত করতে পারে:
অনেকেই ওয়েবসাইট এ বিভিন্ন ধরনের টেম্পলেট ব্যবহার করে। যে কেউ যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন সম্পর্কে সাধারন জ্ঞান রাখেন তারা বিভিন্ন টেম্পলেট ব্যাবহার করে পেজ ডিজাইন করে। কিন্তু, টেম্পলেট এর কারনে পেজগুলো অনেক ভারী হয়ে যায়। যার ফলে অনেক সময় ধরে লোড হয়। আর কোম্পানিগুলোর বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হয়।

৫. ছবি এবং ভিডিওর নেতিবাচক ও ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে:
বিভিন্ন ওয়েবপেজ এ নানা রকম ছবি ও ভিডিও ব্যবহার করা হয়। এর ভালো ও খারাপ দুই দিকেই প্রভাব রয়েছে। ছবি ও ভিডিও বিভিন্ন পেজকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলে। কিন্তু ছবি ও ভিডিও এর সাইজ যদি বড় হয় তাহলে পেজ এর লোডিং এর সময় বৃদ্ধি পায়। তাই, অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে ছবি ও ভিডিও এর সাইজ যেন ঠিক থাকে।

নাহলে ব্যবহারকারীগণ সেই পেজ থেকে সরে যাবে। ওয়েবপেজ ডিজাইন করার সময় অবশ্যই সর্বপ্রথমে লোড এর সময় বিবেচনায় রাখতে হবে। কোন মেয়াদ উত্তীর্ণ ও অপ্রয়োজনীয় কিছু ব্যবহার করা যাবে না।

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

12 + 1 =