শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরির কিছু কৌশল

0
300

পাসওয়ার্ড, ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের নিকট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বস্তু। দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহারের কারনে অনেকেই নানা ধরণের বিড়ম্বনার শিকার হয়ে থাকেন। আবার খুব শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে গিয়ে অনেকেই পাসওয়ার্ডটিই ভুলে যান। কিন্তু তাই বলে কি থেমে থাকবে শক্তিশালী পাসওয়ার্ডের ব্যবহার ?

আজ আপনাদের সামনে তুলে ধরা হবে কিছু কৌশল। এর মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই শক্তিশালী তবে মনে রাখতে সহজ এমন পাসওয়ার্ড তৈরি করতে সমর্থ হবেন। আর এর মাধ্যমে আপনার ইন্টারনেট ব্যবহার হবে আরো নিরাপদ।

images30 শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরির কিছু কৌশল

দুর্ভেদ্য পাসওয়ার্ডের গঠন প্রক্রিয়াঃ

  • লম্বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গা কঠিনঃ পাসওয়ার্ড তৈরিতে ১২ কিংবা তাঁর থেকে বেশী ডিজিট ব্যবহার করুন।
  • যা ব্যবহার করবেন নাঃ নাম, জায়গার নাম, ডিকশনারিতে পাওয়া যায় এমন শব্দ।
  • যা ব্যবহার করবেনঃ পাসওয়ার্ডের মাঝে মাঝে ক্যাপিটাল লেটার ব্যবহার করুন, নাম্বার ব্যবহার করুন।

আপনি যদি উপরের তিনটি নিয়ম মেনে পাসওয়ার্ড তৈরি করেন, তাহলে সেটি হ্যাকারদের জন্য দুর্ভেদ্য এক দেয়াল হিসেবে কাজ করবে। বর্তমানে পাসওয়ার্ড ভাঙার বেশ কিছু সফটওয়্যার রয়েছে এবং এইসব সফটওয়্যার বিভিন্ন কিছুর সমন্বয়ে পাসওয়ার্ড হাতিয়ে নেয়। অনলাইন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ Bruce Schneier এর মতে, ” পাসওয়ার্ড ক্র্যাকার বিভিন্ন কিছু ব্যবহার করে যার মধ্যে রয়েছে : ইংরেজি শব্দ, নাম, বিভিন্ন বিদেশী শব্দ, এবং আরো অনেক কিছু যেমন- দুই ডিজিটের শব্দ, তারিখ, সিম্বল প্রভৃতি।”

কিছু কমন পাসওয়ার্ড রয়েছে যা খুব সহজেই বের করে ফেলা যায়। যেমনঃ

123456 qwerty 1234567890 macromedia
123456789 1234567 000000 azerty
password 111111 abc123 iloveyou
admin photoshop 1234 aaaaaa
12345678 123123 adobe1 654321

 

তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে, উপরের সবগুলো পাসওয়ার্ড অ্যাডোবির গ্রাহকদের যা হ্যাকাররা হাতিয়ে নিয়েছিল। আপনি যদি আপনার ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডের দুর্ভেদ্যতা যাচাই করতে চান, তাহলে অনলাইনে থাকা বেশ কিছু পাসওয়ার্ড চেকার ব্যবহার করে দেখে নিতে পারেন। তবে এগুলোর মধ্যে OnlineDomainTools বেশ কার্যকরী। এই টুলটি আপনার পাসওয়ার্ডের বিভিন্ন দিক পরীক্ষা করে দেখবে এবং সামগ্রিক একটি ফলাফল আপনার সামনে তুলে ধরবে।

 

যেমনঃ bre7E$ret98:!aZ এই পাসওয়ার্ডের জন্য প্রাপ্ত ফলাফল নিচে দেখানো হলঃ

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরির কিছু কৌশল

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড নির্বাচনের বিশেষ উপায়ঃ

আপনি চাইলে র‍্যানডম পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন। তবে এই ধরণের পাসওয়ার্ডের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল, এগুলো মনে রাখা বেশ কঠিন কাজ। আপনি যদি কোন ছন্দ কিংবা নিয়ম মেনে পাসওয়ার্ড না বানিয়ে কেবল ইচ্ছামত একটা ব্যবহার করেন, তাহলে অন্য কেউ সেটা হাতিয়ে নেওয়া দূরে থাক, আপনি নিজেই প্রয়োজনের সময় সেটি মনে করতে পারবেন না।

তাই আপনাদের সামনে বিখ্যাত একটি পদ্ধতি তুলে ধরছি যা মেনে আপনি বানাতে পারবেন কঠিন তবে মনে রাখার মত গোপন চাবি।

Bruce Schneier’s method

নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ Bruce Schneier ২০০৮ সালে এই পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছিলেন। এটি এখনো বেশ জনপ্রিয়। এই পদ্ধতির মূল কথা হলঃ একটি বাক্য নির্বাচন করুন আর এটিকে বানিয়ে ফেলুন পাসওয়ার্ড। বাক্যটি হতে পারে যেকোন কিছু। সেখানকার শব্দগুলো নিয়ে আপনার মনে রাখার মত করে একটি পাসওয়ার্ড বানিয়ে নিন। যেমনঃ

  1. WOO!TPwontSB = Woohoo! The Packers won the Super Bowl!
  2. PPupmoarT@O@tgs = Please pick up more Toasty O’s at the grocery store.
  3. 1tubuupshhh…imj = I tuck button-up shirts into my jeans.
  4. W?ow?imp::ohth3r = Where oh where is my pear? Oh, there.

মনে রাখবেন কিভাবে?

এতক্ষণ আপনাদের সামনে তুলে ধরা হল কঠিন পাসওয়ার্ড বানানোর উপায়। কিন্তু আপনি যদি কঠিন পাসওয়ার্ড বানিয়ে প্রয়োজনের সময় মনেই করতে না পারেন, তাহলে এতো কিছু করে কি লাভ ? সবসময় চেষ্টা করুন গুরুত্বপূর্ণ সার্ভিসের জন্য আলাদা আলাদা ইউনিক পাসওয়ার্ড রাখতে। অন্যান্য সাধারন সাইটের জন্য আপনি চাইলে একটি কমন পাসওয়ার্ড দিয়েই কাজ চালিয়ে নিতে পারেন।

তবে এর বাইরে রয়েছে পাসওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট টুল যা আপনার কঠিন কাজটিকে আরও সহজ করে দিবে। LastPass কিংবা 1Password এই ক্ষেত্রে বেশ বিশ্বাসযোগ্য। এই ধরণের টুল ব্যবহার করলে আপনার শুধু একটা মাস্টারপাসওয়ার্ড মনে রাখতে হবে। আর অন্যান্য কঠিন কাজগুলো করবে এই টুল নিজেই।

LEAVE A REPLY

three × 1 =