ব্যান্ডউইথ পর্যবেক্ষণ করার উপায়

0
186

আপনি যদি চান কতটুকু ব্যান্ডউইথ আপনি ব্যবহার করছেন তা পর্যবেক্ষণ করবেন তাহলে খুব সহজেই এবং ফ্রী এটি দেখা সম্ভব। আপনার ইন্টারনেট সংযোগটি যদি আনলিমিটেড না হয় তবে আপনি কতটুকু ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করলেন, কতটুকু গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন এগুলো জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একটি ফ্রি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে আপনার ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন খুব সহজেই।

ধাপ-১
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম-এর জন্য বিটমিটার ওএস অ্যাপলিকেশনটি ডাউনলোড করুন।

images19 ব্যান্ডউইথ পর্যবেক্ষণ করার উপায়

ধাপ-২
ডাউনলোড ফাইলটি আনজিপ করে ইন্সটল করুন। সফলভাবে ইন্সটল হলে নিচের মেসেজটি দেখতে পাবেন।

ধাপ-৩
এবার অ্যাপলিকেশনটি নিজে থেকেই চালু হয়ে যাবে এবং আপনার ইন্টারনেট ব্যবহার করার তথ্য সংরক্ষন করতে শুরু করবে। আপনি কতটুকু ডাটা আপলোড, ডাউনলোড করলেন এগুলো সংরক্ষন করবে। যখনই আপনি অ্যাপ্লিকেশনটি চালু করবেন আপনার ইন্টারনেট ব্যবহারের তথ্যগুল সরাসরি পেয়ে যাবেন। কোন শর্টকাট আইকন থেকে অথবা ব্রাউজারে http://localhost:2605 লিঙ্কটি ব্যবহার করে সরাসরি দেখতে পারবেন।

অ্যাপলিকেশনটির ইন্টারফেসে প্রথম ট্যাবটি দেখতে পাবেন “মনিটর”, যেখানে বর্তমানে আপনি যে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন তার প্রতি সেকেন্ডের গ্রাফিক্যাল এবং সংখ্যায় সমীকরণ বা হিসাব দেখাবে । স্টপওয়াচ ব্যবহার করার জন্য ডান দিকে নিচের ঘড়ির আইকনটি ক্লিক করুন, যা আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় নির্দিষ্ট সময়কালে কতটুকু ইন্টারনেট ব্যবহার করেছেন তা দেখাবে।

হিস্টোরি ট্যাবটির মাধ্যমে প্রতি মিনিট, ঘণ্টা, এবং দিনের সংরক্ষিত পরিসংখ্যান দেখা যাবে। আপলোড এবং ডাউনলোডের আলাদা আলাদা পরিসংখ্যান দেখা যাবে। এই পরিসংখ্যানকে সিভিএস ফাইলে রূপান্তর করা যাবে।

“সামারি” ট্যাবটি দিয়ে আপনার প্রতি মাস ভিক্তিক ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিসংখ্যান দেখা যাবে। তিনটি ভিন্ন ভিন্ন কলামে দিন, মাস, বছর এবং মোট ব্যবহারের পরিমান দেখা যাবে।

নির্দিষ্ট সময়ে কতটুকু ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করেছেন তা দেখার জন্য ক্যুয়েরী ট্যাবটি কাজে দেবে।

আলার্ট ট্যাবটি দিয়ে একটি নিয়ম বা স্থিতিমাপ করা যায়। অর্থাৎ যখন আপনার আপলোড বা ডাউনলোডের পরিমান আপনার দেয়া স্থিতি বা লিমিটে পৌঁছাবে তখন অ্যাপ্লিকেশনটি আপনাকে সতর্ক করবে। বিভিন্ন ধরনের স্থিতিমাপ দেয়া যাবে যেমন প্রতিদিনের জন্য লিমিট, মাসের জন্য এমনকি প্রতি পেজের জন্যও ব্যান্ডউইথ লিমিট করে দেয়া যাবে।

ক্যালকুলেটর ট্যাবটির মাধ্যমে কোন ডাটা আদানপ্রদানের জন্য গতি অনুযায়ী কতটুকু সময় প্রয়োজন হতে পারে তার হিসাব পাওয়া যাবে।

সর্বশেষ প্রিফারেন্স ট্যাবের মাধ্যমে ইন্টারফেসের রুপ এবং আচরন নিয়ন্ত্রন করা যাবে।

এই আধুনিক কনফিগারেশন টেকনিক ব্যবহার করে আপনার ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিসংখ্যানকে সংরক্ষন করে রাখতে পারবেন। এমনকি অন্য কম্পিউটারে ব্যবহার করা ইন্টারনেট তথ্যও দেখা যাবে।

LEAVE A REPLY

fifteen − 6 =