গুগল+ এর কিছু টিপস এবং ট্রিকস  FavoriteLoadingবুকমার্ক

মানুষের জীবনে সামাজিক যোগাযোগ সাইটগুলো আজকাল অপরিহার্য হয়ে উঠেছে। ব্যক্তিগত বা বাণিজ্যিক সকল ক্ষেত্রেই এর ব্যবহার এখন অনেক বেড়ে গিয়েছে। ফেসবুক, টুইটার দীর্ঘদিন যাবত ব্যবহৃত হচ্ছে। ফেসবুক বেশ জনপ্রিয় কিন্তু প্রাইভেসি সমস্যা, বার বার ভিউ পরিবর্তন, স্প্যাম এসব কারণে ফেসবুকের জনপ্রিয়তা বেশ খানিকটা কমে গেছে।

এরকম একটি সময়ে বেশ ভালো বিকল্প হিসেবে চলে এসেছে গুগল+। চমৎকার পরিবেশের কারণে ইতিমধ্যেই বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে সাইটটি। এটি এমন ভাবে সাজানো হয়েছে যাতে শেয়ারিং সম্ভব গোপনীয়তা রক্ষা করেই। ফলে আশা করা হচ্ছে যারা ফেসবুকের প্রাইভেসি সমস্যায় ভুগছেন তারা খুব শীঘ্রই এদিকে ঝুঁকে পড়বেন।

 

যারা গুগল-প্লাসে নতুন এবং যারা এখানে নতুন অ্যাকাউন্ট খুলতে চান সবার জন্য রইল কিছু টিপস যাতে সুন্দরভাবে তারা এই সাইটে যাত্রা শুরু করতে পারেন।

index11 গুগল+ এর কিছু টিপস এবং ট্রিকস

ই-মেইল নোটিফিকেশন অপশন:
জি-মেইল আপনার অ্যাকাউন্টের সাথে সম্পর্কযুক্ত সব নোটিফিকেশন স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার মেইলে পাঠিয়ে দেবে। এই বিষয়টি অনেকসময় বিরক্তিকর হয়। তাই আপনি শুরুতেই এই অপশনটি আন-চেক করে নিন। এজন্য আপনাকে যেতে হবে ‘গুগল অ্যাকাউন্ট অপশন’-এ। এতে আপনার গুগলের ট্র্যাফিক একটি সহনীয় মাত্রায় চলে আসবে।

প্রোফাইল ফিল্ড শেয়ারিং সেটিংসঃ
গুগল অ্যাকাউন্টে কিছু মৌলিক ক্ষেত্র আছে যা তারা সবার সাথে শেয়ার করে। সবসময় আপনি এটা নাও চাইতে পারেন। সেজন্য আপনাকে যা করতে হবে যেতে হবে ‘গুগল অ্যাকাউন্ট প্রোফাইল এন্ড প্রাইভেসি সেটিংস ’ অপশনে। সেখান থেকে ‘এডিট ভিজিবিলিটি অন প্রোফাইল’-এ ক্লিক করে আপনি আপনার শেয়ারিং নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। এভাবে আপনি ইচ্ছে মত ঠিক করতে পারবেন আপনি কোন তথ্যটি কার সাথে শেয়ার করতে চান, আর কার সাথে শেয়ার করতে চান না।

রি-শেয়ার ডিজএ্যাবলঃ
কোন পোস্ট করে ফেলার পরও ইচ্ছে করলে আপনি সেটাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। সেক্ষেত্রে পোস্ট করার পর আপনি সেটার উপরে ডান দিকে একটি তীর চিহ্ন দেখতে পাবেন, এখান থেকে আপনি পোস্ট শেয়ারিং ডিজএ্যাবল করতে পারবেন সহজেই।

শেয়ার করার সময় আপনার ‘সার্কেল’ অপশনটি ব্যবহার করুনঃ
প্রতিবার শেয়ারিং অপশন পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যেতে বিরক্ত লাগতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনি যা করতে পারেন, সেটা হল আপনি স্বয়ংক্রিয় ভাবে আপনি শুধুমাত্র সার্কেলের সাথে শেয়ার করতে পারেন। সার্কেল হল আপনার অ্যাকাউন্টের সাথে যে মানুষগুলোকে লিঙ্ক করে রেখেছেন, অনেকটা ফেসবুক ফ্রেন্ডলিস্টের মত। তাই খুব গোপনীয় কিছু না হলে আপনি আপনার সার্কেলের সবার সাথে শেয়ার করতে পারেন যে কোন কিছু।

স্পার্ক অপশন চালু করুন:
এটি একটি সুন্দর অপশন। কোন বিশেষ বা মজার কোন ঘটনা যদি শেয়ার করতে চান, সেক্ষেত্রে এই অপশন ব্যবহার করুন। এখানে আপনি মজার ঘটনা খুঁজতে পারবেন।

প্রথম পাতার সাইড মেনু তে ‘স্পার্ক’ অপশনটি পাবেন, এখানে আপনি পছন্দের যে কোন বিষয় সার্চ করতে পারবেন। পরবর্তীতে সহজে খুঁজে পাবার জন্য আপনি সার্চ ফিল্ডের নিচে ‘অ্যাড ইন্টারেস্ট’ বাটনে ক্লিক করতে পারেন।

প্রোফাইল ছবি:
আপনার সার্কেলের কারো প্রোফাইল ছবিটি দেখার জন্য ছবির উপরে ক্লিক করুন।

কিছু মৌলিক ফরম্যাটিং অপশন:
এখানে গুগল টক এবং গুগল বাজ-এর মত কিছু মৌলিক টেক্সট স্টাইল যোগ করে নিতে পারেন।

একজোড়া এস্টেরিস্ক চিহ্ন [(*text*)] ব্যবহার করে আপনি বোল্ড অক্ষর পাবেন।
একজোড়া আন্ডারস্কোর চিহ্ন [ (_text_)] ব্যবহার করে আপনি ইটালিক অক্ষর পাবেন।
একজোড়া ড্যাশ চিহ্ন [(-text-)] ব্যবহার করে আপনি টেক্সটকে স্ট্রাইকথ্রো [টেক্সটের মাঝ বরাবর লাইন ] ইফেক্ট দিতে পারবেন।

তো জানিয়ে দিলাম গুগল+ এর জন্য চমৎকার কিছু টিপস এবং ইফেক্ট। আপনার অ্যাকাউন্টে এখন ইচ্ছেমত এগুলো প্রয়োগ করুন আর সুন্দরভাবে যাত্রা শুরু করুন গুগল প্লাসের সাথে।

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four × 5 =