এক্সিকিউটিভ রিজুমীতে করা সবচে বড় ৫টি ভুল এবং তা ঠিক করার উপায়  FavoriteLoadingবুকমার্ক

তথ্য প্রযুক্তি খাতে যারা উচু পদের চাকুরী খুঁজছেন, কিংবা এখনো খুঁজতে শুরু করেননি তবে মনে মনে তৈরী হচ্ছেন, কিংবা আপনার কাছে চাকুরীর সুযোগটি এসেছে – আপনাকে নিশ্চই খুব সুন্দর একটি রিজুমী লিখতে হবে। পুরনো রিজুমীকে ঠিক করতে হবে, আপডেট করতে হবে, নতুন নতুন যোগ্যতা এবং টার্মস বসাতে হবে। একটি ঝকঝকে স্মার্ট রিজুমী কার না আশা থাকে?

আপনার রিজুমী আপনার কথা বলে। তাই একটি খুব শক্তিশালী রিজুমী আপনাকে টেনে তুলতে পারে অনেক উপরে। শত শত রিজুমীর ভিড়ে হারিয়ে যাবে না আপনার চাকরীর আবেদনপত্রটি। একটি টপ-নচ রিজুমী তৈরী করতে পারে সহস্র ব্যবধান।

download (66) এক্সিকিউটিভ রিজুমীতে করা সবচে বড় ৫টি ভুল এবং তা ঠিক করার উপায়

এটা ঠিক যে, অনেক মানুষ আছেন যাদের চাকরীর জন্য রিজুমী দরকার হয় না; রিজুমী ছাড়াই তারা অনেক দূর যেতে পারেন। কিন্তু সবার চাকরীর সুযোগ সমান হয় না। এবং একটি শক্তিশালী রিজুমী আপনাকে ভিন্ন একটি মাত্রায় ঠেলে দিতে পারে।

তাই আপনি যখন একটি রিজুমী তৈরী করতে যাবেন, মনে রাখবেন ওটা যেন সত্যি সত্যি একটি খুব ভালো রিজুমী হয়। সাধারন সাদা-মাটা চাকরীর জন্য রিজুমী আর উচু পদের জন্য রিজুমী এক রকম হবে না। উচু পদগুলোর জন্য যখন আপনি প্রস্তুত হবেন এবং রিজুমী লিখতে শুরু করবেন, সাধারনত পাঁচটি বড় ধরনের ভুল হয়ে থাকে। এখানে সেই পাঁচটি ভুল ঠিক করার উপায় লিখে দেয়া হলো।

প্রথম ভুল: আপনার রিজুমীতে কোনও ব্র্যান্ডের গন্ধ নেই।
সমাধান: এখানে ব্র্যান্ড দিয়ে বিখ্যাত কোনও প্রতিষ্ঠানে কাজ করার কথা বুঝানো হচ্ছে না। আপনি নিজেই নিজের একটি ব্র্যান্ড। আপনার নিজের গল্পটি জানার চেষ্টা করুন। খুঁজে বের করুন, ঠিক কোন গল্পটি আপনাকে নায়ক/নায়িকা তৈরী করতে পারে। এবং চিন্তা করুন, ঠিক কোন ম্যাসেজটি আপনি অন্যকে বলতে চাইছেন, এবং সেটা সঠিকভাবে বলা হয়েছে কি না। নিজেকে স্টার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার মুহুর্তটি তুলে ধরুন।

দ্বিতীয় ভুল: আপনার রিজুমীতে “এক্সিকিউটিভ সামারি” নেই।
সমাধান: রিজুমীর প্রথমেই একটি সারসংক্ষেপ (ইংরেজীতে যাকে বলে এক্সিকিউটিভ সামারি) লিখুন। সেখানে আপনার সাফল্যগুলো তুলে ধরুন,সাথে থাকতে হবে টাইম লাইন। কখন কোন কাজটি করেছেন, সেটা উল্লেখ করুন। শুধু সাদামাটাভাবে লিখবেন না, এটা করেছেন, ওটা করেছেন। ঠিক কখন (কোন বৎসরে) করেছেন, সেগুলো লিখুন। এবং একই সাথে আপনার মূল দক্ষতার কথাগুলো জানাতে ভুল করবেন না যেন।

এক্সিকিউটিভ রিজুমীতে করা সবচে বড় ৫টি ভুল এবং তা ঠিক করার উপায়

তৃতীয় ভুল: আপনার সত্যিকারের এক্সপার্ট এরিয়া এবং বিশেষত্ত্ব পরিস্কার নয়।
সমাধান: অনেকেই রিজুমীতে খুব স্পেসিফিক কিছু উল্লেখ না করে ভাসাভাসা তার কাজের বিবরণ দিয়ে থাকেন। খুব পরিস্কার করে লিখুন, কোথায় টিক কোন পদে আপনি কাজ করেছেন, এবং ওখানে আপনার কাজটি কী ছিল। আপনি কি কি দায়িত্ব পালন করেছেন, সেগুলো খুবই সরাসরি লিখুন। একটি মানুষ সর্ব বিষয়ে এক্সপার্ট হতে পারে না। কিন্তু আপনি যদি আপনার আসল এক্সপার্ট এরিয়াটা তুলে না ধরেন, তাহলে আপনি হলেন “গুড ফর নাথিং”।

চতুর্থ ভুল: আপনি গুটি কয়েক সাফল্যের কথা শুধু তালিকা করে দিয়েছন।
সমাধান: শুধু তালিকাই যথেষ্ঠ নয়। সেখানে আপনার ভূমিকা কী ছিল, আপনার সিদ্ধান্তের ফলে প্রতিষ্ঠানটি কিভাবে উপকৃত হয়েছে এবং ফলাফলগুলো লিখুন। পাশাপাশি সেই ফলাফলে পৌছুতে কোনও বাঁধার মুখোমুখি হতে হয়েছে কি না, আর হয়ে থাকলে কিভাবে সেগুলো সমাধান করেছেন – সেগুলো বলুন। উচু পদের মানুষরা সাধারণত একজন নেতা ধরনের মানুষ হন। আপনার এই সব তথ্যই বলে দেবে আপনার নেতৃত্ব দানের কথা।

পঞ্চম ভুল: আপনার রিজুমীটি সুন্দরভাবে ছাপানো নয়, পড়তে কষ্ট হয়।
সমাধান: রিজুমীটি যেন প্রিন্ট করার পর দেখতে খুবই সুন্দর লাগে; পড়তে যেন খুব সহজ হয়। লাইনগুলোর ভেতর ঠিক মতো স্পেসিং দিয়েছেন কি না, দেখুন। খেয়াল রাখুন, ফন্ট এবং তার সাইজ যেন দেখতে প্রফেশনাল মনে হয়। ফন্টের ছোট-বড় এবং সাজানো এমন করুন যেন, আপনার মূল শক্তিগুলো খুব সহজেই চোখে পড়ে।

বাংলাদেশে অনেক ক্ষেত্রেই চাকরীর জন্য যোগ্যতার চেয়ে অন্যান্য প্রভাব বেশি কাজ করে থাকে। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে তারা কি খুব বেশি সমাদৃত হন? তাদের জুনিয়ররা কি তাদেরকে ঠিক মতো শ্রদ্ধা করেন? সামনে হয়তো “তেল” মর্দন করে থাকে, কিন্তু পেছনে একটা গালি নিশ্চই দিয়ে থাকেন তারা। কিন্তু তারপরেও কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান সত্যি সত্যি ভালো যোগ্য মানুষ নিয়োগ দিতে শুরু করেছে। ছাগল দিয়ে যেমন হাল চাষ হয় না, তেমনি ভুল মানুষ দিয়ে কোনও প্রতিষ্ঠানের তথ্যপ্রযুক্তি চলতে পারে না। আর যদি সেটাই চেস্টা করা হয়, তখন সেই প্রতিষ্ঠানটি ধীরে ধীরে পিছিয়ে পড়বে।

যারা নিজের যোগ্যতার সন্মানের সাথে উপরের দিকে উঠতে চান, নেতৃত্ব দিতে চান কোনও প্রতিষ্ঠানের, তাহলে ধীরে ধীরে নিজেকে তৈরী করুন। সাফল্য এসে ধরা দিবে আপনার দরজায়।

 

এই জাতীয় আরো টিউন

আপনিও লিখুন মতামতের উত্তর

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

19 − sixteen =