ওয়াই-ফাইয়ের জায়গা দখল করতে আসছে লাই-ফাই

0
186

li-fi-vs-wifi ওয়াই-ফাইয়ের জায়গা দখল করতে আসছে লাই-ফাই

বর্তমানে ওয়াই- ফাই অনেক জনপ্রিয়। কিন্তু এই ওয়াই-ফাইয়ের জায়গা দখল করতে আসছে নতুন এক প্রযুক্তি লাই-ফাই। যা ওয়াই- ফাইয়ের চেয়ে ১০০ গুণ বেশি দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগ দেবে।

লাই-ফাই নামের এই প্রযুক্তির মাধ্যমে গিগাবাইট পার সেকেন্ড গতির ইন্টারনেট সেবা দেওয়া যাবে সহজেই। প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশেবল জানিয়েছে এ খবর।

ভেলমেনি নামে একটি তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, তারা গবেষণাগারের বাইরে লাই-ফাই প্রযুক্তি পরীক্ষা করেছে। ইউরোপের দেশ এস্তোনিয়ায় এই পরীক্ষণের ফলাফলে তারা সাফল্য পেয়েছে। লাই- ফাই প্রযুক্তি মূলত এলইডি লাইটের মাধ্যমে ডাটা আদান প্রদান করে। আর এই ডাটা আদান-প্রদান হয় খুবই অল্প সময়ে, নির্দিষ্ট করে বললে ন্যানো সেকেন্ডের পার্থক্যে। ২০১১ সালে প্রথম এই প্রযুক্তি আবিষ্কার হয়। এরপর থেকেই চলছে লাই-ফাই প্রযুক্তির নানা উন্নয়নের কাজ।

লাই- ফাই ব্যবহার করে গবেষকরা তাদের ল্যাবে ২২৮ গিগা প্রতি সেকেন্ড পর্যন্ত গতিতে ডাটা ট্রান্সফার করতে সক্ষম হয়েছে। তবে ওয়াই-ফাইয়ের মতো এটি দেয়ালের ওপারে ডাটা পাঠাতে পারে না। এর কারণ লাই- ফাই আলোর মাধ্যমে তথ্য প্রেরণ করে থাকে। তাই আবদ্ধ জায়গাতে সীমাবদ্ধ থাকবে এর সিগন্যাল।

তবে একে লাই-ফাইয়ের সীমাবদ্ধতা হিসেবে না ধরে অনেকে ভাবছেন সুবিধা হিসেবেই। কারণ, লাই-ফাইয়ের সংযোগ ওয়াই-ফাইয়ের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ। পাসওয়ার্ড চুরি করে আর কেউ সেটা ব্যবহার করতে পারবে না।

ভেলমেনি ছাড়াও আরও কিছু প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান লাই-ফাই প্রযুক্তি ক্রেতাদের হাতে তুলে দিতে কাজ করছে। ওলেডকোম ও পিওরলাইফাই এমনই দুটি প্রতিষ্ঠান।

ঘরে ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে যুগান্তকারী প্রযুক্তি হতে পারে লাই-ফাই। ভবিষ্যতে হয়তো দেখা যাবে, বাসায় ব্যবহৃত এলইডি লাইট একইসঙ্গে ঘরকে আলোকিত এবং ঘরের ভেতরে লোকাল নেটওয়ার্ক তৈরিতে অবদান রাখছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here