হাওয়াতে চলে ইলেকট্রিক সাইকেল

0
191

হাওয়ার জোরেই চলে ইলেকট্রিক সাইকেল। লাগে না কোনো পেট্রোল বা বিদ্যুৎ । সাইকেলের চালকের আসনের ঠিক পেছনেই স্ট্যান্ডের ওপরে অ্যালুমিনিয়ামের বাটি দিয়ে তৈরি চারটি পাখা আছে। বাতাসের তোড়ে ওই পাখাগুলো ঘুরতে থাকে। তা থেকেই বিদ্যুৎ তৈরি হয়। সেই বিদ্যুৎ ব্যাটারি চার্জ করে। ফলে ব্যাটারি থেকে মোটর চালু হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় শক্তি পায়। এভাবে মোটর চালিত এই ইলেকট্রিক বাইক সামনের দিকে এগিয়ে যায়।

16-620x330 হাওয়াতে চলে ইলেকট্রিক সাইকেল

এই সাইকেলটি তৈরি করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর থানার রামচন্দ্রপুর হাট এলাকার বাসিন্দা মোশারফ হোসেন। তিনি ইলেকট্রোনিক্স যন্ত্রপাতি সারাইয়ের কাজ করেন। গত দুই বছর তিনি বাতাস চালিত এই সাইকেলটি ব্যবহার করে আসছেন।

মোশারফ হোসেন জানান, অনেক দিন থেকেই তিনি ভাবছিলেন কি করে বিনা খরচে চলে এমন সাইকেল তৈরি করা যায়। যে ভাবনা থেকেই এটি তৈরি করা হয়েছে। সাইকেলটি তৈরি করতে তার খরচ হয়েছে ২৫ হাজার ৩০ হাজার টাকা। এটি ঘণ্টায় সব্বোর্চ ৫০ কিলোমিটার গতি তুলতে পারে।

মোশারফ দাবি করেন, তার সাইকেলটি তৈরি করার সময় একবার মাত্র ব্যাটারিতে চার্জ দেয়া হয়েছে। এরপর থেকে ব্যাটারিতে আর কোনো চার্জ দেয়ার প্রয়োজন হয়নি। এটি যতোই চলবে ততোই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যাটারি চার্জ হয়ে যাবে। তিনি দীর্ঘ দুই বছর ধরে সাইকেলটি চালাচ্ছেন কোনো ধরনের জ্বালানি খরচ ছাড়াই।

ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার মতোই চাবি দিয়ে সাইকেলটি চালু করতে হয়। চালানোর ধরনও একই রকমের। হাতের পিকআপে গতি কমানো ও বাড়ানো যায়।

ইতোমধ্যে মোশারফের বিনাখরচের ইলেকট্রিক বাইকটি এলাকাবাসীর নজর কেড়েছে। অনেকেই এ ধরনের সাইকেল তৈরি করানোর জন্য তার কাছে ধন্য দিচ্ছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তিনি কাউকেই এই সাইকেল তৈরি করে দেননি। তিনি জানান, এটা তার শখ। বাণিজ্যিকভাবে এটি তৈরির কোনো ইচ্ছেই তার নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ