এসইও অডিট কি, কেন এবং চেকলিস্ট গাইডলাইন

0
270
এসইও অডিট কি, কেন এবং চেকলিস্ট গাইডলাইন

Tafser Ahmed

নিজের সম্পর্কে বলার কিছু নাই। যা আছে, সবই অবহেলায় পড়ে আছে। চর্চা কর হয় না। চর্চা করার সেই আপ্রান চেস্টা !
এসইও অডিট কি, কেন এবং চেকলিস্ট গাইডলাইন

এসইও অডিট কিঃ

এসইও অডিট ব্যাপারটা বোঝানর স্বার্থে ২ টা উদাহরন দেওয়া যায়। প্রথম উদাহরণঃ সাধারণত আমরা কোন এমবিবিএস ডাক্তারের কাছে যায়,কারন আমাদের কি ধরনের রোগ হয়েছে বা তার জন্য কি করতে পারি এইসব বিভিন্ন কারনে। এবং দ্বিতীয় উদাহরণঃ একটা কার গাড়ির যদি আপনি তেল পরিবর্তন না করেন, তবে একটা সময় ওই প্রভাব গাড়ির ইঞ্জিন দুর্বল হয়ে পড়ে। তাই প্রতিনিয়ত একটা গাড়ির তেল পরিবর্তন করা হয়।

Signature--png এসইও অডিট কি, কেন এবং চেকলিস্ট গাইডলাইন

দুইটা উদাহরণ থেকে ইতিমধ্যে পরিস্কার হয়ে গেছেন যে, এসইও অডিট আসলে কি। তারপর একটু বলে রাখি, নতুন সাইট বা পুরাতন সাইট যায় থাকুক না কেন, এসইও অডিটটা গুরুত্বপূর্ণ আপনার পরবর্তী ধাপে এগুনোর জন্য। আপনার পুরনো সাইট, ভালো পারফর্ম করতেছে, আপনি অডিট করালেন না এই মনে করে যে, আমি ভালো পারফর্ম করতেছি। কিন্তু আমরা জানি যে, গুগল ২ ধরনের পেনাল্টি দিয়ে থাকি,

  1. ম্যানুয়াল পেনাল্টি
  2. এনিম্যাল পেনাল্টি ( পাণ্ডা, পেঙ্গুইন, হামিংবার্ড)

ম্যানুয়াল পেনাল্টি কখন দিবে সেটা সঠিক কেউই বলতে পারবে না। কিন্তু প্রতিটা আপডেটে অনেক সাইট পেনাল্টি খাই। কেউ কনটেন্ট এর কারনে আবার কেউ এগ্রেসিভ লিঙ্ক বিল্ডিং এর কারনে। যার সাইট নতুন সে পরবর্তী ধাপে এগুনোর জন্য অডিট করে একটা স্ট্রাটেজি নিতে পারে। এতে করে তার ইনভেস্টমেন্ট আসলে সঠিক দিকে যাচ্ছে নাকি ভুল দিকে যেতে পারে, সেটার একটা রেজাল্ট সে পূর্বেই জানতে পারবে। যদি খারাপ হয়, সেক্ষেত্রে কি করতে পারে অথবা ভালো হলে, কিভাবে এগুতে পারে। এইসব বিষয়গুলো সাধারন অডিটের মধ্যে তুলে ধরা হয়।

কেন গুরুত্বপূর্ণঃ

আমি যদি বলি, তাহলে এটার গুরুত্ব সেই লেবেলের, যে লেবেল বা স্তর থেকে একজন এমবিবিএস ডাক্তার রোগি দেখেন এবং সমাধান করেন। আর আপনার জন্য ওই গাড়ির ইঞ্জিন ঠিক রাখার মত গুরুত্বপূর্ণ। আপনার বিজনেস কে যদি অন্য লেবেলে নিতে হয়, তাহলে এসইও অডিট আপনার জন্য অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ।

  • এসইও অডিটের মাধ্যমে  কিভাবে র‍্যাঙ্কে টিকে থাকা যায় সেটা জানা যায়।
  • আপনার বর্তমান অনলাইন ব্যবসার ওয়েবসাইট এর শরীর কেমন আছে এবং তার প্রতিষেধক সম্পর্কে আরও স্বচ্ছ ধারন এবং সেই অনুযায়ী কাজ করা।
  • কিভাবে সাইট এর অথোরিটি বাড়ানো যায় একটি সঠিক প্ল্যান এর মাধ্যমে।
  • সার্চ ইঞ্জিনের জন্য সাইট এর অপটিমাইজেশনের অবস্থা জানা এবং পেজের ইস্যুসমূহ ফিক্স করার।
  • কিভাবে আরও সেল বাড়ানো, লিড বাড়ানো যায় সেই ব্যাপারে গাইড হওয়া।
  • অনলাইন থেকে আরও টার্গেটেড ট্র্যাফিক পাওয়া যায়, সে ব্যাপারে আরও ভালোভাবে জানা।
  • সার্চ ইঞ্জিনের র‍্যাঙ্কিং এর জন্য সেই অনুযায়ী কাজ করা।
  • সার্চ ইঞ্জিন আদৌ কি আপনার সাইট এর ক্রল করতে পারছে বা কোন পেজগুলো ক্রল হয় নি বা ইন্ডেক্স অবস্থান কি সেই ব্যাপারে জানা।

এই ব্যাপারগুলো যখন আপনি পরিস্কার হয়ে যাবেন, তখন বুঝতে পারবেন আপনার কি করা উচিৎ। আসলে এসইও অডিটটা একটা বিশাল সময় এর এক্সপেরিয়েন্স অর্জন থাকে। সুতরাং জিনি অডিট করছেন, অবশ্যই যাচাই- বাছাই করে নেওয়া উচিৎ যে, আদৌ তিনি আমাকে সঠিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন কি না।

অনেক নতুন ফ্রীল্যান্সাররা এখন কাজ নামিয়ে না বুঝেই শুরু করে দেন। এবং ফলাফল আসে, পেমেন্ট পাই না, সময় নষ্ট, গুড এক্সপেরিয়েন্স থেকে খারাপ এক্সপেরিয়েন্সটা বেশি হয়। কিন্ত বুদ্ধি করে যদি এসইও অডিট করিয়ে সেই প্ল্যান অনুযায়ী কাজ করত, তাহল সে যে সমস্যাগুলো ফেস করে, সব সমস্যা অতি সহজেই পাড়ি দিতে পারে।

এসইও অডিটের উল্লেখিত বিষয়সমূহঃ

  • এলগোরিদম পরিবর্তনঃ সার্চ ইঞ্জিন প্রতিনিয়ত তাদের অ্যালগোরিদম আপডেট করে থাকে। তাই এই আপডেটের সাথে আপনি কিভাবে অ্যাডজাস্ট করে নিবেন, সেটা উল্লেখ করা হয়, মেজর পার্ট হিসেবে। যাতে করে পরবর্তীতে আপনাকে কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন না হতে হয় আপডেটগুলোতে।
  • ওয়েবমাস্টার গাইডলাইনঃ প্রত্যেকটা সার্চ ইঞ্জিনের কিছু নিয়মনীতি নির্ধারণ থাকে  র‍্যাঙ্কিং এর ক্ষেত্রে। এসইও অডিটের মাধ্যমে জানা যায়, সেই সব নিয়মনীতি আপনি ভেঙ্গেছেন কি না। যদি ভেঙ্গে থাকেন, তবে তবে কি ধরনের পদক্ষেপ আপনি গ্রহন করবেন।
  • ওয়েবসাইট এররঃ এসইও অডিটের মধ্যে এই সেকশনটি অনেক বেশি জোর দেওয়া হয়। আপনার সাইট এর কোডিং ইরর, ব্রোকেন লিঙ্ক আছে কি না। কারন টেকনিক্যাল এসইও যদি সঠিকভাবে না হয়, তবে সার্চ ইঞ্জিন আপনাকে পড়তে পারবে না। সেটা তে আপনি যত ভালো কনটেন্ট বা কোয়ালিটি হলেও।
  • টাইটেল এবং মেটাঃ টাইটেল এবং মেটা শুধুমাত্র সার্চ ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে না, এটা ভিজিটর এর খেত্রেও একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এসইও অডিটে এইটাকেও তাই প্রায়োরিটি দেওয়া হয়।
  •  আউটডেট কনটেন্টঃ সময় প্রেক্ষিতে যেহেতু অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়, তাই আপনার সাইটে দেওয়া কনটেন্ট এর মধ্যেও পরিবর্তন আনতে হবে। এসইও অডিট আপনাকে সাহায্য করে ওইসব কনটেন্টগুলো রি-এডিট এবং কিভাবে সেগুলোকে আবার র‍্যাঙ্কিং এর চুড়ায় নিয়ে আসবেন।

banner এসইও অডিট কি, কেন এবং চেকলিস্ট গাইডলাইন

এসইও অডিট চেক লিস্টঃ

অনপেজ অপটিমাইজেশনঃ

✔ টাইটেল ট্যাগ অপটিমাইজেশন
✔ মেটা ডেসক্রিপশন
✔ পেজসমূহের টাইটেল এবং মেটা ডেসক্রিপশন
✔ মেটা টাইটেল এবং ডেসক্রিপশনঃ যেসব পেজসুমহের নাই সেগুলো অডিট করা
✔ কনটেন্ট এনালাইসিস
✔ কি-ওয়ার্ড ভেরিয়েশন
✔ প্রাইমারি কি-ওয়ার্ড এবং ট্যাগ অপটিমাইজেশন
✔ ইমেজ এবং ট্যাগ অপটিমাজেশন
✔ ইউআরএল অপটিমাইজ
✔ ক্লিন ইউআরএল
✔ শর্ট ইউআরএল এবং লং ইউআরএল

কনটেন্টঃ

✔ হোমপেজ কনটেন্ট অপটিমাইজ
✔ ল্যান্ডিং পেজ অপটিমাইজ
✔ প্রোপার কি-ওয়ার্ড টার্গেটিং
✔ কি-ওয়ার্ড ক্যানিবাইলেজেশন
✔ ইউজার কনটেন্ট
✔ হেড-লাইন এবং ব্লগ পোস্ট
✔ কনটেন্ট ভার্সেস অ্যাডস
✔ কনটেন্ট ফরম্যাটিং

ডুপ্লিকেট কনটেন্টঃ

✔ ইউআরএল প্যরামিটার ট্র্যাক
✔ ডুপ্লিকেট কনটেন্ট চেক
✔ সাব -ডোমেইন ডুপ্লিকেট কনটেন্ট
✔ সাইট সিকিউর ভার্সন
✔ প্রিন্ট পেজ চেক

এক্সেসিবিলিটি এবং ইন্ডেক্সিংঃ

✔ রোবট ডট টিএক্সটি
✔ জাভাস্ক্রিপ্ট, সিএসএস এবং কুকিজ
✔ ইউজার এজেন্ট গুগলবোট

সাইট আর্কিটেকচার এবং ইন্টারনাল লিঙ্কিংঃ

✔ পেজে কতগুলো লিঙ্ক
✔ ভার্টিক্যাল লিঙ্কিং স্ট্র্যাকচার
✔ হরিজেন্টাল লিঙ্কিং স্ট্র্যাকচার
✔ কনটেন্ট এর মধ্যে লিঙ্কিং
✔ ফূটারে লিঙ্কিং
✔ ইন্টারনাল এঙ্কোর টেক্সট
✔ ব্রোকেন লিঙ্ক

টেকনিক্যাল ইস্যুঃ

✔ প্রোপার ৩০১ রিডাইরেকশন
✔ খারাপ রিডাইরেকশন
✔ ল্যাভারেজ রিডাইরেক্ট চেইন
✔ জাভাস্ক্রিপ্ট এর ব্যবহার
✔ আইফ্রেম এর ব্যবহার
✔ ফ্লাস এর ব্যবহার
✔ ওয়েবমাস্টার টূল এবং ইরর চেক
✔ এক্সএমএল সাইট ম্যাপ
✔ ক্যানোনিক্যাল ভার্সন
✔ প্রোপার রিল ক্যানোনিক্যাল
✔ রিলেটিভ ইউআরএল

সাইট স্পিডঃ

✔ মেইন পেজসমূহের লোডিং টাইম
✔ কম্প্রেজন ইন-এবল
✔ ক্যচিং ইন-এবল
✔ ইমেজ অপটিমাইজ
✔ সিএসএস/জেএস/এইচটিএমএল মিনিফাই
✔ সিডিএন ব্যবহার

মোবাইলঃ

✔ মোবাইল এক্সপেরিয়েন্স রিভিউ
✔ আলাদাভাবে এনালিটিক্স এর ব্যবহার
✔ মোবাইল রিডাইরেক্টশন

ইন্টারন্যাশনালঃ

✔ ইন্টারন্যাশনাল ইউআরএল রিভিউ
✔ কান্ট্রিবেজ টার্গেট ওয়েবমাস্টার টূল সেটআপ
✔ কারেন্সি রিল্ভেন্সট কান্ট্রি টার্গেট
✔ ইউআরএল স্ট্রাকচার ন্যাটিভ

এনালিটিক্সঃ

✔ এনালিটিক্স ট্র্যাকিং কোড সমস্ত পেজগুলোতে
✔ জিএ প্রোপার্টি
✔ ইন্টারনাল সার্চ
✔ ডেমোগ্রাফি ত্র্যাকিং সেটআপ
✔ অ্যাডওয়ার্ড এবং অ্যাডসেন্স প্রোপার লিঙ্ক চেক
✔ ইন্টারনাল আইপি এড্রেস
✔ ইউটিএম ক্যাম্পেইন প্যারামিটার
✔ ইভেন্ট ট্র্যাকিং প্যারামিটার

গুরুত্বপূর্ণ কিছু টুলসঃ

 ওয়েব ডেভেলপার টূল 
 ইউজার এজেন্ট অ্যাডঅন 
 ফায়ারবাগ 
 লিঙ্ক চেকার 
 এসইও বুক টুলবার 
 মজবার 
 জিনু 
 স্ক্র্যমিং ফ্রোগ 
 টেকনিক্যাল মোবাইল প্রাকটিস 

আশা করি সকলেই ক্লিয়ার হতে পেরেছেন এসইও অডিটের ব্যাপারে। মনে রাখবেন, এসইও অডিট যে কাউকে দিয়ে করাবেন না। একবার বলেছি আবার বলছি, একজন ডাক্তার প্রাথমিক দিকে কখনই ভালো কোয়ালিটি প্রোভাইড করতে পারে ন। কিন্তু একজন একপেরিয়েন্স ডাক্তার আপনাকে দেখার পূর্বেই ধারন করে বলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। তাই খরচ হলেও উচিৎ ভালো একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া।

এত কিছু আপনাদেরকে জানালাম, নিজের একটু ব্র্যান্ডিং না করলে হয় কিভাবে? :D :v :p  আমি নিজে এসইও অডিট সার্ভিসটি প্রোভাইড  করে থাকি ২০০ ডলারে। কিন্তু এই সপ্তাহের জন্য সার্ভিস টি ব্ল্যাক -ফ্রাইডে উপলক্ষ করে ৯৫% ছাড় দেওয়া হয়েছে। অফারটি মাত্র প্রথম ২০ জনের জন্য। বিস্তারিত এখানেই পাবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

four + fourteen =