রমজান মাসে কুরআন শরীফ খতম করুন ডিজিটাল পদ্ধতিতে, আপনার সহযোগীতায় বিশ্ববিখ্যাত কয়েকটি ওয়েবসাইট ।

0
292
আসসালাসু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ ।  আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছেন ।  ভালো থাকাটাই সব সময়ের জন্য প্রত্যাশা ।   পবিত্র মাহে রমজানের হক আদায়ের জন্য পরিপূর্ণভাবে আমরা সবাই যেন সেচষ্ট থাকি এ কামনা করছি ।  এরই ধারাবাহিকতায় রমজানে কুরআন শরীফ খতম করার মাধ্যমে স্রষ্টার নৈকট্য লাভের অভাবনীয় সুযোগ রয়েছে ।
 
 রমজান সম্পর্কে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি হাদীস…

জিব্রাইল (আ:) রাসূল (স:) কে বললেন- ধ্বংস হোক সেই ব্যক্তি যে রমজান পেল অথচ নিজের গুনাহ মাফ করাতে পারলনা । রাসূল (স:) বললেন ‘আমিন’। জিব্রাইল (আ:) আবার বললেন, – ধ্বংস হোক সেই ব্যক্তি যে রাসূল (স:) এর নাম শুনেও দরুদ পরেনা। রাসূল (স:) বললেন ‘আমিন’। জিব্রাইল (আ:) আবার বললেন, – ধ্বংস হোক সেই ব্যক্তি যে পিতা-মাতাকে পেল অথচ তাদের সেবা করার মাধ্যমে জান্নাত কামাই করতে পারলনা। রাসূল (স:) বললেন ‘আমিন’।

 
 এবার চলুন রমজানের হক আদায়ের অংশ হিসেবে কুরআন খমতের একটি ডিজিটাল পদ্ধতি সম্পর্কে পর্যালোচনা করি। 
 
আমরা যারা ছোটবেলা থেকে আরবী শিক্ষার প্রতি শিক্ষিত হতে পারিনি, যারা মক্তবে গিয়ে কিঞ্চিৎ আরবী পড়ার সুযোগ পাইনি কিংবা পেলেও ভালোভাবে দেখে কুরআন শরীফ পড়তে পারিনা,  তাদের জন্য কুরআন শরীফ খতম করা নিতান্তই কষ্টকর ব্যাপার ।   তাই সারাবছর কুরআন শরীফ হাতে নেয়ার উদ্যোগ না থাকলেও এ রমজানে কুরআন শরীফ হাতে নেয়াটা অপরিহার্য ।  যতটুকু পারা যায় কুরআন শরীফ পড়লে অঢেল সওয়াবের অংশীদার হওয়া যাবে । পাশাপাশি যদি অন্য কোন ডিজিটাল পদ্ধতি প্রয়োগ করা যায় তবে একদিকে যেমন কুরআন শরীফ খতম হবে খুব সহজেই অন্যদিকে আপনি হবেন দ্বিগুণ সওয়াবের অধিকারী । 
 

এ পদ্ধতিতে কুরআন খতম দেয়ার জন্য আপনার থাকতে হবে একটি কুরআন শরীফ সেটি হার্ডকপি কিংবা সফটকপি ।  সরাসরি কুরআন শরীফ হলে ভালো ।  পাশাপাশি প্রয়োজন হবে পুরো কুরআন শরীফের অডিও তিলাওয়াতের কপি । এখন আপনি যখন অডিওটি রান করবেন তখন কুরআন শরীফের হার্ডকপি অথবা সফটকপি মিলিয়ে মিলিয়ে এগিয়ে যাবেন । প্রতিদিন ১০-২০ পৃষ্ঠা করে পড়ার চেষ্টা করবেন ।  অডিও শুনবেন আর চোখ দিয়ে দেখে হাত দিয়ে মিলাবেন এবং মনে মনে কিংবা আস্তে আস্তে পড়বেন ।   কুরআন শরীফ পড়ার চেয়ে শোনায় দ্বিগুণ সওয়াব । আপনি নিজে পড়তে না পেরে আরেকটি মাধ্যমের সহায়তায় কুরআন শরীফ শুনছেন এবং তা শুনে কুরআন শরীফ পড়ে যাচ্ছেন । শোনার কারনে আপনি হচ্ছেন দ্বিগুণ সওয়াবের অধিকারী ।  এভাবে ৩০ পারা কুরআন শরীফ শোনার পাশাপাশি আপনার পড়াও হয়ে যাবে ।  আর আপনার কুরআন শরীফ খতম হয়ে যাবে খুব সহজেই যা আপনি জীবনের এ পর্যায়ে এসে কখনো ভাবেননি । অথচ এ একটিবার কুরআন শরীফ খতম আল্লাহর দরবারে কবুল হলেই সেটাও নাজাতের জন্য যথেষ্ট হতে পারে । 

 

কুরআন শরীফ এর জন্য বিভিন্ন এপস আপনি এন্ড্রয়েড মোবাইল এর প্লে স্টোর-এ পাবেন । সেটা দেখে দেখেও মিলিয়ে পড়তে পারবেন ।   এছাড়া  অনলাইন এডিশনে অনেক সফট কপি পাবেন কুরআন শরীফের । সেটাও ডাউনলো করে নিতে পারেন ।  আর কুরআন শরীফের অডিও ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন । এটার সাইজ অনেক বেশী হতে পারে তাই বাজার থেকেও কিনে নিতে পারেন । অর্থসহ সিডি / ডিভিডি পাওয়া যায় ।  জায়েদ ইকবালের কন্ঠে ধারণ করা  বাংলা তরজুমা এবং সৌদী আরবের মক্কা শরীফের ইমাম এর কন্ঠের তিলাওয়াতের অডিও বাজার থেকে সংগ্রহ করতে পারেন । এটা আমার কাছে ভালো লেগেছে ।  

 
 

 অনলাইনে কুরআন তিলাওয়াত শোনার কয়েকটি সাইট :

 
 
 
 
 

সবাই ভালো থাকবেন । 

 
 

অনেক অনেক শুভ কামনা রইলো । 

 
 
 
 

একটি উত্তর ত্যাগ