জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলের বিকল্প স্মার্টফোন

0
276

জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলের বিকল্প হতে পারবে স্মার্টফোন অ্যাপ? অবাস্তব মনে হলেও ২০১৩ সাল থেকে এর কার্জকারিতা শুরু হওয়ার পর ব্যবহার কারিরা দারুণ উপকৃত হচ্ছেন। ক্রমেই বাড়ছে ব্যবহারকারীর সংখ্যা। বিশেষজ্ঞের মতে, পিল খাওয়ার ঝক্কি চলে যাবে অ্যাপের ব্যবহারে।

দিনের পর দিন জন্মনিয়ন্ত্রক পিল খেয়ে নানা ক্ষতির শিকার হন বহু নারী। আধুনিক প্রযুক্তির যুগে নারীদের সচেতন করতে বেশ ভালো সেবা দিতে পারছে স্মার্টফোন অ্যাপ। অনেকের প্রশ্ন, অ্যাপ কি জন্মনিয়ন্ত্রক পিলকে হটিয়ে দিতে পারে?

ব্রিটিশ গবেষক ড. এলিনা বারগ্লান্ড প্রস্তুত করেছেন ‘নেচারাল সাইকেলস’ নামের একটি অ্যাপ। ২০১৩ সালে অ্যাপটি বাজারে আসার পর এর কার্যকারিতা নিয়ে বুঝতে পারছিলেন না নারীরা। কিন্তু ব্যবহার শুরু পর দারুণ উপকৃত হচ্ছেন ব্যবহারকারীরা। ক্রমেই বাড়ছে ব্যবহারকারীর সংখ্যা। বিশেষজ্ঞের মতে, পিল খাওয়ার ঝক্কি চলে যাবে অ্যাপের ব্যবহারে।

ব্রিটিশ প্রেগনেন্সি অ্যাডভাইজরি সার্ভিস এক জরিপ চালায়। তাকে ১৬-৪৫ বছর বয়সী ১ হাজার নারীর কাছ থেকে জন্মনিয়ন্ত্রে পছন্দের পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এদের এক-চতুর্থাংশের বেশি নারী জন্মনিয়ন্ত্রণের প্রচলিত যেকোনো পদ্ধতি নিয়ে আতঙ্কিত থাকেন। একটিমাত্র কারণ হিসেবে তারা বলেন, পিল খাওয়ার পর তাদের দেহে যে কি ঘটতে পারে, তা জানেন না তারা। এক-তৃতীয়াংশ এসব পদ্ধতি ব্যবহার করতে নারাজ।

পৃথিবীতে জন্মনিয়ন্ত্রক পিল আসার পর এ বছর ৫৫তম জন্মবার্ষিকী পার হচ্ছে। জন্মনিয়ন্ত্রণে ৯৯ শতাংশ কাজ করার আশ্বাস দেয় পিল। তবে বাস্তবে ৯২ শতাংশ কাজ করে। এর নানা মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার প্রমাণ মিলেছে। নারীদের ওজন বৃদ্ধি, বমি ভাব, স্তনের আকার নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা অহরহ দেখা যায়। এমনকি হতাশা এবং যৌনতার প্রতি বিতৃষ্ণা চলে আসার মতো মানসিক সমস্যাও দেখা দেয়।

LEAVE A REPLY

sixteen − 9 =