ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বিক্রি করা কতটুকু নিরাপদ?

0
291

আচ্ছা আপনি কি আপনার স্মার্টফোন প্রফেশনালি ব্যবহার করেন নাকি সুধু গেমস, গান, মুভি ইত্যাদি এসবের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখেন। উত্তর টা যাই হোক না কেন সমস্যা অন্য যায়গাতে।

হয়তো আপনার ফোনে অনেক ব্যাক্তিগত ফাইল থাকে, যেমন ব্যাক্তিগত ছবি বা ভিডিও ইত্যাদি। কিন্তু আপনার ফোনটি যখন অন্য কারোর কাছে বিক্রি করে দিচ্ছেন তখন তো আপনি নিজের ইচ্ছায় আপনার ফোনে থাকা সব স্পর্শ কাতর জিনিষ গুলো অন্যর হাতে তুলে দিচ্ছেন। কিভাবে?

আপনি হয়তো ভাবছেন যে আপনার ফোনের সবকিছু তো আপনি ডিলিট করেই দিচ্ছেন ইভেন রিসেট করে দিচ্ছেন কিন্তু তাতে করে আপনি কতটুকু নিরাপদ? একটুও না কারন আপনার স্মার্ট ফোন প্রাথমিক পর্যায়ে ফ্ল্যাশ মেমোরি ব্যবহার করে এবং সেগুলো ডিলিট করে দিলেও পার্মানেন্ট ভাবে ডিলিট হয় না। বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে আবারো সেগুলো ফিরিয়ে আনা যায়।

এর আগে গবেষকেরা ২১ টি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন নিয়ে গবেষণা করেছেন এবং ভয়ানক কিছু তথ্য সবার সাথে শেয়ার করেছে। টেস্ট করা ফোন গুলোর মধ্যে ছিল এইচটিসি, মোটোরলা এবং স্যামসাং। দুর্ভাগ্য জনক ভাবে তারা প্রায় সবগুলো ফোনকেই আবার রিকভার করতে সক্ষম হয়েছে। যেমন, আপনার মেইলবক্স, সোশ্যাল ইনবক্স, গ্যালারি, ফোন বুক ইত্যাদি।

যদিও সবগুলো ফোন একবার করে রিসেট কর হয়েছিলো।

তাহলে এখন কথা হল আমরা কি তবে আমাদের ব্যবহৃত অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বিক্রি করা ছেড়ে দিবো? আপাতত তো সেটাই করতে হবে মনে হচ্ছে কারন গবেষকদের মতে এটায় করা উচিৎ।

অথবা খুব বেশী স্পর্শ কাতর বিষয় নিজের ফোনে না রাখায় শ্রেয়। ভালো হয় যদি আপনার সামর্থ্য থাকে তবে বিক্রি না করে আরেকটি কিনেন।

 তো এখন আপনার মতামত কি?

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × 3 =