বিদ্যুৎ ছাড়াই যেভাবে চলবে কম্পিউটার

0
311

২০১৪ সালে কাগজের টেলিস্কোপ বানিয়ে চমকে দিয়েছিলেন বিজ্ঞানী মনু প্রকাশ। এবার এমন এক কম্পিউটার তৈরি করে ফেলেছেন তিনি যা চালু রাখতে পানির ফোঁটাই যথেষ্ট।  স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মনু প্রকাশের মাথায় সব সময় অভিনব আইডিয়ার ভিড়। ভারতীয় বংশোদ্ভুত বিজ্ঞানীর সাম্প্রতিক আবিষ্কার ওয়াটার কম্পিউটার।

ছাড়াই যেভাবে চলবে কম্পিউটার বিদ্যুৎ ছাড়াই যেভাবে চলবে কম্পিউটার

কী ভাবে কাজ করে এই কম্পিউটার?
একটি চৌম্বকক্ষেত্রে খুদে জলের ফোঁটা ধরে রাখা হয়। তার পর চৌম্বকক্ষেত্রটি ঘুরিয়ে দিলে দেখা যায় পানির ফোঁটাগুলি সমদূরত্ব রক্ষা করে একই দিশায় ঘুরতে থাকে। এই ব্যবস্থা আসলে কম্পিউটার ঘড়ি তৈরির মূল কথা। যে কোনও কম্পিউটারের কার্যক্রম নির্ভর করে তার ঘড়ির উপর। আধুনিক বেশির ভাগ গ্যাডেটস এই কম্পিউটার ক্লকের উপর নির্ভরশীল। স্মার্টফোন, ডিভিআর, বিমান চলাচল, ইন্টারনেট- আধুনিক জীবনযাপনের জন্য এই সমস্ত ডিভাইস ও সিস্টেমের মসৃণ কর্ম দক্ষতা এই ঘড়ির উপর ভিত্তি করেই তৈরি। ঘড়ি বিগড়োলে বড়সড় জটিলতা দেখা দিতে পারে যা জীবনকে সাময়িক অচল করে দিতে পারে।

কম্পিউটার ঘড়ির প্রধান কাজ যন্ত্রের বিভিন্ন কাজের পর্যায়কে ছন্দবদ্ধ করা। ঘড়ি অচল হলে ছন্দপতন ঘটে যা গোটা ব্যবস্থাকে অকেজো করে দেয়। প্রকাশ জানিয়েছেন, ‘ছন্দবদ্ধতাই কম্পিউটারের মসৃণ ও নির্ভুল কাজের ভিত্তি। বিষয়টি ডিজিটাল লজিকের উপর দাঁড়িয়ে আছে।’
নেচার ফিজিক্স পত্রিকায় প্রকাশিত রচনায় এই কম্পিউটার প্রযুক্তি সম্পর্কে যাবতীয় খুঁটিনাটি বিবৃত হয়েছে। জানা গিয়েছে, আপাতত এই কম্পিউটারের আকার কিছুটা বড় হলেও ভবিষ্যতে তা অনেক গুণ ছোট করার সম্ভাবনা রয়েছে। মৌলিক বিজ্ঞানের দৃষ্টিকোণ থেকে অধ্যাপক মনু প্রকাশের এই আবিষ্কার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কম্পিউটার প্রযুক্তির ক্ষেত্রে এক নয়া দিশা দিয়েছে তাঁর এই কাজ। প্রকল্পে তাঁকে সাহায্য করেছেন অধ্যাপকের দুই ছাত্র।

একটি উত্তর ত্যাগ