ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এর এসএসসি শিক্ষাবৃত্তি ২০১৫ এর জন্য অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি জেনে নিন এখান থেকে

0
394
ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এর এসএসসি শিক্ষাবৃত্তি ২০১৫ এর জন্য অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি জেনে নিন এখান থেকে

আল মামুন মুন্না

আমি মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন (মুন্না)। আমি বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট লেখাপড়া বিডি ( www.LekhaporaBD.com ) এর একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং সঞ্চালক হিসেবে কাজ করছি। পড়াশোনা করছি যশোর সরকারী এম. এম. কলেজে ফাইনান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগে। আশা করি শিক্ষা বিষয়ক নিত্য নতুন সব তথ্য দিয়ে আপনাদের উপকারে আসতে পারব।
ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এর এসএসসি শিক্ষাবৃত্তি ২০১৫ এর জন্য অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি জেনে নিন এখান থেকে

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক তার শিক্ষা বৃত্তির কর্মসূচীর আওতায় দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত মেধাবী ও আর্থিকভাবে অসচ্ছল ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বৃত্তি প্রদান করে আসছে। সেই ধারাবাহিকতায় ১১তম পর্যায়ে ২০১৫ সালের এসএসসি/ সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবি ও শিক্ষাক্ষেত্রে আর্থিক সহায়তা প্রত্যাশী  শিক্ষার্থীদেরকে বৃত্তি প্রদান করবে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক।

বৃত্তির পরিমাণ ও সময়কালঃ

শিক্ষার স্তরঃ এইচ.এস.সি.

সময়কালঃ ২ বছর

মাসিক বৃত্তিঃ ২,৫০০ টাকা

বার্ষিক অনুদানঃ পাঠ্য উপকরণের জন্য এককালীন ২৫০০ টাকা ও পোশাক পরিচ্ছদের জন্য ১,০০০ টাকা

বৃত্তির জন্যে আবেদনের যোগ্যতাঃ

  • সিটি কর্পোরেশন এলাকার অন্তর্গত স্কুল/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্যঃ ন্যূনতম জিপিএ ৫.০০ (চতুর্থ বিষয় ব্যতিত, সকল গ্রুপের জন্য)
  • জেলা শহর এলাকার অন্তর্গত স্কুল/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্যঃ ন্যূনতম জিপিএ ৪.৮৮ (চতুর্থ বিষয় ব্যতিত, সকল গ্রুপের জন্য)
  • গ্রামীণ অনগ্রসর অঞ্চলের স্কুল/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্যঃ ন্যূনতম জিপিএ ৪.৭০ (চতুর্থ বিষয় ব্যতিত, সকল গ্রুপের জন্য)

আবেদনের নিয়ম ও শর্তাবলীঃ

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এর শিক্ষা বৃত্তি এর আবেদন এর প্রক্রিয়াতে এবার পরিবর্তন আনা হয়েছে। এবার আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ অনলাইনে করা হয়েছে। ফলে এখন সরাসরি কোন আবেদন গ্রহনযোগ্য হবে না। চলুন জেনে নেওয়া যাক অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়াঃ

www.dutchbanglabank.com/DBBLScholarship এই ঠিকানায় গিয়ে অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। আবেদন ফরম এর সাথে যা যা সংযুক্ত করতে হবে সেগুলো হলোঃ

  • আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবির স্ক্যান কপি।
  • আবেদনকারীর পিতা মাতার পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবির স্ক্যান কপি।
  • এসএসসি/সমমান পরীক্ষার নম্বর পত্র ও প্রশংসা পত্রের স্ক্যান কপি।

বৃত্তির অন্যান্য নীতিমালাঃ

  • যে সকল ছাত্র-ছাত্রী অন্য কোন উৎস থেকে বৃত্তি পাচ্ছেন, তাঁরা ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের বৃত্তির জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।
  • গ্রামীণ অনগ্রসর অঞ্চলে অবস্থিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীদের জন্যে বৃত্তির শতকরা ৯০ ভাগ নির্ধারিত থাকবে এবং মোট বৃত্তির শতকরা ৫০ ভাগ ছাত্রীদের প্রদান করা হবে।

বৃত্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তারিখঃ

আবেদন শুরুর তারিখঃ ১ জুন ২০১৫

আবেদনের শেষ তারিখঃ ০৯ জুলাই ২০১৫

ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে বাছাইকৃতদের তালিকা প্রকাশঃ ১৬ জুলাই ২০১৫

প্রাথমিকভাবে বাছাইকৃতদের সকল কাগজপত্রের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এর যে কোন শাখা অথবা মোবাইল ব্যাংকিং অফিসে উপস্থিত হওয়ার তারিখঃ ২০ জুলাই ২০১৫ – ৩০ আগস্ট ২০১৫

পুর্বে প্রকাশিত এখানে

সৌজন্যে লেখাপড়া বিডি

একটি উত্তর ত্যাগ