কিবোর্ডে কীভাবে দ্রুত টাইপ করবেন?

0
421
বর্তমানে যেকোনো ভালো চাকরি করতে গেলেই টাইপিং স্পিডটাকে ভালো করতে হয় কেননা চাকরির বিভিন্ন ক্ষেত্রেই টাইপের এই গতিশীলতার প্রয়োজন পড়ে। তাই যে যত বেশি দ্রুত টাইপ করতে পারবেন সে তত বেশি যোগ্য হয়ে উঠবেন। কিন্তু অনেকেই আছেন যাদের এই গতি খুবই কম। জেনে নিন কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে যার মাধ্যমে আপনি আপনার টাইপিং স্পিডটিকে বাড়য়ে তুলতে পারবেন।
 
প্রথম পদ্ধতি : কিবোর্ডের সাথে আঙ্গুলের সম্পর্ক গড়ে তুলুন

কিবোর্ড এবং আপনার হাতের আঙ্গুলের সাথে একটা সম্পর্ক গড়ে তুলুন। সাধারণত কিবোর্ডে আঙ্গুল রাখার টেকনিক্যালই কিছু নিয়ম রয়েছে। হাতের ১০ টা আঙ্গুল কিবোর্ডের কোথায় বসবে এবং কোন আঙ্গুল দিয়ে কোন অক্ষর টাইপ করতে হবে তার নির্দিষ্ট নীতিমালা আছে। প্রফেশনাল কোনো কাজ করতে গেলে এই নিয়ম অনুসরণ করতেই হবে। তা না হলে দ্রুত টাইপ করা কখনই সম্ভব না। তাই কিবোর্ডের বিভিন্ন বাটনের সাথে আপনার আঙ্গুলের পরিচিতি ও একটি সম্পর্ক গড়ে তুলুন দেখবেন আপনি দ্রুত টাইপ করতে পারছেন।

 
দ্বিতীয় পদ্ধতি : দুই হাতেই টাইপ করুন

অনেকেই আছেন যারা এক হাতে টাইপ করে থাকেন। কিন্তু এটা কোনো নিয়মের আওতায় পড়ে না। এর ফলে দ্রুত টাইপ করাও সম্ভব না। নতুন ব্যবহারকারীর জন্য নির্দিষ্ট নিয়ম অনুসরণ করে দুই হাতে টাইপ করা কঠিন বটে কিন্তু অনুশীলনের মাধ্যমে এই অসম্ভবকেও সম্ভব করা যেতে পারে। আপনি যদি দুই হাতে অনুশীলন করতে থাকেন তাহলে দেখবেন একটা সময় আপনার আয়ত্তে এসে গেছে এবং তখন আপনি দ্রুত টাইপ করতে পারবেন।

 
তৃতীয় পদ্ধতি : মনিটরে তাকিয়ে টাইপ করুন

এমন অনেকেও আছেন যারা মনিটরের দিকে না তাকিয়ে কিবোর্ডের দিকে তাকিয়ে টাইপ করে থাকেন। এটিও একটি ভুল পদ্ধতি। মানুষের মস্তিষ্ক অনেক বেশি তীক্ষ্ণ, আপনি যদি একবার মস্তিষ্কে ধারণ করে নিতে পারেন কিবোর্ডের সমস্ত বাটনগুলো সম্পর্কে তাহলে মনিটরের দিকে না তাকিয়ে দ্রুত টাইপ করা আপনার জন্য কোনো ব্যাপারই না। বরং আপনি যখন কিবোর্ডের দিকে তাকিয়ে টাইপ করতে থাকবেন তখন বারবারই আপনাকে মনিটরে তাকাতে হবে যে আপনি যা লিখছেন তা ঠিক হচ্ছে কি না। এতে আপনার সময় নষ্ট হবে এবং হাতের স্পিডও কমে যাবে। প্রথম দিকে ধীরে হলেও মনিটরের দিকে তাকিয়ে টাইপ করার অনুশীলন করুন দেখবেন একটা সময় আপনি তা আয়ত্তে আনতে পেরেছেন এবং এর ফলে আপনার টাইপিং স্টিডও বেড়ে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ