মিডিয়া ফায়ার বা অন্যান্য ফাইলহোস্টিং সাইটগুলোতে আনলিমিটেড আপলোডিং সুবিধা থাকার পরও যেকারণে আপনি ড্রপ-বক্স ব্যবহার করবেন

0
300

ড্রপ-বক্স ব্যবহার করার প্রধান কারণ হলঃ এর সাহায্যে কোন ঝামেলা ছাড়াই ফাইল দ্রুত আপলোড এবং শেয়ার করার সুবিধা, যা অন্য কোন-খানে সম্ভব না, ফাইল ডাউনলোডের ক্ষেত্রে মিডিয়া ফায়ারের মত বিরক্তিকর বিজ্ঞাপন ও ক্যাপচা নেই।

বেশির ভাগ ফাইল শেয়ারিং সাইটে নিদিষ্ট সময় পর অটোম্যাটিক্যালি ফাইল/ডকুমেন্ট ডিলিট হয়ে যায়। কিন্তু ড্রপ-বক্সে ফাইল ডিলিট/নষ্ট হবে না।

অন্যান্য শেয়ারিং সাইটে আপলোডের ক্ষেত্রে আপনাকে লিমিট বেঁধে দেবে, কিন্তু ডপ-বক্সে আপলোড করা ফাইলে কোন লিমিটেশন নাই।

অটো রিজিউম আপলোড। আপনি ইচ্ছা করলে ম্যানুয়ালি পজ/রিজিউম করে ফাইল আপলোড করতে পারবেন।

এছাড়া ডেক্সটপ ও মোবাইল অ্যাপ থাকার জন্য কাজটা আরও সহজ হয়ে গিয়েছে। এখন জাস্ট ড্রাগ অ্যান্ড ড্রপ সিস্টেমে ফাইল আপলোড করতে পারবেন।

ড্রপবক্সের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে- এর লিনাক্স ভার্সন, ম্যাক ভার্সন এমনকি মোবাইল ভার্সনও রয়েছে।

সব কথার এক কথা হলঃ ড্রপ-বক্স হচ্ছে একটি বিশ্বস্ত নাম যেখানে আপনার ফাইলগুলো নিরাপদে থাকবে।

যারা ড্রপ-বক্স সম্পর্কে কিছুই জানেন না। তাদের জন্য বাড়তি কয়েক লাইন লিখলামঃ

মনে করুন, আপনের কিছু প্রয়োজনীয় ফাইল আছে যেগুলো নিয়ে আপনি চিন্তিত, সিকিউরড কোনও জায়গা খুঁজছেন রাখার জন্য। কিন্তু কোনও নিরাপদ বা বিশ্বস্ত জায়গা পাচ্ছেন না।

তাহলে কি করবেন? তাহলে আপনি অনলাইন (ক্লাউড) স্টোরেজ ড্রপ বক্সে রাখতে পারবেন।

সহজ ভাষায়, ড্রপ-বক্স হল একটি ক্লাউড সার্ভিস যেখানে আপনি আপনার ফাইলগুলো আপলোড করে রাখতে পারবেন এবং খুব সহজে এই ফাইল্পগুলো আপনার গ্রাহক, বন্ধু, ফোরাম, ফেসবুক, বিভিন্ন গ্রুপ বা ব্লগে শেয়ার করতে পারবেন লিংক দিয়ে।

যাদের সাথে লিংক শেয়ার করবেন তারা সহযেই ডাউন-লোড করে নিতে পারবে। ড্রপ-বক্স ২.৫ গিগাবাইট বিনামূল্যে দেয় (১৮+ জিবি বোনাস নেয়া যায়)।

যেভাবে ড্রপ-বক্সে রেজিস্টার করবেন:

ড্রপ-বক্সে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন । রেজিস্টার করা হলে ড্রপ-বক্স এর ডেক্সটপ ক্লায়েন্টটি ডাউন-লোড করুন এবং ইন্সটল করে লগইন করুন। অনেক সময় একটু কনফিগার করতে হতে পারে, কিন্তু ব্যাপারটা খুবই সহজ তাই আর বিস্তারিত বললাম না।

আপনি যদি আমার রেফারেন্স নিয়ে ড্রপ-বক্সে রেজিস্টার করেন, তাহলে ৫০০ মেগাবাইট বোনাস পাবেন। আমার রেফারেন্স নিয়ে রেজিস্টার করতে এখানে ক্লিক করুন। যারা মনযোগ দিয়ে পড়েছেন তারা হয়ত খেয়াল করেছেন যে, ১৮+ জিবি বোনাস নেয়া যায়। কেউ কেউ আবার হয়ত কমেন্ট করার প্রিপারেশন নিয়ে নিয়েছেন যে, কিভাবে বোনাস ১৮+ জিবি নেয়া যাবে!

তাহলে শোনেনঃ আমি আপনাকে উপরে যে রেফারেন্স লিংক দিয়েছি, সেই লিংকের মাধ্যমে রেজিস্টার করলে আপনি যেমন ৫০০ মেগাবাইট বোনাস পাবেন আমিও তেমনি ৫০০ মেগাবাইট বোনাস পাবো। এভাবে আপনি রেজিস্টার করে অন্যদের সেই লিংক দিয়েও ৫০০ মেগাবাইট করে নিতে পারবেন। এভাবে আপনের রেফারেন্সে প্রতি একজনের জন্য ৫০০ মেগাবাইট পাবেন। অর্থাৎ, আপনের রেফারেন্স নিয়ে যদি ১০জন রেজিস্টার করে তাহলে আপনি ৫ জিবি বোনাস পাবেন। এভাবে ১৮+ জিবি নিতে পারবেন।

ভাবছেন কোন কিছু ড্রপ-বক্সে কেমনে আপলোড করবেন? দুঃচিন্তার কোন কারণ নেই :D মিডিয়া ফায়ার বা অন্যান্য ফাইলহোস্টিং সাইটগুলোতে আনলিমিটেড আপলোডিং সুবিধা থাকার পরও যেকারণে আপনি ড্রপ-বক্স ব্যবহার করবেন । ফেবুতে কিংবা সামুতে ফটো আপলোড করা যত সহজ, ড্রপ-বক্সে কোন ফাইল আপলোড করা তার চেয়েও সহজ।

ডেক্সটপ ক্লায়েন্টটি ডাউন-লোড করে ইন্সটল হয়ে গেলে কোন ফাইল জাস্ট ড্রাগ করে ড্রপ-বক্সের উপর ছেড়ে দিন ব্যাস আপলোড হয়ে যাবে। আপনি যদি মনে করেন ডেক্সটপ ক্লায়েন্ট ডাউনলোড করা আপনের কাছে বিরক্তিকর, তাহলে ডাইরেক্ট ড্রপবক্সে গিয়েও ফাইল বা ডকুমেন্ট আপলোড করতে পারবেন।


ড্রপবক্সে ইচ্ছামতো ফোল্ডার আপ ক্রিয়েট করা যায়।ড্রপবক্সের কিছু ব্যবহার রয়েছে। যেমন-

পাবলিক ফোল্ডার: এ ফোল্ডারে যে সব ফাইল রাখবেন তার জন্য আলাদা আলাদা লিংক কালেক্ট করতে পারবেন লিংকগুলো শেয়ার করতে পাবেন আপনার গ্রাহক বা বন্ধুদের জন্য। করতে হলে প্রথমে Public ফোল্ডারে কিছু রাখুন এবং ফাইলটির উপরে মউস রেখে ডান বাটন ক্লিক করে Dropbox

ছবির অ্যালবাম: এ ফোল্ডারে আপনি ফটো অ্যালবাম বানাতে পারবেন। Photos এর মধ্যে আপনি একটি ফোল্ডার ক্রিয়েট করুন My Album নামে।তারপর এর মধ্যে কিছু ছবি রাখুন এবং আপলোড হতে কিছু সময় দিন।এরপর My Album ফোল্ডারটির উপর রাইট ক্লিক করুন Dropbox < Public Gallery Link এ ক্লিক করুন। তারপর লিংকটি ব্রাউজারে দিয়ে প্রবেশ করুন। সুন্দর ভাবে গ্যালারিটা দেখতে পাবেন।

সাধারন ফোল্ডার: ড্রপবক্সে AVision নামে একটি ফোল্ডার আছে, এটি একটি শেয়ার্ড ফোল্ডার, পাবলিক ফোল্ডার না। এ ফোল্ডারটি কিছু ব্যক্তিদের (অবশ্যই ড্রপবক্স ব্যবহারকারী) মধ্যে শেয়ার করা আছে। যার ফলে এ ফোল্ডারে যা রাখি তা শেয়ার্ড ব্যবহারকারীদের কম্পিউটারের ড্রপবক্সে পৌছে যায়। ফোল্ডার শেয়ার করার জন্য ফোল্ডারে রাইট ক্লিক করে Dropbox < Share this folder –এ ক্লিক করুন। ব্রাউজারে নিয়ে যাবে, লগইন করুন তারপর একটি স্ক্রিনশট দেখতে পাবেন, এখানে বক্স যার সাথে শেয়ার্ করতে চান তার ই-মেইল অ্যাড্রেসটি লিখুন। Share this Folder –এ ক্লিক করুন,ব্যস আপনার বন্ধুটি ডেক্সটপেই একটি নোটিফিকেশন এবং মেইল পাবে। অ্যাকসেপ্ট করলেই ফোল্ডারটি শেয়ার হয়ে যাবে। একটি ফোল্ডার একাধিক মানুষের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। এতক্ষন কষ্ট করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ :) মিডিয়া ফায়ার বা অন্যান্য ফাইলহোস্টিং সাইটগুলোতে আনলিমিটেড আপলোডিং সুবিধা থাকার পরও যেকারণে আপনি ড্রপ-বক্স ব্যবহার করবেন

Have you any problem? Feel free to ask. Have you any feedback? please let me know. Ultimately comment below…

একটি উত্তর ত্যাগ