আর মাত্র ৮ বছর পরেই হারিয়ে যাবে ইন্টারনেট

0
372

আমারা সবাই এখন ইন্টারনেটের্ উপর নির্ভরশীল দু:সময় ঘনিয়ে আসছে। ইতি হবে আরামের জীবনের। বন্ধ হবে এক ক্লিকে মুশকিল আসানের পর্ব। বই পড়তে ছুটতে হবে লাইব্রেরিতে। সিনেমা হলে উপচে পড়বে মানুষের ঢল। ডাউনলোড শব্দটি বিদায় নেবে চিরতরে।

সোশ্যাল হওয়ার জন্যে আসতে হবে প্রকাশ্যে। বন্ধ ঘরে বসে, ল্যাপটপ কোলে সোশ্যাল হওয়ার দিন আগামীতে বন্ধ হতে চলেছে। যে হাতের মুঠোয় চলে এসেছিল গোটা পৃথিবীটাই, সে মুঠো খুলে পৃথিবীর মুক্তি হতে আর বেশি দিন নেই।

কেননা, এসবের মূলে যে, সেই ইন্টারনেট নাকি পতনের মুখে হাঁটছে। কাউন্টডাউন শুরু হয়েছে এখন থেকেই। আর মাত্র ৮ বছর। তারপরই ধসে পড়বে ইন্টারনেট ব্যবস্থা। এমনটাই আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা।

ইন্টারনেটের আসন্ন পরিণতির কথা ভেবে চিন্তায় পড়েছেন বিজ্ঞানীরা। সেই সঙ্গে ভাঁজ পড়েছে সাধারণ মানুষের কপালেও। ইন্টারনেট জীবনকে অনেক সহজ করে তুলেছে। সেই বস্তু যদি অচিরেই বিদায় নেয়, জীবনটাও কঠিন হয়ে উঠবে যে!

বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা করে বলছেন, যে সব ক্যাবল বা ফাইবার জরুরি তথ্য বহন করে পৌঁছে দেয় আমাদের ল্যাপটপে, ট্যাবলেটে বা স্মার্টফোনে তার আয়ু নাকি দম ফেলে দেবে ৮ বছরের মাথায়। অর্থাৎ ক্যাবল বা ফাইবারগুলোর ধারণ ক্ষমতা পূর্ণ হয়ে যাবে, নতুন কোনো ডাটা ধারণ করতে পারবে না। তার জন্যই পতন ঘটবে ইন্টারনেটের।

কারণ হিসেবে উঠে এসেছে ইন্টারনেটের অতিরিক্ত ব্যবহার। ওয়াইফাই জ়োন, টুজি, থ্রিজি, ফোরজি কানেকশনের রমরমা, ব্রডব্যান্ডের দাপাদাপি ও মাত্রাতিরিক্ত জিবির খরচ প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে ইন্টারনেটেরই!

একটি উত্তর ত্যাগ