ফেসবুক ব্যবহারে যে ১০টি কাজ করলেই পড়বেন বিপদে

0
344

পপতারকা রিহানা, টেইলর সুইফটের নামে ফেসবুকে ভুয়া লিঙ্ক পাওয়া যায়। অনেকেই অতি উত্সাহী হয়ে এ ধরনের লিঙ্কে ক্লিকও করে বসেন। কিন্তু এই লিংক আসলে সাইবার দুর্বৃত্তদের পাতা ফাঁদ। অ্যান্টিভাইরাস নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান বিটডিফেন্ডার সম্প্রতি এ বছর ফেসবুকে জনপ্রিয় ম্যালওয়্যার স্ক্যামগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে।

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন, আপনার ফেসবুক নিউজফিডে যদি এ ধরনের কোনো লিংক দেখেন, তাতে ক্লিক করবেন না। যাঁরা এ ধরনের লিংকে ক্লিক করেন কেবল তাঁরাই ম্যালওয়্যারের কবলে পড়েন। সম্প্রতি বিটডিফেন্ডার প্রকাশিত জনপ্রিয় ১০ ফেসবুক স্ক্যাম নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট গিজমোডো।

১. প্রোফাইল ভিজিটরে পরিসংখ্যান- ভুয়া
আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কে কতবার দেখছেন, তা জানানোর জন্য একটি লিংক হয়তো আপনার নিউজ ফিডে দেখতে পারেন। কারা কতবার আপনার প্রোফাইল দেখছেন, সে তথ্য জানানোর জন্য বিজ্ঞাপন আকারে যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় তা সম্পূর্ণ ভুয়া। ফেসবুক এ ধরনের কোনো জিনিস অনুমোদন করে না। এ ধরনের কোনো লিংক দেখলে ক্লিক করবেন না।

২. রং পরিবর্তন- অবাস্তব
আমি আমার ফেসবুক প্রোফাইল লাল রং করেছি! আপনি কী আপনার ফেসবুক প্রোফাইলের রং পরিবর্তন করতে চান। তাহলে এই লিংকে ক্লিক করুন—এ রকম ভাষায় আপনাকে একটি লিংকে ক্লিক করতে বলা হবে। ফেসবুক রং পরিবর্তনের এ ধরনের সুবিধা দেয় না। আপনার প্রিয় রঙে ফেসবুক সাজাবেন তা হবে না। ফেসবুক নীলই থাকবে। তাই এ ধরনের লিংকে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।

৩. রিহানার নগ্ন ভিডিওর লিংক- ক্লিক করলেই বিপদ
রিহানাকে নিয়ে ফেসবুকে অসংখ্য স্ক্যাম রয়েছে। নতুন ও পুরোনো অনেক স্ক্যাম লিংক আপনাকে বোকা বানাতে পারে। মনে রাখবেন ফেসবুকে রিহানার সেক্স ভিডিও নিয়ে যত লিংক পাবেন সব ভুয়া। তাই এতে ক্লিক করবেন না।

৪. বিনা মূল্যে ফেসবুকের টিশার্ট- অবাস্তব
ফেসবুক আপনাকে তাদের অনুমোদন করা টি-শার্ট কেন দেবে? আপনাকে বোকা বানিয়ে কোনো সাইবার দুর্বৃত্তরা টি-শার্ট দেওয়ার লোভ দেখিয়ে তার স্বার্থ হাসিল করতে পারে। ফেসবুকের টি-শার্ট পেলে একমাত্র জাকারবার্গ পেতে পারেন। মনে রাখবেন, ফেসবুকের কোনো অনুষ্ঠানে হাজির হলেই কেবল বিনা মূল্যে টি-শার্ট পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ফেসবুকের কোনো লিংকে ক্লিক করে এ ধরনের আশা করা ঠিক নয়।

৫. নীল ফেসবুক বাদ দেওয়ার আশা- বৃথা
ফেসবুকে একই রকমের স্ক্যাম ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে আপনাকে বোকা বানাতে পারে। ‘সে গুডবাই টু ব্লু ফেসবুক’ এমনই একটি স্ক্যাম লিংক, যা আপনাকে ফেসবুকের কালার পরিবর্তনের মতোই ফেসবুকের নীল রংকে বিদায় জানাতে বলে। যেহেতু ফেসবুকের রং পরিবর্তন করা যায় না, তাই এ ধরনের লিংকে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।

৬. বিনা মূল্যে পণ্য- আশা বাদ দিন
ফেসবুকে কিছু স্ক্যাম লিংক আছে যার শিরোনাম থাকে ‘আনসিলড প্রোডাক্টস, ফ্রি গিভওয়ে’। এসব লিংকে ক্লিক করার জন্য আপনাকে প্রলোভন দেখানো হয়। মনে রাখবেন ফেসবুকে কোনো কিছুই বিনা মূল্যের নয়।

৭. বন্ধুতালিকা থেকে আপনাকে কেউ ডিলিট করেছে কি না- ম্যালওয়ারের খপ্পরে পড়বেন
ফেসবুকের কিছু স্ক্যামে দাবি করা হয়, এই লিংকে ক্লিক করলে ব্যবহারকারীকে বন্ধু তালিকা থেকে কে সরিয়ে দিয়েছে, তা জানা যাবে। কিন্তু আসলে এ রকম লিংক ভুয়া এবং ম্যালওয়্যার ছড়ানোর কাজে ব্যবহার করা হয়। তাই এ লিংকে ক্লিক না করাই ভালো।

৮. শীর্ষ উত্ত্যক্তকারীর তালিকা-ভুয়া
একটি স্ক্যামে দাবি করা হয়, টপ টেন ফেসবুক স্টকারকে জানুন। এটা ফেসবুক স্ট্যাটস প্রোগ্রামের মতোই ভুয়া একটি প্রোগ্রাম।

৯. প্রোফাইল কে দেখেছে- ম্যালওয়ার
আপনার প্রোফাইল আজ কে কে দেখল তা জানার আগ্রহ থাকতে পারে। আপনার এই আগ্রহকে কাজে লাগাতে তত্পর সাইবার দুর্বৃত্তরা। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে আপনার প্রোফাইল কে দেখছে, সে সুবিধা রাখেনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। তাই ‘হু ভিউড ইওয়োর প্রোফাইল’ লিংকে ক্লিক করবেন না।

১০. ফেসবুকের থিম পরিবর্তন- ভাইরাস
‘আমি আমার ফেসবুকের থিম বদলে ফেলেছি। এটা চমত্কার।’ কিছু লিংকে এ আকর্ষণীয় লেখা দেখতে পাবেন। কিন্তু এতে চমকের কিছু নেই। এটাতে ক্লিক করা মানে ভাইরাসের কবলে পড়ার একটি বন্দোবস্ত করা।

একটি উত্তর ত্যাগ