স্মার্টফোনের গতি বাড়ানোর ৭টি উপায়

3
1047

বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড হচ্ছে মোবাইলের সবচেয়ে জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম । দিন দিন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে । যাইহোক, অ্যান্ড্রয়েড সম্পর্কে আপনারা মুটামুটি সবাই ভাল জানেন এবং অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যবহার করেন । তাই, অ্যান্ড্রয়েড সম্পর্কে আপানদের কাছে নতুন করে পরিচয় দেওয়ার দরকার নেই । এখন আমরা আমাদের মূল আলোচনায় আসি । আমরা কখনো চাইনা আমাদের প্রিয় স্মার্টফোন স্লো কাজ করুক । কিন্তু, অনেকেই  এ সমস্যায় ভুগছেন । এসব সমস্যার বেশ কিছু কারন রয়েছে । এসব কারন এড়িয়ে চললে এ সমস্যা থেকে সমধান পাওয়া সম্ভব । আর অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের গতি বাড়ানোর জন্য বেশ কিছু টিপস রয়েছে। চলুন দেখি কিভাবে আমরা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়াতে পারিঃ

গতি বাড়ানোর ৭টি উপায় স্মার্টফোনের গতি বাড়ানোর ৭টি উপায়

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস মুছে ফেলুন

অনেকের মোবাইল প্রচুর পরিমানে আন্ড্রয়েড অ্যাপস ইন্সটল করতে দেখা যায় । কিন্তু অনেকেই আছেন এসব অ্যাপস অযথা ইন্সটল করে রেখেছেন । অর্থাৎ, অ্যাপস ব্যবহার না করলেও অ্যাপস ইন্সটল করে রাখেন । যদি আপনার আন্ড্রয়েড ফোন এ অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস থাকে তাহলে সেগুলো মুছে ফেলুন । যদি কখনো প্রয়োজন হয় পরে না হয় এসব অ্যাপস আবার ইন্সটল করে নিবেন । কেননা, অতিরিক্ত অ্যাপস আপনার আন্ড্রয়েড ফোনের গতি কমিয়ে দিবে ।

ডিভাইসের স্টোরেজ পরিষ্কার করুন

অনেকের অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ অপ্রয়োজনীয় ফাইল দিয়ে পূর্ণ করা থাকে, যা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমাতে সাহায্য করে । এক্ষেত্রে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ থেকে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলেট করে দিন । এতে, একদিকে যেমন আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের গতি বাড়বে অন্যদিকে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ খালি হবে ।

ভাল মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা

মোবাইল ফোনের স্টোরেজ বাড়ানোর জন্য মেমোরি কার্ড ব্যবহার করি । তবে, মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা সময় মেমোরি কার্ডটি মানসম্মত কি না তা যাচাই করে দেখি না । নিম্নমানের মেমোরি ব্যবহার করার ফলে একদিকে যেমন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমে যায় অপরদিকে মেমোরি কার্ড ডেটা ট্র্যান্সফারের গতি কম থাকে । এক্ষেত্রে, আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল কম্পিউটার এ ব্যাকআপ রেখে মেমোরি কার্ড ফরম্যাট করে আবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন । অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি  ভাল রাখতে, আপনার উচিত হবে মান সম্মত মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা ।

অপ্রয়োজনীয় ওইজেট মুছে ফেলুন

অ্যান্ড্রয়েড প্রচুর ওইজেট রয়েছে । সাধারণত এসব ওইজেট অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে । এছাড়া নান কাজে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীগন এসব ওইজেট ব্যবহার করেন । অনেকের মোবাইল প্রচুর পরিমানে ওইজেট ব্যবহার করতে দেখা যায় । কিন্তু অনেকেই জানেন না যে অতিরিক্ত ওইজেট আপনার ডিভাইস এর গতি কমিয়ে দিতে পারে । তাই, আপনার আন্ড্রয়েড ফোন এ অপ্রয়োজনীয় ওইজেট থাকে তাহলে সেগুলো মুছে ফেলুন । আর যথাসম্ভব কম ওইজেট ব্যবহার করুন । এতে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি  বেড়ে যাবে ।

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর ক্যাশ মুছে ফেলা

আন্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহার করার ফলে অ্যাপস এর ক্যাশ আপনার আন্ড্রয়েড ডিভাইস স্লো করে দিতে পারে । তাই, অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়ানোর জন্য অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর ক্যাশ মুছে ফেলতে পারেন । এসব ক্যাশ মুছে ফেলার জন্য আপনি চাইলে অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন । এতে, আপনার ফোনের গতি কিছুটা বাড়বে ।

ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট

যদি আপনার অ্যান্ড্রয়েড অবস্থা অতিরিক্ত খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে আপনি ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করে নিতে পারেন । ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করার আগে অবশ্যই আপনার আন্ড্রয়েড এর সমস্ত ডাটা এর ব্যাকআপ নিয়ে রাখবেন । কেননা, ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করলে ফোনের সমস্ত ডাটা মুছে যায় । এরপর, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি সবকিছু নতুন ভাবে সেট-আপ করুন ।

স্টার্ট-আপ অ্যাপস নিয়ন্ত্রণে রাখুন

আমরা অ্যান্ড্রয়েড বেশ কিছু অ্যাপস দেখি যেসব অ্যাপস অটো স্টার্ট আপ ফিচার সমৃদ্ধ । অর্থাৎ, অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস চালু হওয়ার সাথে সাথে এসব অ্যাপস স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে যায় । যাদের র‌্যাম কম তাঁরা এ ধরনের অ্যাপস যথাসম্ভব কম ব্যবহার করার চেষ্টা করুন । কেননা, এতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস এর গতি কমে যেতে পারে । এছাড়া, আপনি চাইলে এসব অ্যাপস এর স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্টার্ট আপ বন্ধ করতে পারেন ।

এছাড়া, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের অ্যাপস সমূহ সব সময় আপডেট করার চেষ্টা করুন । যখনই আপনার ব্যবহৃত অ্যাপস এর আপডেট করার জন্য নোটিফিকেশন পাবেন, তখনই অ্যাপসটি আপডেট করার চেষ্টা করবেন । এতে, আপনি দুইটি সুবিধা পাবেন । প্রথমত, আপনার ফোনের গতি বাড়বে আর অ্যাপস আপডেট করার ফলে আপনি অ্যাপস থেকে হয়ত বাড়তি সুবিধা পাবেন এবং অ্যান্ড্রয়েড ফোন এ অনেক সময় আমরা লাইভ ওয়াল পেপার ব্যবহার করি । এসব লাইভ ওয়াল পেপার ব্যবহার করার ফলে একদিকে যেমন আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমে যায় অপরদিকে আপনার ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে যায় । আর একটি কথা, আন্ড্রয়েড ফোন দীর্ঘক্ষন চালু থাকার ফলে আপনার ডিভাইসটি কিছুটা স্লো হয়ে যেতে পারে । এক্ষেত্রে, আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি রিস্টার্ট দিতে পারেন । এতে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সকল অ্যাপস বন্ধ হয়ে যাবে । ফলে, অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের গতি কিছুটা বেড়ে যাবে ।

3 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ