সাইন্স ফিকশন মুভির মত ৫ তরবারি

0
292

চকচকে ধারালো তরবারি দেখলেই মনে পড়ে রাজ-রাজড়াদের কথা। তাঁদের এই বাহারি আর ভয়াল তরবারি কী দিয়ে তৈরি? এসব অনেক তরবারি তৈরি করা হতো গ্রহাণু বা উল্কাপিণ্ড থেকে পাওয়া লোহায়। উল্কাখণ্ডকে বিভিন্ন ধাতুর সঙ্গে মিশিয়ে এরপর অ্যাসিডে খোদাই করে এক ধরনের নকশা তৈরি করা হতো। উল্কাপিণ্ডের লোহায় থাকা নিকেলের কারণে তা বেশি রুপালি দেখায়। উল্কাখণ্ড থেকে তৈরি এসব তরবারির মধ্যে রয়েছে অ্যাটাক্সি, সম্রাট জাহাঙ্গীরের তরবারি, জেমস সোয়ার্বির তরবারি, ক্রিস ও টেরি প্র্যাটচেটের তরবারি।

তরবারি সাইন্স ফিকশন মুভির মত ৫ তরবারি

পৌরাণিক অনেক কাহিনিতে রয়েছে দুরান্দাল, কুসানাগি, লেগবাইটার, এক্সক্যালিবার, জয়িউসি নামের কিংবদন্তির তরবারির কথা। বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের কারণে এই তরবারিগুলো অসাধারণ হিসেবে খ্যাতি পেয়েছে। অবশ্য মহাকাশ থেকে পৃথিবীতে পড়া উল্কাপিণ্ড দিয়ে তৈরি তরবারিও বিশেষ করে সম্রাটদের আকর্ষণ করেছে। তাঁদের অনেকেই একে স্বর্গীয় আশীর্বাদ মনে করেছেন।
অ্যাটাক্সি তরবারি

তরবারির ঐতিহ্য প্রাচীন আমলের। উল্কাকে ব্যবহার করে তরবারি তৈরি হয়েছে পাঁচ হাজার বছর আগেও। মিসরে সবচেয়ে পুরোনো এ ধরনের তরবারি পাওয়া গেছে। আধুনিক যুগের কামারেরাও ঐতিহ্য অনুসরণ করেন। অ্যাটাক্সি নামের এক ধরনের উল্কাপিণ্ড ব্যবহার করে তাঁরা তৈরি করেন এ ধরনের তরবারি। অ্যাটাক্সিতে ১৮ শতাংশের বেশি নিকেল থাকে। এতে তরবারি বেশি রুপালি দেখায়। সম্প্রতি অপরিচিত এক ক্রেতা তরবারি নির্মাতা এসবিএল লুসিলিনবুরহাসকে দিয়ে অ্যাটাক্সি উল্কাপিণ্ড দিয়ে একটি তরবারি তৈরি করিয়ে নিয়েছেন। এই একটি তরবারি তৈরিতে তিন মাস সময় লেগেছে। অ্যাটাক্সি তরবারি তৈরির ভিডিও দেখা যাবে এই লিংক থেকে  https://www.youtube.com/watcqv=K_PS2l31EhM

সম্রাট জাহাঙ্গীরের তরবারি :
মুঘল সম্রাট জাহাঙ্গীর ভাবতেন সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদে তিনি রাজ্য পেয়েছেন। সৃষ্টিকর্তা খুশি হয়ে তাঁকে কিছু উপহার পাঠান। এ রকম একটি উপহার হচ্ছে তাঁর তরবারি। ১৬০৫ সাল থেকে ১৬২৭ সাল পর্যন্ত মুঘল সাম্রাজ্যের অধিপতি ছিলেন তিনি। তাঁর শাসনামলে ১৬২১ সালের দিকে ভারতের পাঞ্জাব অঞ্চলে একটি উল্কাপাতের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় এক কর সংগ্রহকারী উল্কাপাতের বিষয়টি লক্ষ্য করেন। আকাশ থেকে কী পড়ছে, তা খুঁজে দেখতে অধীনস্ত ব্যক্তিদের নির্দেশ দেন। এ সময় ওই স্থানে মাটি খুব তেতে ছিল। যত খোঁড়া হচ্ছিল, মাটি থেকে তত তাপ বের হচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত এক টুকরো গরম লোহার খোঁজ পান ওই কর আদায়কারী। এটি বাড়িতে নিয়ে গিয়ে একটি ব্যাগে রেখে দেন এবং পরে তা সম্রাট জাহাঙ্গীর পর্যন্ত পৌঁছায়। এই উল্কাপিণ্ড দিয়ে দুটি তরবারি ও একটি ড্যাগার (ছোরা) তৈরির নির্দেশ দেন তিনি। লোহার সঙ্গে ওই উল্কা গলিয়ে তৈরি হয় সম্রাটের বিখ্যাত তরবারি।

জেমস সোয়ার্বির তরবারি :
শিল্পী ও প্রাকৃতিক ইতিহাসবিদ হিসেবে পরিচিত জেমস সোয়ার্বি। বিভিন্ন উল্কাপিণ্ড সংগ্রহের নেশা ছিল তাঁর। ১৮১৪ সালের দিকে সোয়ার্বি রাশিয়ার সম্রাট আলেকসান্দর-১ এর জন্য ‘কেপ অব গুড হোপ’ নামের উল্কাপিণ্ড থেকে তৈরি করেন বিশেষ একটি তরবারি। এই তরবারি সম্পর্কে বলা হয়, ‘এই লোহা স্বর্গ থেকে এসেছে। ইংল্যান্ড বেড়ানোর সময় এটি পাওয়া যায়। রাশিয়ার সম্রাট মহামান্য আলেকসান্দরকে এটি উপহার হিসেবে দেওয়া হয়।’

ইন্দোনেশিয়ার ক্রিস :
সাপের মতো আঁকাবাঁকা নকশার জন্য ইন্দোনেশিয়ার ক্রিস ছোরা বিখ্যাত। কিন্তু সেখানকার কিছু তরবারির বিখ্যাত হওয়ার কারণ আবার আলাদা। ১৭৫০ সালে প্রামবানান মন্দিরের কাছে একটি উল্কাপাত হয়। এ সময় উল্কার টুকরো ছড়িয়ে পড়ে। এর একটি টুকরো জাভার সুরাকার্তায় রাখা হয়। অন্যান্য টুকরোগুলো দিয়ে তৈরি হয় তরবারি। ধারণা করা হয়, এই উল্কাপিণ্ডগুলো দিয়ে তৈরি তরবারির জাদুকরি ক্ষমতা রয়েছে। উল্কার লোহাকে অ্যাসিড দিয়ে খোদাই করে তরবারি বানানো হয়। এতে প্যামোর নামের বিশেষ নকশা করা থাকে। প্যামোর ক্রিস তরবারিগুলো উচ্চমর্যাদাসম্পন্ন বলে রাজপরিবারে এর ব্যবহার হতে দেখা যায়। তবে এই তরবারি অস্ত্র হিসেবে ব্যবহারের বদলে আনুষ্ঠানিকতার কাজেই বেশি দেখা যায়।

টেরি প্র্যাটচেটের তরবারি :
ইংল্যান্ডের নাইট উপাধি পাওয়া প্র্যাটচেট ২০১০ সালে নাইট হওয়ার পর নিজের জন্য বিশেষ একটি তরবারি তৈরির চিন্তা করেন। লোহা গলিয়ে তার মধ্যে উল্কাখণ্ড যুক্ত করে তিনি লোহার বার তৈরি করেন। এরপর সেই বার ব্যবহার করে তৈরি করেন বিশেষ তরবারি।

একটি উত্তর ত্যাগ