গাড়ির নিরাপত্তায় দেশীয় প্রযুক্তি

0
312

দেশে প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও মোটর গাড়ি চুরির খবর পাওয়া যায়। চুরি হওয়া গাড়ির হদিস পাওয়া দুস্কর। কিন্তু এমন যদি হয় চোর গাড়ি নিয়ে পালিয়ে গেলেও গাড়ির খোঁজ ঠিকই জানা যাবে। তবে নিশ্চয়ই গাড়ির পিছু পিছ চোরকে ধাওয়া করে পাকড়াও করা যেতো। ব্যক্তিগত গাড়ি নজরদারি করার জন্য অনেকে আগেই প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা হয়েছে। এটি হলো গ্লোবাল পজেশনিং সিস্টেম (জিপিএস) ট্রেকিং। ১০তম ঢাকা অটোমোবাইল প্রদর্শনীতে গাড়ির  নিরাপত্তা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

নিরাপত্তায় দেশীয় প্রযুক্তি গাড়ির নিরাপত্তায় দেশীয় প্রযুক্তি

এসব প্রতিষ্ঠান গাড়ির নিরাপত্তার জন্য জিপিএস ট্রেকিং সিস্টেম বিক্রি করছে। এই প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে গাড়ি চুরি রোধ করা সম্ভব। অন্যদিকে চুরি হওয়া গাড়ি খুঁজে পেতেও সাহায্য করবে জিপিএস।

অটোমোবাইল প্রদর্শনীতে গাড়িকে সার্বক্ষনিক নিরাপত্তা দিতে ট্রেকিং সার্ভিস নিয়ে এসেছে ‘প্রহরী’ নামের একটি  দেশীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের ট্রেকিং সার্ভিস কিনে নিয়ে গাড়িতে ব্যবহার করলে গাড়ি চুরি রোধের পাশাপাশি গাড়ির তেলের পরিমান, গাড়ির অবস্থান, গতিবিধি জানা যাবে।

এই প্রযুক্তি সাহায্যে গাড়ির শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা চালু আছে কি না সেটাও জানা যাবে। এছাড়া, গাড়ির ব্যাটারি চুরি হলে কিংবা খুলে ফেললে গাড়ির মালিক সঙ্গে সঙ্গে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানতে পারবেন। গাড়ির খরচের যাবতীয় তথ্য মিলবে প্রহরী সফটওয়্যারের মাধ্যমে।

‘স্মার্ট ট্রেকার’ নামে অন্য একটি প্রতিষ্ঠান প্রদর্শনীতে জিপিএস ট্রেকিং নিয়ে এসেছে। এই ট্রেকিং সেবায় রয়েছে গাড়ির দূরত্ব প্রতিবেদন, গতির প্রতিবেদন এবং লো ব্যাটারি নোটিফিকেশন। এসব তথ্য গাড়ির মালিক মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই পাবেন।

‘স্মার্ট ট্রেকার’ ট্রেকিং সিস্টেমের দাম ৮ হাজার টাকা। মাসে রক্ষণাবেক্ষণের খরচ ৫০০টাকা। অটোমোবাইল প্রদর্শনী উপলক্ষ্যে শতকরা ১০ ভাগ ছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

একটি উত্তর ত্যাগ