যে সকল কারনে সস্তায় পেনড্রাইভ কেনা উচিত নয়

0
581

তথ্য আদানপ্রদান বা ডেটা ট্রান্সফারের জন্য পেন ড্রাইভ আমরা অনেকেই ব্যবহার করি। আকৃতিতে সব পেনড্রাইভই ছোট হলেও পার্থক্য থাকে এর স্টোরেজ ক্ষমতায়। বর্তমানে পেনড্রাইভ খুব সহজলভ্য এবং সস্তা। অনেক সময় দেখা যায় ৩২ জিবির পেনড্রাইভের দাম মাত্র ৫০০ টাকারও কম। দোকান থেকে ফুটপাতে আরও সস্তায় মেলে এগুলি। কিন্তু সাবধান। সস্তার পেনড্রাইভ কেনার ফল হতে পারে মারাত্মক।

সস্তার পেনড্রাইভ একটি সিঙ্গল চিপ ব্যবহার করে তৈরি হয়, যা একটি ফার্মওয়্যার পরিচালিত কমবাইন্ড চিপ। কম্পিউটার বা ল্যাপটপে অ্যাটাচ করলে এটি আপনাকে আপনাকে বেশি স্টোরেজ দেখালেও আদতে ততটা জায়গা এতে থাকে না। সত্যিটা তখন বোঝা যায়, যখন কোনও ডেটা আপনি কপি করতে যাবেন। যে পরিমাণ স্টোরেজ থাকার কথা, ততটা ডেটা কপি হয়না সস্তার পেনড্রাইভে।

সকল কারনে সস্তায় পেনড্রাইভ কেনা উচিত নয় যে সকল কারনে সস্তায় পেনড্রাইভ কেনা উচিত নয়

দ্বিতীয়ত, বাজার চলতি কিছু পেনড্রাইভ ডেস্কটপ বা ল্যাপটপে লাগালে তা পুড়ে যায়। কারণ পেনড্রাইভ একটি শক্তিশালী সার্কিট রুম যেখানে ভোল্টেজ দ্বিগুন হয় এবং কিছু ক্যাপাসিটর রয়েছে। পেনড্রাইভের ৫ ভোল্ট ডিসি পাওয়ার সাপ্লাই পিসি’র ইউএসবি পোর্ট দিয়ে ইন্টারনাল সার্কিটের ভোল্টেজ দ্বিগুন করে ফেলে ১১০ ভোল্ট পর্যন্ত। এই ভোল্টেজ ক্যাপাসিটরের মধ্যে সংরক্ষিত থাকে এবং অনেক সময় পর্যন্ত এই ভোল্টেজ ক্যাপাসিটর ধরে রাখতে পারে। তাই এর পর থেকে সস্তার পেনড্রাইভ কেনার আপনাকে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ