বাজারে কমদামের ৬টি ভালো স্মার্টফোন

0
506

ওয়াল্টন প্রিমো এফ৩
দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়াল্টনের বেশিরভাগ ফোনের দামই সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য মাঝারি পর্যায়ের প্রিমো এফ৩। ফোনটিতে রয়েছে ৪.৫ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে। ৫ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরার সাথে ফ্ল্যাশ ও ভিডিও চ্যাটের জন্য ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। ডুয়াল সিম সুবিধার পাশাপাশি থ্রিজি রয়েছে। আরো রয়েছে ডুয়াল কোর প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট রম (৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে)। এতে অ্যান্ড্রয়েড জেলি বিন ৪.২.২. ব্যবহার করা হয়েছে। কম বাজেটে যারা বেশ ভালো কনফিগারেশনের ফোন চান, তারা এই ফোনটি ব্যবহার করতে পারেন। দাম পড়বে ৮ হাজার ৪৯০ টাকা। এ ছাড়া ওয়ালটনের এফ৪ মডেলের আরেকটি স্মার্টফোন রয়েছে। ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। জেলিবিন, ডিসপ্লে ৪ ইঞ্চি। এর মূল্য ৭ হাজার ১৯০ টাকা।

সিম্ফোনি এক্সপ্লোরার ডাব্লিউ৬৮
অল্প দামে আকর্ষণীয় সুবিধাসম্পন্ন ফোন বাজারে এনে কম সময়ে প্রচুর জনপ্রিয়তা পেয়েছে সিম্ফনি। তাদের এক্সপ্লোরার ডব্লিউ৬৮ ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৪ ইঞ্চি টিএফটি ডিসপ্লে। মূল ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল। ক্যামেরার সঙ্গে এলইডি ফ্ল্যাশ রয়েছে এবং প্যানারোমা, নাইটভিশন ইত্যাদি মোডে ছবি তোলা যাবে, উচ্চমানের ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। ফোনের ভেতরে রয়েছে মিডিয়াটেক চিপসেট ও ১.২ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর প্রসেসর, ৫১২ মেগাবাইট র‌্যাম। ফোন মেমোরি ৪ গিগাবাইটের হলেও মেমোরি কার্ডের মাধ্যমে চালানো যাবে। অ্যান্ড্রয়েড জেলি বিনের পুরো মজা পাওয়া যাবে এখান থেকে, উপভোগ করা যাবে একটি পূর্ণ স্মার্টফোনের সব সুবিধা। এটি এখন পাওয়া যাচ্ছে ৬ হাজার ৪৯০ টাকায়।

মাইক্রোম্যাক্স ক্যানভাস ২ এ১১০
ভারতীয় কম্পানি মাইক্রোম্যাক্সের ক্যানভাস সিরিজের কমদামে সেরা ফোন ক্যানভাস ২। এর অনন্য বৈশিষ্ট্য ৫ ইঞ্চির বর্ণিল ডিসপ্লে। বড় স্ক্রিনের ফলে যেকোনো ভিডিও কিংবা অ্যাপ থেকে ভিন্ন স্বাদ পাওয়া যাবে। এর প্রধান ক্যামেরাটি ডুয়াল ফ্ল্যাশ সমৃদ্ধ ও বেশ শক্তিশালী- ৮ মেগাপিক্সেল। সেকেন্ডারি একটি ক্যামেরা রয়েছে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেক চিপসেট, ডুয়াল কোর ১ গিগাহার্জ কর্টেক্স প্রসেসর ও পাওয়ারভিআর গ্রাফিক্স চিপসেট। তাই অ্যান্ড্রয়েড মার্কেটের অনেক ভারী ভারী অ্যাপও চালাতে কোনো সমস্যা হবে না। ডুয়াল সিম সুবিধা রয়েছে, ২০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার-আওয়ারের ব্যাটারি দিয়ে টানা পাঁচ ঘণ্টা কথা বলা যাবে। এর ডিফল্ট অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৪.০.৪, যা জেলি বিনে আপগ্রেড করা যাবে। ফোনটির বাজার মূল্য ১১ হাজার ৫০০ টাকা

হুয়াই অ্যাসেন্ড ওয়াই৩০০
কমদামে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ফোন দিয়ে বিশ্ববাজারে অন্যান্য ব্র্যান্ড্র সঙ্গে ভালোই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে চীনের হুয়াই। তাদের অ্যাসেন্ড সিরিজের ওয়াই৩০০ মডেলটি অল্প দামের অন্যতম সেরা ফোন বলা যেতে পারে। অ্যান্ড্রয়েড জেলি বিন চালিত এই ডিভাইসের ভেতর রয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট, ডুয়াল কোর প্রসেসর ও ৫১২ মেগাবাইট র‌্যাম। ৪ গিগাবাইটের ইন্টারনাল মেমোরি বর্ধনযোগ্য। ৪ ইঞ্চির আইপিএস ডিসপ্লেতে স্ক্র্যাচ প্রতিরোধক প্রলেপ রয়েছে। এর মূল ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল (ফ্ল্যাশ আছে) ও সেকেন্ডারি ক্যামেরাটি ভিজিএ। ওয়াইফাই হটস্পট, থ্রিজিসহ সব ধরনের প্রয়োজনীয় কানেক্টিভিটি অপশন রয়েছে। ফোনের স্ট্যান্ডবাই টাইম ৩২০ ঘণ্টা। এটি পাওয়া যাচ্ছে ১০ হাজারের মধ্যে।

লাভা এক্স ৪০০
ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেল,  ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।  জেলিবিন ডুয়েল কোর প্রসেসর। রম ৪ জিবি। এক্সটারনাল মেমোরি ৩২ গিগাবাইট। এই স্মার্টফোনটির দাম পড়বে মাত্র ৭ হাজার ১০০ টাকা। র‌্যাম  ৫১২। পাওয়া যাবে- সেলটেল, ল্যান্ডভিউ শপিং সেন্টার, দোকান ২৮। গুলশান-২, ঢাকা।

ওকাপিয়া ম্যাজিক
ডিসপ্লে ৫ ইঞ্চি। সিপিউ ডুয়েল কোর ১.০ গিগাহার্টজ। ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল,  ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ব্যাটারি ১৮৫০ এমএএইচ। র‌্যাম ৫১২, রম ৪ গিগাবাইট। থ্রিজি ওয়াইফাই, ব্লুটুথ। সাদা, কালো ও হলুদ এই তিন রঙে পাওয়া যাচ্ছে। দাম পড়বে মাত্র ৬ হাজার ৩৯০ টাকা।

একটি উত্তর ত্যাগ