প্রতি তিনটি জনপ্রিয় সাইটের একটি সাইবার ঝুঁকিতে

0
294

সাইবার হামলার ঘটনা গত কয়েক বছরে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। ম্যালওয়্যার ছড়ানোর মাধ্যমে সাইটের নিয়ন্ত্রণ নেয়াসহ গ্রাহকের বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে সাইবার অপরাধীরা। এ হামলায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কতটা ব্যাপক, তা-ই সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে মেনলো। প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রতি তিনটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের একটি এরই মধ্যে সাইবার হামলার শিকার হয়েছে অথবা হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে। আর এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার প্রবণতার অভাবে ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে।

তিনটি জনপ্রিয় সাইটের একটি সাইবার ঝুঁকিতেঃ প্রতি তিনটি জনপ্রিয় সাইটের একটি সাইবার ঝুঁকিতে

কয়েক বছরের মধ্যে ২০১৪ সালে সাইবার হামলার ঘটনা বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। এ সময়ে বিশ্বের বহু প্রতিষ্ঠান এ হামলার শিকার হয়। এতে একদিকে যেমন আর্থিক ক্ষতি বেড়েছে, অন্যদিকে সুনামহানির ঘটনা তো রয়েছেই। অর্থের পাশাপাশি তথ্য আত্মসাতের ঘটনাও গত বছর উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। এদিকে বিভিন্ন রাষ্ট্রও যুদ্ধক্ষেত্র হিসেবে সাইবার দুনিয়াকে বেছে নিয়েছে। ফলে সাইবার হামলার পরিসর যে কোনো সময়ের চেয়ে বেড়েছে। সাইবার হামলার বিষয়ে সাধারণ ধারণা হচ্ছে, অজনপ্রিয় বা নতুন অনেক ওয়েবসাইট ম্যালওয়্যারে আক্রান্ত। এ কারণে অনেক সাইবার বিশেষজ্ঞ নতুন কোনো ওয়েবসাইটে প্রবেশের আগে তার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু জনপ্রিয় সাইটগুলোও যে সাইবার হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে, সে সম্পর্কে এই প্রথম কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ হলো। মেনলোর তথ্যমতে, প্রতি তিনটি জনপ্রিয় সাইটের একটি সাইবার হামলার শিকার হয়েছে বা এ হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে।

সিবিএস নিউজে প্রকাশিত এ প্রতিবেদনে জানানো হয়, জনপ্রিয় ওয়েবসাইটগুলোয় ঝুঁকিপূর্ণ অনেক সফটওয়্যার ব্যবহার করা হচ্ছে, যা হামলার ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। তবে কোন কোন ওয়েবসাইট এ ধরনের ঝুঁকিতে রয়েছে, তা প্রকাশ করা হয়নি। প্রতিষ্ঠানটি ইন্টারনেটে বহুল ব্যবহূত ১০ লাখ ডোমেনের ওপর জরিপ চালিয়ে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে, পর্নোগ্রাফি-সংক্রান্ত সাইটগুলো থেকে অধিক হারে ম্যালওয়্যার ছড়ানো হচ্ছে। এ কারণে বেশকিছু প্রতিবেদনে এ ধরনের সাইট ব্যবহারে সাবধানতা এমনকি ব্যবহার না করারও পরামর্শ দিয়েছেন অনেকে। কিন্তু এই প্রথম জানা গেল, পর্নোগ্রাফি ছাড়া অন্য ধরনের ওয়েবসাইটেও ম্যালওয়্যার ছড়ানোর হার কম নয়। আর এ সাইটগুলো উল্লেখযোগ্য মাত্রায় সাইবার ঝুঁকিতে রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে পরিবহন, স্বাস্থ্য, ওষুধ, প্রযুক্তি ও ব্যবসা-সংক্রান্ত ওয়েবসাইট। এ ক্যাটাগরির অনেক ওয়েবসাইট গ্রাহককে সাইবার হামলার ঝুঁকিতে ফেলছে।

শিক্ষা-সংক্রান্ত বা সরকারি সাইটগুলোকে সাধারণত নিরাপদ বলেই বিবেচনা করা হয়। কিন্তু প্রতিবেদনে জানানো হয়, এ সাইটগুলোও সাইবার হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে। এ ধরনের প্রতি চারটি সাইটের একটি এ ঝুঁকিতে রয়েছে। ফলে সাইটগুলোর ব্যবহার গ্রাহকদেরও সাইবার হামলার ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। মেনলোর জানানো তথ্যমতে, ম্যালওয়্যারে আক্রান্ত হওয়ার অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ইন্টারনেট ব্রাউজিং। ৯৯ শতাংশ ক্ষেত্রেই ইন্টারনেট ব্রাউজিং থেকে গ্রাহক ডিভাইস ম্যালওয়্যারে আক্রান্ত হচ্ছে।

ম্যালওয়্যার ছড়াচ্ছে এমন কিছু সাইটের বিপরীতে বিশেষজ্ঞরা প্রায় ১৭ লাখ ৫০ হাজার ইউআরএল মিলিয়ে দেখেছেন। এতে তারা বেশকিছু নিরাপত্তা ত্রুটি পেয়েছেন। পরবর্তীতে এ নিরাপত্তা ত্রুটি সারাইয়ের জন্য তাদের বলা হয়। কিন্তু এদের মধ্যে এখনো ২১ শতাংশ ওয়েবসাইট নিরাপত্তা নিশ্চিতে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। এ ধরনের প্রবণতা গ্রাহকদের ঝুঁকিতে ফেলছে। সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে, গ্রাহক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সাইটগুলোর সুনাম ধরে রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার এখনই সময়।

একটি উত্তর ত্যাগ