সন্ত্রাসীদের অস্ত্রে পরিণত টুইটার

0
254

সেলিব্রিটি এবং তার অনুসারীদের কাছে এতদিন টুইটারের জনপ্রিয়তা ছিলো। কিন্ত সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ার এই সাইটটি সন্ত্রাসীদের কাছেও জনপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। তারা এই সাইটকে তাদের আরেকটি নতুন অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে একটুও দ্বিধাবোধ করছে না।

উদাহরণ হিসেবে ‘সানা’এ প্রভিন্স’ নামের সন্ত্রাসী সংগঠনের কথাই বলা যায়। এধরনের একটি সংগঠনের নাম অনেকেরই জানা ছিলো না। কিন্ত টুইটারের মতো জনপ্রিয় সাইটে তাদের ব্যাপক উপস্থিতির কারণে অজ্ঞাতনামা একটি গোষ্ঠী ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের মতো নামকরা পত্রিকার প্রথম পাতার খবরে আসতে সক্ষম হয়েছে।

অস্ত্রে পরিণত টুইটার সন্ত্রাসীদের অস্ত্রে পরিণত টুইটার

দলটি নিজেদের ইসলামিক স্টেটের একটি শাখা বলে দাবি করে। নিউইয়র্ক টাইমসের একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, গ্রুপটি প্রতিদিন ৯০ হাজার টুইট পোস্ট করে। অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় এদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

গত শুক্রবার ইয়েমেনের সানা এবং সাদা প্রদেশের হুতি মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় গ্রুপটির সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে জানা গেছে। অনলাইনে সানা’এ প্রভিন্স এই হামলার দায় স্বীকার করে এবং শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ জানাতে তাদের ৫ জন আত্মঘাতী হামলাকারীর ছবি পোস্ট করে।

গ্রুপটি ইসলামিক স্টেটের মতো সুন্নী ইসলামে বিশ্বাসী। শিয়াপন্থী হুতিদের প্রতি তাদের রয়েছে ব্যাপক বিদ্বেষ। এই হুতিরা আবার ইয়েমেনের সুন্নী প্রেসিডেন্ট আবেদ রাব্বো মনসুর হাদিকে ক্ষমতা থেকে উচ্ছেদ করেছে। সানা’এ প্রভিন্স, ইসলামিক স্টেট ছাড়াও আল কায়েদা ইন দ্য অ্যারাবিয়ান পেনিনসুলার (একিউএপি) মতো সন্ত্রাসী সংগঠনগুলির অনলাইনে সরব উপস্থিতি রয়েছে। প্রতিটি গ্রুপই টুইটার ব্যবহার করে থাকে।

টুইটারের মাধ্যমে পাঠানো একটি বিবৃতিতে আইএস অন্যান্য কট্টরপন্থী সুন্নী মুসলিম গ্রুপকে তাদের প্রতি সমর্থন জানানোর আহ্বান জানায়।

একিউএপি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে বিভিন্ন হামলার দায় স্বীকার করে এবং শহীদ হবার জন্য তরুণদের উদ্বুদ্ধ করে। সুতরাং দেখা যাচ্ছে, সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো বিশ্বজুড়ে মুসলিমদের সমর্থন আদায়ের জন্য অনলাইনে কথার যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। কার্যত আইএস এবং তাদের স্বঘোষিত শাখা সংগঠনগুলি সোশ্যাল মিডিয়াকে তাদের নতুন অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে।

এসব সংগঠনগুলি যাদের শত্রু মনে করছে, তাদের হুমকি দিচ্ছে টুইটারের মাধ্যমে। ফেব্রুয়ারিতে আইএস মিলিটারি ডটকম স্পাউসব্লগ,স্পাউসবাজ এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদককে সরাসরি হুমকি দেয়।

এদিকে সিএনএন এর খবর অনুযায়ী, গত সপ্তাহের শেষদিকে ইসলামিক স্টেট পরিচয় দিয়ে একটি গ্রুপ ডিভিশনের(বৃহৎ সামরিক ইউনিট) সাইট হ্যাক করে। তারা টুইটারে ১শত মার্কিন সৈন্যের নাম, ছবি এবং ঠিকানা পোস্ট করে গ্রুপটির আমেরিকার ভাইদের প্রতি সৈন্যদের উপর হামলা করার আহ্বান জানায়।

এমনকি চলতি মাসের প্রথমদিকে তাদের প্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারের সহপ্রতিষ্ঠাতার প্রতিও হুমকি দেয় আইএস।

LEAVE A REPLY

twenty − ten =