সাবধান ফ্রি ইন্টারনেট চালাতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হওয়া থেকে রক্ষা পেতে কিছু কৌশল

0
417

আপনার “মোবাইলে ফ্রি ইন্টারনেট চালান, ‘অমুক’ অপারেটরকে বাঁশ দিন” – এই শিরোনামে শত শত পোস্ট বিভিন্ন বাংলা ব্লগসাইট ও ফেসবুক পেজে দেখে থাকবেন। অনেকে প্রক্সি/ কাস্টম অপেরা মিনি প্রভৃতি উপায়ে কখনও কখনও ‘বিনামূল্যে’ ইন্টারনেট চালাতে সফলও হয়ত হয়েছেন। কিন্তু কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগকারী মোবাইল অপারেটরগুলোকে বোকা বানানো বা ‘বাঁশ দেওয়া’ সহজ কাজ না।

‘প্রক্সিম্যান’রা (অর্থাৎ যারা প্রক্সি ইউজ করে :P) একের পর এক নতুন পন্থা বের করে চলে আর মোবাইল কোম্পানিগুলো তাদের প্রযুক্তিতে আপডেট এনে সেগুলো রোধ করার চেষ্টা করে। আমি যতজন প্রক্সিম্যান দেখেছি তারা সবাইই কোনো না কোনো সময় তাদের প্রক্সি সিস্টেমে গণ্ডগোল পেয়েছে এবং ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার বন্ধ করতে হয়েছে।

ইন্টারনেট সাবধান ফ্রি ইন্টারনেট চালাতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হওয়া থেকে রক্ষা পেতে কিছু কৌশল

তাই বলে প্রক্সি থেমে থাকেনি। ‘গবেষণা’ চলছেই। আর এরই মধ্যে এই প্রক্সি নিয়ে অনেকে খুলেছেন ব্যবসা।

কীসের ব্যবসা? এটা আসলে পুরোদস্তুর প্রতারণা। ফেসবুকে আজকাল অনেকেই বলে ‘ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে চাও, তাহলে আমার এই পেইজ লাইক দাও”! কেউ কেউ আবার বলে “অমুক অপারেটরকে বাঁশ দিয়ে ফ্রি ইন্টারনেট চালাও, বিস্তারিত জানতে আমাকে অ্যাড/ ফলো করো”!

অনেকে লোভে পড়ে ওসব পেজে লাইক দেয় এবং প্রোফাইলগুলোকে ফলো করে। এতে “অ্যাড মি” ফেসবুকারের ‘বন্ধু’ বাড়ে আর তথাকথিত পেইজ অ্যাডমিনদের ফ্যান বাড়ে, ফলে ভবিষ্যতে অন্যান্যদের পেজ প্রোমোট করে অর্থ উপার্জনের রাস্তা পরিষ্কার হয়।

কিন্তু এভাবে আর কতদিন? মনে রাখবেন, লোভ করা ভাল না। আর অসাধু উপায়ে যেকোনো কিছু পেতে চাইলে তার মধ্যে গড়মিল হবেই।

বাংলাদেশের ‘রবি’ মোবাইল অপারেটরের গ্রাহকরা এই বিষয়টি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন। অনেকেই হয়ত ব্লগে বা ফেসবুকে এরকম কোনো পোস্ট দেখেছেন যাতে লেখা,

“পোষ্টটি শেয়ার করুন এবং আপনার বন্ধুদের জানান এবং সবাই এই নিয়মটি ফলো করুন আর নতুন অফারটি গ্রহন করুন::– আপনারা যারা রবি সিম ব্যাবহার করেন তারা জানেন, কিছুদিন আগে রবি সিম এ ইন্টারনেট একদম ফ্রি করে দিয়েছিলো। এখন সেটা না দিলেও (অল্প কিছু টাকাতে) রবি দিচ্ছে 35 টাকার 1GB ধামাকা Offer।মোবাইলে 40 টাকা রাকবেন, এর পর MESSAGE এ 35 লিখে SEND করবেন (এখানে একটা শর্ট কোড) এই নাম্বারে। এখন আপনার মোবাইলে একটা কনফার্ম মেসেজ আসবে, তারপর আপনি ডায়াল করুন (এখানে আরেকটি শর্ট কোড) বেশ আপনার কাজ শেষ। ৩১৮ টাকার 1 G.B অপনি পাবেন মাত্র ৩৫ টাকায়”

এরকম আরও কিছু পোস্ট আছে যেগুলো শুরু হয় এভাবে “এইমাত্র হ্যাক হল বাংলাদেশের ২য় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর রবির ইন্টারনেট…”

এবার আসল কথায় আসি। উপরে যে ‘রবির হ্যাক অফার’টি দেয়া আছে, সেটি মূলত একটি ধান্ধাবাজি। আপনি যদি ফ্রি/হ্যাকড ইন্টারনেটের লোভে উপরের নিয়ম অনুসরণ করেন, তাহলে আপনার মোবাইল থেকে ব্যালেন্স ট্র্যান্সফার হয়ে শর্ট কোডের মধ্যে থাকা রবি নাম্বারে চলে যাবে। অর্থাৎ উপরের পদ্ধতি অনুসরণ করলে আপনার মোবাইল থেকে টাকা কেটে নিয়ে যাবে, যা সেই শর্টকোডে থাকা একাউন্টে জমা হবে। অনেকেই এটা করে প্রতারণার শিকার হয়েছেন এবং এই লোভে কিছু লোক আজও একই পোস্ট করে যাচ্ছে।

রবি’তে এক মোবাইল থেকে অন্য মোবাইলে ব্যালান্স ট্রান্সফারের জন্য এখন নিবন্ধনের প্রয়োজন হয়না। ট্রান্সফারের জন্য ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে টাকার পরিমাণ (যেমন, ২০) লিখুন এবং ১২১২০১৮xxxxxxxx নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে দিন (এখানে ০১৮xxxxxxxx হচ্ছে ব্যালান্স গ্রহণকারীর নম্বর)।

এবার দেখুন তো, উপরের ভুয়া ইন্টারনেট পোস্টের সাথে মেলে কিনা! এই লিংকে রবি’র ব্যালেন্স ট্র্যান্সফারের বিস্তারিত নিয়ম দেখতে পারেন।

আপনি যেভাবে ইচ্ছা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন, শুধু এগুলো প্রয়োগের আগে কমন-সেন্স ও অন্যান্য উৎস দিয়ে যাচাই করে নেবেন আপনি আসলে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন না তো?

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 + four =