১৮টি উদ্ভাবনি উদ্যোগ পেলো ৪ কোটি টাকার ফান্ড

0
271

সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের তৃতীয় পর্বে অনুদান পেল ১৮টি উদ্ভাবনি উদ্যোগ। অনুদান প্রাপ্ত ১৮টি উদ্যোগের মধ্যে রয়েছে ১২টি সরকারি, তিনটি বেসরকারি, একটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, একটি এনজিও এবং একটি ব্যক্তি পর্যায়ের।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের মিডিয়া বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. গওহর রিজভী, মালদ্বীপ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী ও কমিউনিকেশন অথরিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আহমেদ আদিম এবং ইউএনডিপি বাংলাদেশ-এর ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর নিক বেরেসফোর্ড উপস্থিত থেকে অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন। একই সাথে সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের অনুদান প্রাপ্ত ‘জরুরি সেবা’ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন উদ্বোধন করেন গওহর রিজভী।

উদ্ভাবনি উদ্যোগ পেলো ৪ কোটি টাকার ফান্ড ১৮টি উদ্ভাবনি উদ্যোগ পেলো ৪ কোটি টাকার ফান্ড

জনগণের সেবাপ্রাপ্তি আরো সহজ করতে ও সরকারি সেবার মান উন্নয়নে সরকারি-বেসরকারি ও ব্যক্তি পর্যায়ের ইনোভেশন প্রচেষ্টায় সহায়তা প্রদান করতে এবং বিদ্যমান ক্ষুদ্র ও মধ্যম পর্যায়ের উদ্যোগসমূহে উদ্ভাবনী দক্ষতার বিকাশে চালু করা হয় ‘সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ড’।বাংলাদেশ সরকার, ইউএনডিপি ও ইউএসএইড এর সমন্বয়ে গঠিত এ ফান্ড পরিচালিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বাস্তবায়নাধীন একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের মাধ্যমে। সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের অনুদান প্রদান ২০১৪-এর এপ্রিল মাসে তৃতীয় রাউন্ড শুরু হয়েছিল। এ প্রেক্ষিতে ৫০১টি উদ্ভাবনি প্রস্তাবনা জমা হয়। শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনি সেখান থেকে বাছাই করে মোট ১৮টি উদ্ভাবনি উদ্যোগকে তিন কোটি ৯৯ লাখ ৩০ হাজার ৭৫০ টাকার ফান্ড প্রদান করা হয়েছে।

সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের মাধ্যমে সফলভাবে বাস্তবায়িত প্রকল্প ‘জরুরিসেবা’ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন(https://play.google.com/store/apps/details?id=bd.com.elites.bes) উদ্বোধন করা হয়। সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের ২য় পর্বে ফান্ড প্রাপ্ত এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্রকল্পটি হচ্ছে জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগের জন্য সারা দেশের সকল থানা, হাসপাতাল ও ফায়ার সার্ভিসের যোগাযোগের তথ্য নিশ্চিত করতে অ্যান্ড্রয়েড প্লাট ফরমে তৈরি একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। অ্যাপটি নির্মাণ করেন ইলজিকাল আইটি এক্সপার্টস লিমিটেড (ইলাইটস) নামক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. তারিক মাহমুদ, এবং সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার মো. মনসুর হোসেন। অ্যাপটিতে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের নম্বরসহ নিকটস্থ থানা, হাসপাতাল ও ফায়ার সার্ভিসের যোগাযোগের তথ্য, ঠিকানা এবং সঠিক অবস্থান সংযুক্ত রয়েছে এবং অনলাইন ভার্সনের মাধ্যমে তথ্য হালনাগাদ করার ব্যবস্থা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৯ ফেব্রুয়ারি ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৫ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইনোভেশন ফান্ডের ২য় পর্বে অনুদানপ্রাপ্ত প্রকল্প ‘মা ও শিশু মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন’ (https://play.google.com/store/apps/details?id=bd.gov.dghs.maoshishu) উদ্বোধন করেন। মূলত গর্ভবতী মা ও নবজাতক শিশুদের নিয়মিত ও প্রাথমিক টিকা/ চিকিৎসা নিশ্চিত করতে অ্যান্ড্রয়েড প্লাটফরমে এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটি নির্মাণ করা হয়েছে। এটু‌আই-এর সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের সহায়তায় অ্যাপটি নির্মাণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের তিন জন ছাত্র রায়হান হোসেন, শরিফুর রহমান এবং ইফতেখার আহমেদ। অ্যাপটিতে মায়েদের গর্ভকালীন সময়ে করণীয় এবং নবজাতকের নিয়মিত স্বাস্থ্য পরামর্শ/ টিকা বিষয়ক তথ্যসহ এসএমএস এবং ইমেইল নোটিফিকেশনের ব্যবস্থা রয়েছে। তাছাড়াও নিকটস্থ হাসপাতালের তথ্যসহ সারাদেশের সরকারি পর্যায়ের সকল হাসপাতালের যোগাযোগের তথ্যও এখানে পাওয়া যাবে।

সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের জন্যে এখন সারা বছরই অনলাইনে আবেদন(http://www.e-service.gov.bd/SIF/login) গ্রহণ চলছে।

অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. নজরুল ইসলাম, এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরীসহ এটুআই বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ