৭টি পরামর্শ বা টিপস কম্পিউটারকে স্মার্ট ও ফাস্ট করতে

0
433

কম্পিউটারটি কী কাজে ব্যবহার করেন তা ব্যাপার নয়। যন্ত্রটিকে মনের মতো করে ব্যবহার করার পদ্ধতি জানা জরুরি। যদি কম্পিউটার নিয়ে বেজায় ভেজালে থাকেন তবে এখুনি সময় তার ভেতরের জিনিসপত্র পরিবর্তন করে ফেলা। এখানে একে মনের মতো করতে সাতটি পরামর্শ দেওয়া হলো।

স্মার্ট ও ফাস্ট করতে ৭টি পরামর্শ বা টিপস কম্পিউটারকে স্মার্ট ও ফাস্ট করতে

১. ব্লটওয়্যার মুছে ফেলুন
বিভিন্ন সফটওয়্যার ডাউনলোড করার সময় আপনি অন্যান্য যে জিনিসগুলো ডাউনলোড হয় তাই ব্লটওয়্যার। এগুলো সাধারণত কাস্টম টুলবারে সংযুক্ত হয়। কম্পিউটারটি দ্রুত করতে হলে এগুলো সব মুছে ফেলুন।

২. সার্চ স্পাম ফিল্টার করুন
গুগলে প্রতিটি সার্চের সময় বহু স্পাম আইটেম চলে আসে। গুগলে এ সমস্যাটি রয়েছে। এ ক্ষেত্রে অন্য কোনো সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করতে পারেন।

৩. ‘ইরোর’ এর মানেটা কী?
যেকোনো ধরনের ইরোর মেসেজ আমাদের চিন্তায় ফেলে দেয়। সাধারণত কম্পিউটার নিজেই ছোটখাটো ইরোর ঠিক করে নিতে পারে। কিন্তু জটিল কোনো ইরোর যন্ত্রটিকে ধীর করে দেয়। এসব ইরোর মেসেজের সমাধান করে নিন কোনো এক্সপার্টকে দিয়ে। তা ছাড়া সার্চ ইঞ্জিনে গিয়েও এসব সমস্যা সমাধানের পথ পাবেন।

৪. ছবিগুলোর ব্যবস্থা
কম্পিউটারে তো হাজার হাজার ছবি রাখা হয়। আর এগুলো প্রচুর জায়গা নেয়। ফলে কম্পিউটার হয় ধীরগতির। ছবিগুলোকে ছোট করে এক জায়গায় রাখতে পারেন makeathumbnail.com এর মাধ্যমে।

৫. কিবোর্ড শর্টকাট ব্যবহার
কিবোর্ডের শর্টকাট বানানোই হয়েছে কম্পিউটারের উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর জন্য। অধিকাংশ মানুষই তা ব্যবহার করেন না। এগুলো শিখে ব্যবহার করুন।

৬. যত্নআত্তি করুন
ব্রাউজারে কুকিজ এবং হিস্ট্রি বেশি জমে গেলে তা মুছে ফেলুন। এগুলো ধুলো-ময়লার মতো কাজ করে। বিভিন্ন ব্রাউজারের এই কাজটি বিভিন্নরকম হয়।

৭. পিডিএফ করে নিন
অনলাইন শপিং বা বিভিন্ন কাজে আমরা যেকোনো কিছু ফাইল আকারে সেভ করে রাখি। এগুলো বেশি বেশি করা বাদ দিয়ে পিডিএফ করে রেখে দিন। প্রতিটি ব্রাউজারে প্রচুর অ্যাড-অনসহ অন্যান্য বিষয় রয়েছে। এগুলো সব পিডিএফ করুন।

একটি উত্তর ত্যাগ