আজ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ থেকে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড শুরু

0
237

ওয়ার্ল্ড আজ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ থেকে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড শুরুভবিষ্যৎ এখানেই—স্লোগান নিয়ে আজ ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকায় শুরু হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তির আন্তর্জাতিক সম্মেলন ও মেলা ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড, ২০১৫’। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে দেশের সবচেয়ে বড় এ তথ্যপ্রযুক্তি আয়োজন। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত সবার জন্য খোলা থাকবে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড।

গতকাল সংবাদ সম্মেলনে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ এ আয়োজনের বিস্তারিত তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘এবারের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে আমরা শুনতে চাই, দেখতে চাই, জানতে চাই, সবাইকে জানাতে চাই। এবারের সম্মেলনে ভাষাশহীদদের নামে পাঁচটি অঞ্চল থাকছে। এবারই প্রথমবারের মতো বিভিন্ন দেশের মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে ‘মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্স’। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস—বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান বলেন, ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে আমরা ই-কমার্স ও ই-গভর্ন্যান্সের ওপর বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।’

ই-সেবার প্রদর্শনী ও সেমিনার: ই-সেবা দেখাবে ১২০টি বেসরকারি ও ১০০টি সরকারি প্রতিষ্ঠান। থাকছে তথ্যপ্রযুক্তির নানা বিষয়ে ২৪টি সেমিনার। ২৫টি দেশ থেকে ৮৫ জন বিশেষজ্ঞ আসছেন এ আয়োজনে। সম্মেলন হবে নয়টি আর থাকছে ১১টি প্রশিক্ষণ কর্মশালা।

একের ভেতর চার: ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৫-এ থাকছে চারটি আলদা প্রদর্শনী। এগুলো হলো বেসিস সফটএক্সপো, ই-গভর্ন্যান্স এক্সপো, মোবাইল ইনোভেশন এক্সপো এবং ই-কমার্স এক্সপো। এসবের পাশাপাশি ই-কমার্স জোন, বিপিও ফোরাম, ডেভেলপারস ফোরাম, তথ্যপ্রযুক্তি পেশা সম্মেলন ও আউটসোর্সিং ফোরামে নিজেদের কাজ দেখাবেন তরুণ প্রযুক্তিবিদ ও উদ্যোক্তারা।

নারীদের জন্য: প্রযুক্তিতে নারীদের অংশগ্রহণে টেক উইমেন সম্মেলন থাকছে এ আয়োজনে। শিক্ষার্থীদের নিয়ে হবে তথ্যপ্রযুক্তি পেশা সম্মেলন ও মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নির্মাতাদের নিয়ে আছে ‘টাইটেনিয়াম সম্মেলন’।

গুগল বাস ও ই-ব্রেইল: প্রযুক্তির অভিজ্ঞতা নেওয়ার জন্য ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে থাকছে বিশেষ অঞ্চল। এখানে থাকবে গুগল বাস ও ই-ব্রেইল প্রযুক্তি। আরও থাকছে সেলফি বুথ ও বিনা মূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা।

নেপথ্যে…: ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৫-এর আয়োজক তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বেসিস। আয়োজন সহযোগী হিসেবে রয়েছে অ্যাক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্প ও বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)। আর এ আয়োজনের অংশীদার বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস), ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি), বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য), বাংলাদেশ উইমেন ইন আইটি (বিডব্লিউআইটি), সিটিও ফোরাম, বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরাম (বিআইজেএফ) ও দি ইন্টাস এন্টারপ্রাইজ (টাই) বাংলাদেশ।
বিস্তারিত: www.digitalworld.org.bd

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 − 6 =