গুগলের কাছ থেকে অ্যান্ড্রয়েড কেড়ে নিতে চাচ্ছে

0
294

‘আমরা গুগলের কাছ থেকে অ্যান্ড্রয়েড কেড়ে নিতে যাচ্ছি’— শুধু এটুকুই বলেছেন সাইনোজেনের প্রধান নির্বাহী কার্ট ম্যাকমাস্টার। অ্যান্ড্রয়েডের কাস্টোমাইজ সংস্করণ এই সাইনোজেন অপারেটিং সিস্টেম। গত সপ্তাহে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গুগলকে সতর্ক করে দিয়েছেন কার্ট।

গুগলের কাছ থেকে অ্যান্ড্রয়েড কেড়ে নিতে চাচ্ছেপ্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা বলছেন, কার্টের এই হুমকি গুগলের মেরুদণ্ড দিয়ে শীতল স্রোত প্রবাহিত করার জন্য যথেষ্ট। কারণ, অ্যান্ড্রয়েড হচ্ছে ওপেন সোর্স বা উন্মুক্ত। যেকোনো প্রতিষ্ঠান এই কোড ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েডের কাস্টোমাইজ সংস্করণ তৈরি করে নিতে পারে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, স্যামসাং ও এইচটিসি এখন নিজেরাও গুগলের কাস্টোমাইজ সংস্করণ ব্যবহার করে নিজস্ব অ্যাপ ও অন্য সেবা চালু করতে পারে। বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েডের বেশ কিছু কাস্টোমাইজ সংস্করণ চালু রয়েছে।

অ্যান্ড্রয়েড সোর্স কোড দিয়ে তৈরি হলেও তা সম্পূর্ণ আলাদা একটি মোবাইল সফটওয়্যার, যাতে গুগল অ্যাপ যুক্ত নাও থাকতে পারে। প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান আমাজন তাদের ফায়ার ফোন ও ট্যাবে এমনই একটি কাস্টোমাইজ সংস্করণ ব্যবহার করে।

বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, এত দিন অ্যান্ড্রয়েডের কাস্টোমাইজ সংস্করণ তৈরি করেও অ্যান্ড্রয়েডের আধিপত্য খর্ব করা যায়নি। তবে ‘সাইনোজেন’ ভিন্ন কিছু করে ফেলতে পারে। ১০ কোটি মার্কিন ডলারেরও বেশি তহবিল পেয়ে গেছে প্রতিষ্ঠানটি। সম্প্রতি মাইক্রোসফট সাইনোজেনে সাত কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সাইনোজেনের কর্মকর্তারা বলছেন, তাদের ওএস অ্যান্ড্রয়েডকে আরও উন্নত করবে। এটি আরও পরিচ্ছন্ন হবে। সফটওয়্যার নিয়মিত হালনাগাদ করা হবে। চীনের প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠানগুলো এই ওএস দিয়ে পণ্য তৈরি করবে। সাইনোজেন যদি জনপ্রিয় হয়ে যায়, তবে গুগলের আধিপত্যে কিছুটা হলেও ভাগ বসাবে এই সফটওয়্যারটি।

কিন্তু এদিকে গুগল কী বসে থাকবে? অ্যান্ড্রয়েডের কাস্টোমাইজ সংস্করণ ব্যবহার শুরু হওয়ার বিষয়টি ঠিক ভালোভাবে নিতে পারেনি গুগল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছে গুগল। গুগলের সঙ্গে চুক্তিতে থাকা পণ্য নির্মাতাদের ইতিমধ্যে কঠোর নীতিমালার মধ্যে এনে কাস্টোমাইজ সংস্করণ ব্যবহার ঠেকানোর পদক্ষেপ নিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।
গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে অ্যান্ড্রয়েড চুক্তি হালনাগাদ করে তাতে অ্যান্ড্রয়েডনির্ভর ফোন নির্মাতাদের তৈরি পণ্যের হোমস্ক্রিনে বেশি করে তাদের অ্যাপ রাখার বিষয়টি বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে গুগল। এ ছাড়াও কাস্টোমাইজ সংস্করণ ব্যবহার করার ক্ষেত্রেও বিধিনিষেধ আরোপ করেছে।
অবশ্য, গুগল যতোই কঠোর হোক না কেন, ম্যাকমাস্টারের মন্তব্য যদি সঠিক হয় তবে ধরে নিতে হবে স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেমের বাজারের ৮৫ শতাংশ আধিপত্যকে খর্ব করতে একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিবাদী হয়ে উঠছে আর তার পেছনে গোপনে কলকাঠি নাড়ছে মাইক্রোসফট।

একটি উত্তর ত্যাগ