কিভাবে একটি ভালো ট্যাবলেট পিসি কিনবেন? কাজের ধরন, প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখেই ট্যাব কেনা উচিত (মেগা টিউন)

    0
    622

    ট্যাবলেট কেনার আগে পরামর্শ চেয়ে সচরাচর যে প্রশ্নটি করা হয় তা হলো, ‘কোন ট্যাব কিনব?’ বাজারে নানা সুবিধা নিয়ে থাকা ট্যাবলেট কেনার ক্ষেত্রে এ প্রশ্নটি ওঠাই স্বাভাবিক। ট্যাব কেনার প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট সিনেটের বিশ্লেষকেদের পরামর্শ হচ্ছে, কাজের ধরন, প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখেই ট্যাব কেনা উচিত।

     

    ট্যাব কেনার আগে

     

    বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হচ্ছে ট্যাব কেনার আগে এর অপারেটিং সিস্টেম, হার্ডওয়্যার সম্পর্কিত তথ্য ও ট্যাবলেটের সহজে ব্যবহার করার সুবিধার বিষয়টি খেয়াল রাখবেন। দেশের বাজারে অনেক ব্র্যান্ডের ট্যাব পাওয়া যায়। তবে এত ব্র্যান্ডের ভিড়ে কোনটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো? দামের বিষয়টি দেখেশুনে প্রয়োজনের সঙ্গে জুতসই হলে তবে ট্যাব কেনাই ভালো। ইন্টারনেট-সুবিধার এ যুগে ইন্টারনেট থেকে কাঙ্ক্ষিত ট্যাবের তথ্য জেনে নিয়ে তবেই বাজার থেকে তা কিনতে পারেন।

    ট্যাব কেনার আগে সবার আগে খোঁজ নিন এর প্রসেসর সম্পর্কে। দ্রুতগতির প্রসেসরযুক্ত ট্যাব পছন্দ করুন, যাতে আপনার পছন্দের অ্যাপ্লিকেশনগুলো স্বচ্ছন্দে চালাতে পারেন। প্রসেসরের পাশাপাশি বেশি ক্ষমতার র্যাম আছে কি না, তা খেয়াল করে দেখতে পারেন। দেখে নিন তথ্য ধারণের জন্য ট্যাবে কতটা জায়গা রয়েছে বা অতিরিক্ত কতটা মেমোরি সমর্থন করবে। খেয়াল করুন ডিসপ্লে, রেজুলেশন। এ ছাড়াও ক্যামেরা, সেন্সর, ব্লু-টুথ, ইউএসবি, জিপিইউ ক্ষমতা দেখে নিন। কেনার সময় চার্জ থাকে কতটা এবং সাউন্ড কেমন সেটা যাচাই করুন। ট্যাব কেনার সময় সার্ভিস ও ওয়ারেন্টির বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে নিন।

     

     

     

     

    সেরা ট্যাবলেট

     

    বাজার বিশ্লেষকেদের চোখে বর্তমানে বাজারে সেরা ট্যাবলেটের মধ্যে রয়েছে আইপ্যাড, স্যামসাং গ্যালাক্সি সিরিজের ট্যাব,  আসুস. ফুজিত্সু, লেনোভো ও তোশিবার ট্যাব।

     

    দেশের বাজারে ট্যাবলেট কম্পিউটারের দাম

     

    অ্যাপল: আইপ্যাড মিনি ১৬জিবি-৪১,০০০ টাকা, ৩২জিবি-৫০,০০০ টাকা, ৬৪জিবি-৫৪,০০০ টাকা। আইপ্যাড-৪- ৮জিবি ৩৯,০০০ টাকা ।

    স্যামসাং : গ্যালাক্সি ট্যাব ৭.০ ১৬জিবি-৩৫,৫০০ টাকা, গ্যালাক্সি নোট ১০.১-৪৭,০০০ টাকা, গ্যালাক্সি ট্যাব টু ১০.১ ১৬জিবি-৩৭,০০০ টাকা, ট্যাব২৭.০-১৬জিবি ২৯,০০০ টাকা, ট্যাব ২৭.০ ৮জিবি-২৭,০০০ টাকা,ট্যাব ১০১ ওয়াইফাই ৩২,০০০ টাকা, গ্যালাক্সি ট্যাব টু জিটি-পি৩১০০-৩১,০০০ টাকা, গ্যালাক্সি ট্যাব টু জিটি৫১০০-৪২,০০০ টাকা।

    আসুস: নেস্যার৭-২৩,৯০০ টাকা, ওয়াইফাই ৩জি-৩২,৯০০।

    সনি: এসজিপিটি৩-৩৯,০০০ টাকা, এসজিপি২-৪৯,০০০ টাকা, ট্যাবলেট পি-এসজিপিটি২ ৪৫,০০০ টাকা। লেনোভো: এ২-১০৭এ-২৪,০০০ টাকা। ফুজিত্সু: ট্যাব এম৫৩২-৬০,৫০০ টাকা। তোশিবা: এটি-১০০-৪১,৫০০ টাকা।

     

    বাজারের চীনা ট্যাব 

     

    বাজারে এখন পরিচিত-অপরিচিত নানা ব্র্যান্ডের ট্যাবলেট চোখে পড়ে। একটু খতিয়ে দেখলে বোঝা যাবে, এগুলোর বেশির ভাগই চীনে তৈরি। রং-বেরঙের এসব অপরিচিত নামের চীনা ট্যাবলেট দামেও সাশ্রয়ী। মাত্র সাড়ে ছয় হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন পছন্দের ট্যাবলেট। চীনা ব্র্যান্ডের বিভিন্ন ট্যাবলেটের মধ্যে রয়েছে, ম্যাক্সপ্রো, আইনল, ওক্সেল, কোবি, বিফোরইউ, চাইল্ড প্যাড, আর্কোস, জিজি৭ প্রভৃতি। এসব ট্যাবলেট পাওয়া যাবে ছোট-বড় নানা মাপে ও রঙে। ট্যাবলেটগুলোর অধিকাংশই অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর।

     

    সুবিধাঅসুবিধা

     

    চীনা ট্যাব ব্যবহারের বড় সুবিধা হলো সাশ্রয়ী দামে সুদৃশ্য ট্যাবলেট ব্যবহারের অভিজ্ঞতা। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ট্যাবগুলোতে অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার ও স্মার্টফোনের নানা সুবিধা পাওয়া যায়। অবশ্য সস্তার ট্যাবলেট বলে এর অধিকাংশগুলোর কোনো ওয়ারেন্টি নেই। যে ট্যাবলেটগুলোতে ওয়ারেন্টি দেওয়া হয়, সেগুলোর দাম তুলনামূলকভাবে বেশি। ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা ও ট্যাবলেটের পারফরম্যান্স সম্পর্কে আগেভাগে জানা সম্ভব হয় না। অপরিচিত ট্যাবলেটের ব্র্যান্ড ও এর হার্ডওয়্যার সম্পর্কে আগেভাগে যাচাইয়ের সুযোগ থাকে না।

     

    চীনা ট্যাবলেট কেনার আগে

     

    চীনা ট্যাবলেট কেনার আগে অবশ্যই বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ওয়ারেন্টির বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে রসিদ নিন। আপনার পণ্যের প্রসেসর, র্যাম, গ্রাফিকস, মেমোরি, ডিসপ্লে পরীক্ষা করে নিন। অপারেটিং সিস্টেমের আপডেট করা যায় কি না, পরীক্ষা করে নিন। থ্রিজি নাকি ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক সমর্থন করবে, তা যাচাই করে নিন। ডিসপ্লের রেজুলেশন পরীক্ষা করে নিন। ট্যাবলেটে সমস্যা হলে ‘আফটার সেল সার্ভিস’ বিষয়গুলো পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে তবেই চীনা ট্যাবলেট কিনুন।

     

    সেরা ৮ ট্যাবলেট

     

    হাফিংটন পোস্টের তালিকা অনুযায়ী ২০১৩ সালের সেরা ৮ টি ট্যাবলেট হচ্ছে-আইপ্যাড মিনি, গ্যালাক্সি নোট ৮.০, কিন্ডল ৮.৯ এইচডি, আইপ্যাড ৪, নেক্সাস ৭, নুক এইচডি, নেক্সাস ১০ ও সারফেস প্রো।

     

    ট্যাবলেট কেনার পাঁচ পরামর্শ

     

    ১. পুরোনো বা ব্যবহূত ট্যাব কেনার আগে যাচাই করে নিন

    ২. নকশা ও ডিসপ্লে প্রয়োজন অনুসারে কিনুন

    ৩. উন্নত প্রসেসর ও সর্বশেষ সংস্করণের অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর ট্যাব কিনুন

    ৪. ডিসপ্লে রেজুলেশন ও ক্যামেরার মান যাচাই করে নিন

    ৫. ব্যবহার-বান্ধব কিনা ও ট্যাবের যাবতীয় তথ্য ইন্টারনেট থেকে যাচাই করে নিন।

    একটি উত্তর ত্যাগ