প্রযুক্তি সংক্রান্ত কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন (বাংলা)

0
344

কম্পিউটারে কেমন করে ভাইরাস ঢুকল? নিয়মিত রাউটার রিসেটিং করার দরকার আছে? এ ধরনের প্রশ্ন অনেকের মনে জাগে। প্রযুক্তি নিয়ে নানা সমস্যার মুখেও পড়তে হয় প্রতিদিন। এসব সমস্যার সমাধান কমবেশি  অনেকেই জানেন। প্রযুক্তি সংক্রান্ত কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
ল্যাপটপের ব্যাটারি কিভাবে ঠিক রাখব?
অনেকেই হয়তো ল্যাপটপের ব্যাটারি সমস্যায় ভুগছেন। কিন্তু কীভাবে ব্যাটারি ভালো রাখবেন? অনেকেই বলেন, ব্যাটারি রিচার্জ করার আগে পুরো চার্জ শেষ করতে হবে। আবার অনেকেই বলেন চার্জ ৪০ শতাংশ থেকে ৮০ শতাংশের মধ্যে রেখেই চার্জ দিতে। এতে অনেকেই ব্যাটারির চার্জ দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে দ্বিধায় ভোগেন।  বিশেষজ্ঞরা বলেন, এখনকার অধিকাংশ ব্যাটারিই  লিথিয়াম আয়নের। এ ধরনের ব্যাটারির যত্ন নেওয়া সহজ। ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হতে দেওয়া ঠিক হবে না। ব্যাটারির চার্জ ১০ শতাংশের নিচে নামানো ঠিক হবে না। আবার চার্জ পূর্ণ থাকলে প্লাগ ইন করে রাখা উচিত্ হবে না। ল্যাপটপের ব্যাটারি দীর্ঘক্ষণ চালানো যাবে যদি দীর্ঘক্ষণ চালানোর আগে খুলে রাখা হয়। তবে একটি বিষয় মনে রাখতে হবে ব্যাটারির আয়ু নির্দিষ্ট। একটি নির্দিষ্ট সময় পর থেকে ব্যাটারির আয়ু ধীরে ধীরে কমতে থাকে।

অব ইন্ডিয়া প্রযুক্তি সংক্রান্ত কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন (বাংলা)
ওয়েবসাইটে অশ্লীল বিজ্ঞাপন দেখাচ্ছে কেন?
ওয়েবসাইট খুলেই অশ্লীল বিজ্ঞাপন দেখছেন? কখনও কখনও হয়তো আপনার প্রিয় ওয়েবসাইট দেখার সময় বিব্রতকর এমন অবস্থার মুখে পড়তে হয়েছে আপনাকে। আপনাকে বিব্রত করার জন্য দায়ী হতে পারে স্পাইওয়্যার। এখন প্রশ্ন হচ্ছে কী এই স্পাইওয়্যার? স্পাইওয়্যার হচ্ছে একধরনের সফটওয়্যার যা আপনার অজান্তেই আপনার কম্পিউটারে ডাউনলোড হয়ে ইনস্টল হয় এবং আপনার কম্পিউটার থেকে বিভিন্ন ধরণের তথ্য ইন্টারনেটে অন্য কারো কাছে পাচার করে। এগুলো অনেক সময় আপনার কম্পিউটারের গতি কমিয়ে দেয়, আপনার বিরক্তি বাড়িয়ে তোলে আর গুপ্তচরবৃত্তি করে। আপনার প্রশ্ন থাকতেই পারে, আমি স্পাইওয়্যার প্রবেশ করার মতো কিছু তো করিনি তবে কীভাবে আমার কম্পিউটারে এল এই ভয়ংকর স্পাইওয়্যার? বিশেষজ্ঞরা জানান, স্পাইওয়্যার নির্মাতারা অনেক জটিল ও কারিগরি উপায়ে অনেক পদ্ধতিতে আপনার কম্পিউটারে স্পাইওয়্যার প্রবেশ করাতে পারে। সাধারণত অশ্লীল বিজ্ঞাপন দেখা, অশ্লীল ওয়েবসাইটে স্পাইওয়্যারের লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে কম্পিউটারে আসে। স্পাইওয়্যার থেকে মুক্তি পেতে ব্রাউজারের হালনাগাদ সংস্করণ ব্যবহার করুন।  ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্রাউজারে স্পাইওয়্যার আক্রমণের আশঙ্কা বেশি থাকে বলে এর পরিবর্তে ফায়ারফক্স বা অপেরা ব্রাউজার ব্যবহার করতে পারেন। অ্যান্টি স্পাইওয়্যার সফটওয়্যার ব্যবহার করুন। বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার সময় সচেতন থাকতে হবে।

ভাইরাস, ট্রোজান ও ম্যালওয়্যারের কাজ কী?

সবাই জানেন যে ভাইরাস ও ট্রোজান খারাপ, কিন্তু অনেকেই জানেন না এগুলো কীভাবে কাজ করে। ভাইরাসের ক্ষেত্রে উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, এমন একটি প্রোগ্রাম যা নিজেরা কপি হয় এবং কম্পিউটারকে আক্রান্ত করে এবং ধীরে ধীরে সত্যিকারের ভাইরাসের মতো একটির পর একটি আক্রান্ত হয়। অন্যদিকে ট্রোজান মূলত সাধারণ অ্যাপ্লিকেশনের মতো কিন্তু এর ভেতরে গোপনে ক্ষতিকর কোড বসানো থাকে যা অন্য কারও হাতে কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ তুলে দিতে সক্ষম। ইন্টারনেটে যদি বেশি বেশি ব্রাউজ করার অভ্যাস থাকে তবে কম্পিউটারে অ্যান্টি ভাইরাস থাকতে হবে। কম্পিউটার নিয়মিত স্ক্যান করতে হবে।

পাবলিক ওয়াই-ফাই ব্যবহারে দোষ কী?
আমরা অনেকেই কোথাও ফ্রি পাবলিক ওয়াই-ফাই আছে কিনা তা খুঁজে বেড়াই। তবে পাবলিক ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহারেও নানা ঝুঁকি থাকে। একে নিরাপদ ভাবা মোটেও উচিত্ হবে না। যদি নেটওয়ার্ক পাসওয়ার্ড সুরক্ষিত হয় তারপরও নিরাপত্তা ঝুঁকি থেকেই যায়। অন্যদের কাছে নিজেকে প্রকাশ হওয়ার ঝুঁকি থেকে রক্ষা পেতে পাবলিক ওয়াই-ফাই ব্যবহারে সর্বোচ্চ সতর্কতা জরুরি। ব্রাউজ করার সময় নিজের পরিচয় প্রকাশ যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন।

ইউএসবি ইজেক্টকরা দরকার আছে?
অনেকেই কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইউএসবি ড্রাইভ ব্যবহারের পর তা একটানে খুলে ফেলেন। ড্রাইভে কোনো কিছু কপি করা হলে অনেক সময় এটি কাজ শেষ হয়েছে দেখায় কিন্তু আদতে ড্রাইভ আরও কিছু কাজ এসময় করতে থাকে যাতে কপি করার সময় সব একবারেই করতে পারে। ইজেক্ট ক্লিক করা হলে ড্রাইভের লাইনে থাকা অন্য কাজ শেষ করে ফেলে।

ইমেইল না স্প্যাম কীভাবে চিনব?
ইমেইলে অপরিচিত উত্স থেকে বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে এবং বিভিন্ন সার্ভিসের কথা বলে মেইল আসলে বুঝবেন মেইলের ফিল্টার সিস্টেমকে ফাঁকি দিয়ে চলে এসেছে তা। যেসব স্প্যাম মেইল আপনার ইনবক্সে আসে তা মূলত আপনাকে প্রতারণায় ফেলতে পারে। এ ধরনের মেইলে ক্লিক করা থেকে সাবধান থাকতে হবে। এ ধরনের মেইলে যে লিংক দেওয়া হয় তা মূলত ভাইরাসপূর্ণ কোনো সাইটে নিয়ে যেতে পারে।

নিয়মিত রাউটার রিসেট করার প্রয়োজন কেন?

মাঝে মাঝে আপনার রাউটার থেকে সংকেত পেতে সমস্যা হতে পারে। এ অবস্থায় রাউটার বন্ধ করে আবার চালু করতে পারেন। রাউটার অতিরিক্ত গরম হয়ে গেলে কিংবা বিট টরেন্টের অতিরিক্ত ব্যবহারে রাউটার ঠিক মতো কাজ নাও করতে পারে। নিয়মিত রাউটার রিসেট করলে রাউটার ভালো থাকে।

বিনামূল্যে অ্যান্টিভাইরাস কতটা নিরাপদ?

বিনামূল্যের অ্যান্টি ভাইরাসের ওপর পুরোপুরি নির্ভর করা ঠিক নয়। কারণ, বিনামূল্যের অ্যান্টি ভাইরাসে ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার প্রতিরোধের জন্য পুরোপুরি নিরাপত্তা সিস্টেম দেওয়া নাও থাকতে পারে। কিছু কিছু বিনামূল্যের অ্যান্টি ভাইরাস ম্যালওয়্যার ছড়ানোর কাজ করে। তবে এভিজি-অ্যান্টি ভাইরাস ফ্রি এডিশন আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

ডিজিটাল ক্যামেরার গুরুত্বপূর্ণ ফিচার কোনটি?

ডিজিটাল ক্যামেরা কেনার সময় অপটিক্যাল জুম, বড় মাপের মাপের এলসিডি স্ক্রিন ও উন্নত রেজুলেশন রয়েছে কিনা দেখে কিনতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ