একটি ক্যাবল দিয়েই ভয়েস, ইন্টারনেট ও ডিশ সংযােগ

0
664

এক ক্যাবলেই ল্যান্ডফােন (ভয়েস), ডাটা (ইন্টারনেট) এবং ভিডিও (ডিশ সংযােগ) সেবা দিতে যাচ্ছে বাংলাদশে টেলিযোগাযোগ কােম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল)। বিটিসিএল এ প্রকল্পের নাম দিয়েছে ১৭১ কেএল বা এক লাখ ৭১ হাজার। আগামী মাসের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তবে বিটিসিএল বলছে, আগামী দুই বছরের মধ্যে সব গ্রাহককে এই সেবার আওতায় আনা হবে।

, ইন্টারনেট ও ডিশ সংযােগ একটি ক্যাবল দিয়েই ভয়েস, ইন্টারনেট ও ডিশ সংযােগজানা গেছে, ২ লাখ ৩৯ হাজার গ্রাহক একের ভেতর তিনএই সুবিধা নিতে পারবে। এরই মধ্যে সুইচ বোর্ডের উদ্বোধন হয়ে গেছে। সুইচবোর্ড ও যন্ত্রপাতি পরীক্ষানিরীক্ষা করেও দেখা হয়েছে। কপার ক্যাবলের ব্যবহার সীমিত রেখে অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে গ্রাহকের এলাকা পর্যন্ত, কোনও কোনও ক্ষেত্রে ভবন, এমনকি বাসা পর্যন্তও সংযোগ স্থাপন করা হবে। অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে ব্যান্ডউইথ বেশি পরিবহন হওয়ায় বিভিন্ন ধরনের সেবা এর মাধ্যমে প্রদান সহজ হবে বলে জানিয়েছেন বিটিসিএলএর পরিচালক মীর মোহাম্মদ মোরশেদ।

এনজিএন ভিত্তিক সফটসুইচের মাধ্যমে গ্রাহক পর্যায়ে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির টেলিফোন ও উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবা প্রদান করা যাবে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে বিশ্বমানের টেলিযোগাযোগ সেবা যেমন ফাইবার টু দ্য বিল্ডিং, ফাইবার টু দ্য হোম ও ফাইবার টু দ্য অফিস সেবা দেওয়া সহজ হবে। ফলে গ্রাহকরা একই সঙ্গে ভয়েস, ভিডিও এবং ডাটা সেবা উপভোগ করতে পারবেন।

জানা গেছে, এরই মধ্যে সুইচের পরীক্ষামূলক ব্যবহারও শুরু হয়েছে। বর্তমানে উত্তরা, গুলশান, শেরে বাংলা নগর, রমনা, মগবাজার, নীলক্ষেত, মিরপুর, বাবুবাজার, চকবাজারসহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন জায়গায় এক লাখের বেশি টেলিফোন চালু করার মতো অবস্থায় রয়েছে। ফাইবার অপটিক বসানো শেষ হলেই গ্রাহক পর্যায়ে সেবা দেওয়া শুরু হবে।

মীর মোহাম্মদ মোরশেদ বলেন, প্রথমে ভয়েস চালু করা হবে। এর অব্যবহিত পরপরই থাকবে ইন্টারনেট। তবে ভিডিও সেবা সেবা পেতে কিছুটা সময় লাগবে। এ জন্য তৃতীয় পক্ষের সঙ্গে চুক্তি করতে হবে বিটিসিএলকে।

এসব ভিএএস সেবা পেতে গ্রাহককে আলাদা আলাদা অর্থ ব্যয় করতে হবে। তবে কত অর্থ প্রয়োজন হবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে চূক্তি হলেই ভয়েস, ডাটা এবং ভিডিও সেবার জন্য অর্থ নির্ধারণ বা প্যাকেজ চূড়ান্ত করা হবে।

প্রাথমিকভাবে টেলিফোন নম্বরের আট ডিজিটে পরিবর্তন এবং এ সেবা মিরপুর ডিওএইচ এলাকায় চালু হচ্ছে। পরে পর্যায়ক্রমে রাজধানীর অন্যান্য এলাকায় দেওয়া হবে। এ ছাড়াও ঢাকা শহরের পুরনো টেলিফোন সিস্টেম প্রতিস্থাপন প্রকল্পের কাজ পুরোপুরি শেষ হলে এ সেবার আওতায় গ্রাহকরা ভয়েসের সঙ্গে ডাটা এবং ভিডিও ব্যবহারের সুবিধা পাবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ