৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন

0
456
স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে এমন মানুষ পাওয়া যাবে না, যে ব্যাটারি লাইফ নিয়ে সমস্যায় পড়েনি। বিশেষ করে বড় স্ক্রিনের স্মার্টফোনগুলোর জন্য এটি একটি অন্যতম সমস্যা। গেমস, ভিডিও, ইন্টারনেট ইত্যাদি ব্যবহার বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যাটারির পাওয়ারও দ্রুত কমে যায়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে সিনেট।
 
অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালিত ডিভাইসগুলো মাল্টিটাস্কিংসহ নানা সুবিধা নিয়ে আসলেও ব্যাটারি লাইফ কখনোই ব্যবহারকারীদের সন্তুষ্ট করতে পারেনি। তবে এ সমস্যার কিছুটা হলেও সমাধান নিয়ে এসেছে কিছু অ্যাপ। এ অ্যাপগুলো ব্যবহার করে স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ বাড়ানো সম্ভব।
টি জনপ্রিয় অ্যাপ ৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন
 ১. জুস ডিফেন্ডার
ব্যাটারি লাইফ বাড়ানোর জন্য জনপ্রিয় একটি অ্যাপ জুস ডিফেন্ডার। এর মাধ্যমে মোবাইল ডেটা, ওয়াইফাই ও ব্লুটুথও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। এতে রয়েছে ‘অ্যাগ্রেসিভ’ ও ‘ব্যালেন্সড’-এর মতো কিছু মোড। এগুলোর মাধ্যমে স্মার্টফোন সিনক্রোনাইজেশন করা সম্ভব। অ্যাপটির বিনামূল্যের ভার্সনটি ব্যবহার করতে পারবেন। তবে অর্থ খরচ করে কিছুটা ভালো সেবা পাওয়া সম্ভব। এজন্য অ্যাপটির দুটি ভার্সন আছে, ১.৯৯ ডলার মূল্যে প্লাস ও ৪.৯৯ ডলার মূল্যে আল্টিমেট ভার্সন পাওয়া যাচ্ছে।
 
লাইফ বাড়ানোর অ্যান্ড্রয়েড 1 ৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন
 
 
 ২. ব্যাটারি ডিফেন্ডার
বহু ফিচার সমৃদ্ধ আরেকটি অ্যাপ ব্যাটারি ডিফেন্ডার। বিনামূল্যের অ্যাপটিতে রয়েছে বহু অপশনের সমাহার। এর ব্যাটারির জন্য পরিসংখ্যানগুলোও নিখুঁতভাবে কাজ করে। দ্রুত ও ঝামেলাবিহীনভাবে এটি স্মার্টফোনের জিপিএস, ওয়াইফাই, মোবাইল ডেটা ও ব্লুটুথের মতো অপশনগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। এ অ্যাপটি আধুনিক ও উন্নত মডেলের অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলোতে কাজ করলেও পুরনো স্মার্টফোনগুলোতে এটি কাজ নাও করতে পারে।
 
অ্যাপটির একটি ফিচার হলো ‘জিনিয়াস স্ক্যান’, যা প্রতি ১৫ মিনিট পর পর সিনক্রোনাইজ করে। এর ‘কোয়ায়েট স্লিপিং’ অপশন রাতে ওয়াইফাই ডেটা কানেকশন বন্ধ রাখতে সক্ষম।
 
লাইফ বাড়ানোর অ্যান্ড্রয়েড 2 ৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন
 
 ৩. গো ব্যাটারি সেভার অ্যান্ড পাওয়ার উইজেট
গো ডেভ টিম ডিজাইনকৃত অ্যাপটি অত্যন্ত ফ্লেক্সিবল। স্মার্টফোনের স্ক্রিনের উপর একটি ‘ট্যাপ’ করার মাধ্যমেই আপনি অ্যাপটির বিভিন্ন মোডে যেতে পারবেন। ফলে অনলাইন গেইম খেলার সময় একটু বিশ্রাম করতে চাইলেও আপনি অ্যাপটির মোড পরিবর্তন করতে পারবেন।
 
যারা প্রিসেট মোডগুলো পছন্দ করেন না, তাদের জন্য রয়েছে দুটি কাস্টম মোড তৈরির অপশন। অ্যাপটি আপনার ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ বিশ্লেষণ করে জানাতে পারে, কোন ফিচার চালু বা বন্ধ করলে আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ বাড়বে।
 
এ ছাড়াও রয়েছে অ্যাপটির কার্যকর অপ্টিমাইজ বাটন। এটি ফোনকে কয়েক ঘণ্টা অতিরিক্ত ব্যাটারি লাইফ দিতে সক্ষম।
 
অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনে প্রচুর অপশন রয়েছে। ব্যবহারকারীরা আরও কিছু অপশন চাইলে ৪.৯৯ ডলার ব্যয়ে কিনতে হবে এর প্রিমিয়াম ভার্সন। এতে থাকছে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ও সিপিইউ-এর উপর অধিকতর নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও একটি ‘এক্সট্রিম’ মোড।
 
লাইফ বাড়ানোর অ্যান্ড্রয়েড 3 ৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন
৪. অটোরান ম্যানেজার
এ তালিকার সবচেয়ে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ অ্যাপ হচ্ছে অটোরান ম্যানেজার। এটি স্মার্টফোন বুট করার সময় কোন কোন অ্যাপ চালু হবে তাও নির্ধারণ করতে পারে। এ অ্যাপটিতে রয়েছে দুটি মোড- বেসিক ও অ্যাডভান্সড। বেসিক মোডে ফোন চালু করা হলে তা কিছু অপশন চালুই হতে দেয় না। তবে অ্যাডভান্সড মোডটিতে ব্যবহারকারীর বেশি নিয়ন্ত্রণ করার সুযোগ থাকে।
 
অ্যাপটির বিনামূল্যের ভার্সনে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে। তবে আপনি যদি ৩.৯৯ ডলার ব্যয়ে এটি কিনে নেন, তাহলে এতে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করবে না।
 
লাইফ বাড়ানোর অ্যান্ড্রয়েড 4 ৫ টি জনপ্রিয় অ্যাপ দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড এর ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে নিন
৫. টাসকার
অ্যাপটি শুধু ব্যাটারি লাইফই বাড়ায় না, এর মাধ্যমে বহু ‘টাস্ক’ও বন্ধ করা যায়। ব্যাটারি লাইফের পাশাপাশি যারা অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের নিয়ন্ত্রণের ওপর বেশি আগ্রহী, তাদের জন্য এটি একটি আদর্শ অ্যাপ। এটি ব্যবহারকারীর ঘুমের সময় রেকর্ড রাখে এবং সে সময়ে বিভিন্ন কানেকশন বন্ধ করে দেয়।
 
অ্যাপটিতে রয়েছে মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ, টেক্সট ব্যবহার, কল করার সময় পাওয়ার ম্যানেজমেন্টের জন্য নানা ফিচার। এছাড়া অ্যাপটি ইন্সটল করার পর নিজেই কাজ করে। এর কার্যক্রম তেমন একটা খেয়াল না রাখলেও চলে। অ্যাপটির মূল্য ২.৯৯ ডলার।

একটি উত্তর ত্যাগ