স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়ানোর উপায়

0
450

পর্দার আলো কমিয়ে রাখুন। সেটিংস মেন্যু থেকে ডিসপ্লের ব্রাইটনেস কমিয়ে নেয়া যাবে। তাছাড়া ঠিক কতক্ষণ পর ডিসপ্লেটি বন্ধ হয়ে যাবে, তা-ও ঠিক করে দেয়া যায়।

কাজ শেষে বন্ধ রাখুন রেডিও বা ওয়্যারলেস সুবিধাগুলো। জিপিএস, বস্নুটুথ, এনএফসি বা নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন এবং ওয়াইফাই সুবিধাগুলো ব্যাটারি ব্যবহার করে খুব বেশি।

Advertisement

আলো স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়ানোর উপায়

বিশ্রামের সময় চালু রাখুন ‘এয়ারপ্লেন মোড’। স্মার্টফোনের সেলুলার কানেক্টিভিটিও বন্ধ রাখতে পারেন। এছাড়া এ মোডে চার্জও হবে চটজলদি। ‘পুশ’ নোটিফিকেশন বন্ধ রাখুন বা কমিয়ে নিন। প্রতিক্ষণ আপডেটেড পুশ নোটিফিকেশনের জন্য আপনার স্মার্টফোনটিকে সার্ভারে যুক্ত থাকতে হচ্ছে। এতে ব্যাটারি খরচ হচ্ছে। স্মার্টফোন লক করে রাখুন। তাহলে পকেট বা ব্যাগে রাখার পর সহজে আনলক হবে না। অন্যথায় অজান্তে চাপ লেগে কারও কাছে কল চলে যেতে পারে অথবা চালু হয়ে যেতে পারে কোনো অ্যাপ।

অ্যাপস ব্যাটারি খরচ করে সবচেয়ে বেশি। এর মধ্যে কোনো কোনো অ্যাপ চালাতে প্রয়োজন হয় অতিরিক্ত শক্তি। অ্যাপলিকেশনগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকলে ব্যাটারি বেশি খরচ হয়। এছাড়া ‘লাইভ ওয়ালপেপার’ ব্যবহার না করাই ভালো। এটিও ব্যাটারি খরচ করে অনেক।

৩২ থেকে ৯৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট হচ্ছে স্মার্টফোনের জন্য উপযোগী তাপমাত্রা। তাই স্মার্টফোনটি খুব গরম বা ঠা-া স্থানে না রেখে ঘরের তুলনামূলক স্বাভাবিক তাপমাত্রা রয়েছে এমন স্থানে রাখা উচিত। সঙ্গে রাখতে পারেন বাড়তি ব্যাটারি।

এছাড়া সম্প্রতি বাজারে এসেছে পাওয়ার ব্যাংক। ইউএসবি ক্যাবলের মাধ্যমে স্মার্টফোনের ব্যাটারি চার্জ করতে এগুলোও বেশ উপযোগী।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here