২০১৫ সালে যা কিছু নতুন আনছে অ্যাপল

0
342

অ্যাপলের ইতিহাসে খুবই তাত্পর্যপূর্ণ একটি বছর হতে যাচ্ছে ২০১৫। এ সময়ে প্রতিযোগিতা অন্য সময়ের তুলনায় বহুগুণ বাড়বে। প্রযুক্তির বেশকিছু খাতে এগিয়ে থাকতে নতুন অনেক সেবা আনবে মার্কিন শীর্ষ প্রযুক্তি কোম্পানিটি। পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্য, আইপ্যাডের নতুন সংস্করণ, নতুন অপারেটিং সিস্টেম, নতুন আইফোনসহ বেশকিছু সেবা আনতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১৫ সালে যা কিছু নতুন আনছে অ্যাপল

চলতি বছরের শুরুতেই বাজারে আসতে যাচ্ছে অ্যাপলের প্রথম পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্য অ্যাপল ওয়াচ। ডিভাইসটি নিয়ে আগ্রহভরে অপেক্ষা করছেন গ্রাহক। ধারণা করা হচ্ছে অ্যাপল ওয়াচ পরিধেয়পণ্যের বাজারে নতুনত্ব আনতে যাচ্ছে। উদ্বোধনের সময় এ পণ্যের বাজারে অ্যাপলের প্রতিদ্বন্দ্বীরাও অ্যাপল ওয়াচের আগমনকে স্বাগত জানিয়েছেন। তাদের মতে, অ্যাপল মানেই উন্নত সেবা। ফলে অ্যাপল ওয়াচের কল্যাণে পরিধেয় প্রযুক্তিপণ্যের বাজার অনেক বিস্তৃত হবে।

অ্যাপল ওয়াচ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের আইপ্যাড সিরিজের ট্যাবলেটও বাজারে আনতে যাচ্ছে। আইপ্যাড এয়ারথ্রি, আইপ্যাড মিনিফোর ও আইপ্যাড প্রো/প্লাস চলতি বছরই বাজারে আনবে অ্যাপল। গত বছর ট্যাবলেটের বাজার উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পায়। কিন্তু বাজার বিশ্লেষকদের মতে, চলতি বছর ট্যাবলেটের বাজার কিছু বাড়তে পারে। এক্ষেত্রে অ্যাপলের আইপ্যাড সিরিজের ট্যাবলেটগুলো সংশ্লিষ্ট বাজারের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ দখল করবে বলেই মনে করছেন বাজার বিশ্লেষকরা।

চলতি বছর কম্পিউটার খাতেও পিছিয়ে থাকছে না মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। চলতি বছরের শেষ নাগাদ প্রতিষ্ঠানটি তাদের ম্যাক প্রো ২.০ বাজারে আনতে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট এক সূত্রে এ তথ্যই জানা যায়। অ্যাপলের উন্নত কম্পিউটার ব্যবস্থাটির দাম বেশি হওয়ার কারণে খুব বেশি গ্রাহক এটি ব্যবহার করেন না। তবে উন্নত কম্পিউটারের বাজারে এখনো চাহিদা রয়েছে ম্যাক প্রো সিরিজের কম্পিউটারের। এরই ধারাবাহিকতায় বছরের শেষ নাগাদ ম্যাক প্রো ২.০ আনছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি।

ওএস এক্স ১০.১১ নিয়ে কাজ করছে অ্যাপল। এর আগে প্রতিষ্ঠানটি ইয়োসোমেতে নামে নিজেদের আরেকটির অপারেটিং সিস্টেম গত বছর উদ্বোধন করে। ইয়োসোমেতের উত্তরসূরি হিসেবেই চলতি বছর বাজারে আসবে ওএস এক্স ১০.১১। অ্যাপলের এ অপারেটিং সিস্টেমগুলো এরই মধ্যে গ্রাহক আস্থা ও আগ্রহ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, এ বছরই বাজারে আসবে আইওএস নাইন। অ্যাপলের অপারেটিং সিস্টেমের নতুন সংস্করণটি চলতি বছরের কবে নাগাদ বাজারে আসবে, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি। একাধিক বিবৃতিতে অ্যাপল জানায়, তাদের নতুন সংস্করণের অপারেটিং সিস্টেমে নতুন অনেক সেবা যুক্ত করা হবে। এরই অংশ হিসেবে আইওএস নাইন উন্নত সেবাসংবলিত হয়েই বাজারে আসবে।

গত বছর অডিও সেবা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান বিটস মিউজিক কিনে নেয় অ্যাপল। সে সময় বিটস মিউজিক অ্যাপলের কী কাজে লাগবে, তা নিয়ে সন্দিহান ছিলেন অনেকে। কিন্তু ধীরে ধীরে বিটস মিউজিক সম্পর্কে অ্যাপলের আগ্রহের কারণ জানা যাচ্ছে। অ্যাপল তাদের আইটিউনস সেবায় এ বছরই বিটস মিউজিক সেবাকে একত্র করতে যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, আইওএস নাইন বাজারে আসার আগেই আইওস অপারেটিং সিস্টেমের জন্য বিটস মিউজিক সেবা আনছে অ্যাপল।

গত বছরই দুটি আইফোন বাজারে আনে অ্যাপল। সে সময় অনেকেই মনে করেছিলেন অনেক দিন অ্যাপলের নতুন কোনো আইফোন দেখছেন না গ্রাহক। সম্ভবত এ ধারণা ভুল প্রমাণ করতে যাচ্ছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। সিক্সএস ও সিক্সসি নামের নতুন আইফোন আনতে কাজ করছে অ্যাপল। আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ে অ্যাপলের নতুন আইফোন দেখতে পাবেন গ্রাহক।

চলতি বছর অ্যাপল নতুন স্মার্ট টেলিভিশন আনছে। স্মার্ট হোম এন্টারটেইনমেন্ট খাতে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে অ্যাপল টিভিতে মনোনিবেশ করেছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। তবে বছরের কবে ডিভাইসটি বাজারে আসছে, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি।

এছাড়া মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি তাদের সেবায় বেশকিছু পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে। বিশেষ করে অ্যাপল চলতি বছর যে ডিভাইসগুলো বাজারে আনতে যাচ্ছে, তার প্রতিটির ক্ষেত্রে উন্নত পিক্সেলের ধারণা কার্যকর করা হতে পারে। অর্থাত্ নতুন বছরে অ্যাপলের নতুন ডিভাইসে উন্নত সেবাই পেতে যাচ্ছেন অ্যাপলপ্রেমীরা।

একটি উত্তর ত্যাগ