কয়েক বছরের মধ্যে বাজার থেকে হারিয়ে যাবে ফিচারফোন (old model mobile)

0
295

দেশের মোট মোবাইলফোন ব্যবহারকারীর ১০ ভাগ স্মার্টফোন ব্যবহার করে অার অবশিষ্ট ৯০ ভাগ ব্যবহার করেন ফিচার বা বার ফোন। অাগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাজার থেকে হারিয়ে যাবে ফিচারফোন। সেই হিসেবে দেশে হালে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১ কোটি। মোবাইলফোন অামদানিকারকদের কাছ থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। অারও জানা গেছে, চলতি বছর দেশে ৮০ লাখ স্মার্টফোন অামদানি করা হবে। প্রতি বছর স্মার্টফোন অামদানির সংখ্যা বিগত বছরগুলোর চেয়ে দ্বিগুণ, তিনগুণ হারে বাড়ছে।

কয়েক বছরের মধ্যে বাজার থেকে হারিয়ে যাবে ফিচারফোন (old model mobile)

বাংলাদেশ মোবাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রেজওয়ানুল হক জানান, দেশে মোবাইলফোনের প্রবৃদ্ধি প্রায় ২০০ শতাংশ। তিনি বললেন, অাগামী ৪-৫ বছরের মধ্যে দেশ থেকে ফিচার বা বারফোন হারিয়ে যাবে। মোবাইলফোন ব্যবহারকারীদের হাতে হাতে ফিরবে স্মার্টফোন।

জানা গেছে, উন্নত দেশগুলোতে ৮০ শতাংশ স্মার্টফোন এবং অবশিষ্ট ২০ শতাংশ মোবাইলফোন ব্যবহারকারী ফিচার ফোন ব্যবহার করেন। বাংলাদেশ, অাফ্রিকার কিছু দেশ, ভারত এবং চীনের কিছু মোবাইলফোন ব্যবহারকারী (১৫ শতাংশ) ফিচার ফোন ব্যবহার করেন।

এক পরিসংখ্যানে দেখো গেছে, ২০১২ সালে দেশে ৪ লাখ, ২০১৩ সালে ১৫ লাখ, ২০১৪ সালে ৪০ লাখ ১০ হাজার পিস স্মার্টফোন অামদানি করা হয়েছে। চলতি বছর তা ৮০ লাখ পিস ছাড়িয়ে বা বলে অাশা করছে বাংলাদেশ মোবাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন। এই বাইরে অারও কিছু স্মার্টফোন যুক্ত হয় প্রতি বছর। এর মধ্যে রয়েছে হাতে হাতে বহন (ব্যক্তিগতভাবে), গ্রে মার্কেটের মাধ্যমে দেশে ঢোকে স্মার্টফোন। সব মিলিয়ে দেশে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১ কোটি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, থ্রিজির ব্যবহারকারী এখনও কোটি পার হয়নি। ফলে সহজেই অনুমেয় স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা কত।

এদিকে ভারতভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান সাইবার মিডিয়া রিসার্চ (সিএমআর)-এর সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে দেশে স্মার্টফোন আমদানি বেড়েছে ২২০ শতাংশ।

সিএমআরের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, তৃতীয় প্রান্তিকে বাংলাদেশে স্মার্টফোন আমদানি হয়েছে ১৬ লাখ। সে হিসাবে গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে এর আমদানি বেড়েছে ২২০ শতাংশ। গত বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে স্মার্টফোন আমদানি হয় ৭ লাখ।

স্মার্টফোনের বাজারে শীর্ষ অবস্থানে থাকা সিম্ফনির দখলে রয়েছে বাজারের ৫২ দশমিক ৬ শতাংশ। দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন বাজারের ১১ দশমিক ৮ শতাংশ নিয়ে রয়েছে পরবর্তী অবস্থানে। আর বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড স্যামসাং এ বাজারে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ১৪ দশমিক ১ শতাংশ নিয়ে। অন্য ব্র্যান্ডগুলোর দখলে রয়েছে ২১ দশমিক ৫ শতাংশ।

যদিও সিম্ফনি বলছে, স্মার্টফোনে তাদের বর্তমানে মার্কেট শেয়ার ৫০ শতাংশ। গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে স্মার্ট ও ফিচার ফোন মিলিয়ে মোট আমদানির পরিমাণ ছিল ৭৯ লাখ। আগের বছরের একই সময়ের তুলনা যা ১৬ শতাংশ বেশি।

একটি উত্তর ত্যাগ