অনলাইনে অভদ্র আচরণের আগে কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে ভেবে নিন

1
399

সোশাল মিডিয়ায় আপনার একটি পোস্টে কিছু কমেন্ট দেখেই মেজাজ বিগড়ে গেলো। মন্তব্যকারীদর এক হাত নিতে আপনিও কিছু বাজে মন্তব্য ছুঁড়ে দিলেন। বিপরীতে পাইকারী হারে বাজে কমেন্ট আসতে থাকলো। এই পরিস্থিতি নতুন কিছু নয়। যারা এসব কমেন্ট দেন বা পোস্টের এসব কমেন্ট দেখে আপনিও যদি রেগে যান, তবে এর সমাধান নেই।

অভদ্র আচরণ বা কমেন্টের আগে ৭টি বিষয় ভেবে দেখুন অনলাইনে অভদ্র আচরণের আগে কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে ভেবে নিন

আপনি পোস্ট দিন বা কমেন্ট করুন, অনলাইনে এতটা অভদ্র বা নিষ্ঠুর হওয়ার আগে আপনার দ্বিতীয়বার ভেবে নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। তাই এমন আচরণের আগে নিচের কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে ভেবে নিন।

১. কষ্টদায়ক : অনলাইনে এমন নিষ্ঠুর হওয়ার আগে অবশ্যই উপলব্ধি করবেন যে বিষয়টি খুবই যন্ত্রণাদায়ক। যার পোস্টে বাজে মন্তব্য দিচ্ছেন, তাকে আপনি কষ্ট দিচ্ছেন। এই ক্ষত একটি মানুষের মনে এক দিন, দুই দিন বা সারা জীবন থেকে যেতে পারে। অনলাইনে আপনারও দায়িত্বশীল হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

২. ধারাবাহিক ফলাফল : কারো পোস্টে বাজে মন্তব্য দেওয়া মূলত এসব কাজের শুরু মাত্র। এরপর যিনি পোস্ট দিয়েছেন তিনিও বাজে মন্তব্য করবেন। এর বিপনীতে আপনিও করবেন এবং এভাবে চলতেই থাকবে। শেষ পর্যন্ত ভালো কিছুই হবে না। পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হতে থাকবে।

৩. বিচ্ছিন্নতা : অনলাইনে আসলে নিষ্ঠুরতা দেখানো অনেক সহজ। কারো পোস্টে বাজে মন্তব্য করা অনেক সহজ। এতে মানুষের সঙ্গে আপনার শুধু বিচ্ছিন্নতাই তৈরি হবে। কিন্তু বাজে নয়, বরং পৃষ্ঠপোষকতা করুন। এতে মানুষের সম্পর্ক আরো ভালো হবে।

৪. আপনি যেমন… : অনলাইনে এমন আচরণ করতে থাকলে আপনার পরিচয়টাই কমেন্টের মতোই হয়ে যাবে। সোশাল মিডিয়ায় একজন মানুষ তার জীবনের নানা সত্য এবং মারাত্মক বিষয়গুলো যখন উপস্থাপন করছেন, তখন তা ওই মানুষটির জীবনের জন্য বাস্তবতা। এমন পরিস্থিতি আপনারও হতে পারে। কিন্তু আপনার এমন আচরণের অর্থ মানুষ হিসেবে আপনি এমনই অভদ্র।

৫. অবহেলিত : বেশিরভাগ সময়ই শুধু বাজে মন্তব্য করার জন্য অনেকে এসব মন্তব্য করেন। এতে দেখা যায়, বিষয়ের সঙ্গে কমেন্টের কোনো সংযোগ তো নেই, বরং তা ভুল। কাজেই সেগুলো কোনো অর্থ রাখে না। কাজেই যিনি কমেন্ট দিচ্ছেন তাকে বোধশক্তিহীন মানুষ বলে ধরে নিতে কারো কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়। নিজের পরিচয়টা যদি এভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে না চান, তবে বাজে মন্তব্য করা এড়িয়ে চলুন।

৬. কেউ কাউকে কষ্ট দিতে চায় না : অনেকেই মনে করেন তাকে নিয়ে বা তাকে উদ্দেশ করে এসব বলা হচ্ছে। এমন মনে করার কোনো কারণ নেই। অনলাইনে সবাই যার যার চিন্তা-চেতনা নিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন এবং মন্তব্য করছেন। সব কথার কেন্দ্রে নিজেকে এনে অভদ্র হয়ে ওঠা আপনারই বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়।

৭. আপানার কেমন লাগবে? : একটু ভেবে দেখুন, আপনি কারো পোস্টে বাজে মন্তব্য করেছেন। এর পরে আপনি নিশ্চয়ই কোনো না কোনো সময় পোস্ট দেবেন। তখন আপনার ওপর এক হাত নিতে আরেকটি বাজে মন্তব্য আসলো। এখন আপনার কেমন লাগছে? এই অনুভূতি অপরজনেরও হয়েছিল। তাই ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এখন থেকেই অনলাইনে এমন অভদ্র হয়ে ওঠা ও বাজে মন্তব্য থেকে বিরত থাকুন।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ