পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

0
529

অন্যান্যরা সবাই যেখানে হাইস্পীড ইন্টারনেট ব্যবহার করে, আমরা সেখানে পরে আছি এখনো কম স্পীডের কাতারে। তবে না আমাদের দেশে ৩জি সেবা আশার পরে অনেকটাই বদলে গেছে দৃশ্যপট। যেমন আমি নিজেই এখন ৭এমবিপিএস গতির ডুপ্লেক্স ব্রডব্যান্ড লাইন ব্যবহার করি। বর্তমানে আমাদের নেট লাইন সত্যি অনেকটা আলোর মুখ দেখেছে। এখন গ্রামের মানুষেরাও ৩জি ব্যবহার করতে পারছে। তো সে যাইহোক আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করছি বিশ্বের সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যাবহার করে যে দেশ গুলো তাদের সংক্ষিপ্ত তালিকা-

১০। ফিনল্যান্ড-

flag-finland-XL পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

তালিকার ১০ নম্বরে আছে ফিনল্যান্ড। গত বছরে তাদের এভারেজ স্পীড ছিল ৭.১ এমবিপিএস। আর এ বছর তাদের এভাজের ব্রডব্যান্ড স্পীড বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭.৭ এমবিপিএস। যেটা সত্যি অসাধারণ।

 ০৯। সুইডেন-

sweden flag পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

সুইডেন আছে তালিকার ৯ নম্বরে। গতবছরও তাদের এভারেজ স্পীড যেখানে ছিল ৭.৩ এমবিপিএস আজ বা এই বছরে সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮.৩ তে। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে তাঁরা তাদের ইন্টারনেট গতি বাড়িয়েছে ২৯%। এটি সত্যি অনেকই বেশি।

০৮। ইউএসএ-

USA পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

আমরা সবাই যে দেশকে সর্বদিক দিয়ে বেস্ট মনে করি তাঁরা আছে এই তালিকার ৮ নম্বরে। ইউএসএর এভারেজ নেট স্পীড গতবছরের তুলনায় মোট ২৮% বৃদ্ধি পেয়েছে। গতবছর তাদের নেট স্পীড ছিল যেখানে ৭.৪ এমবিপিএস আজ সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮.৬ এ। ভুলে গেলে হবে না যে বাবার ওপরেও আরেকজন বাবা থাকে।

 ০৭। চেজ রিপাবলিক-

Czech_Republic পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

ইন্টারনেটের স্পীডের দিক দিয়ে চেজ রিপাবলিক ইউএসএর থেকে একধাপ এগিয়ে আছে। গতবছরে তাদের গড় স্পীড ছিল যেখানে ৮.১ এমবিপিএস ২০১৪ সালে সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯.৬ এ। এক বছরের ব্যবধানে তাদের গড় স্পীড বেড়েছে ২১% যেটি যথেষ্ট বলে আমি মনে করি।

 ০৬। নেদারল্যান্ডস-

holland_flag পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

আশ্চর্যজনক ভাবে নেদারল্যান্ডস আছে তালিকার ৬ নম্বরে। এই দেশের ব্রডব্যান্ড লাইনের গড় স্পীড ছিল ৮.৬ এমবিপিএস (২০১৩) আর এখন সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯.৬ এমবিপিএস।

 ০৫। সুইজারল্যান্ড-

swiss-flag1 পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

নেদারল্যান্ডসের একধাপ ওপরে আছে সুইজারল্যান্ড। গত ২০১২ সালের দিকে তাদের নেট স্পীড ছিল গড়ে ৮.৭ এমবিপিএস আর আজ এই সময় সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০.০৬ এমবিপিএস।

 ০৪। লাটভিয়া-

latvia পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

যাদের নাম আমরা সচরাচর শুনিই না সেই লাতভিয়াই আছে ইউএসএর কয়েকধাপ ওপরে। এরা বর্তমানে ৯.৮ এমবিপিএস লাইন চালায় যেটি গতবছরেও ছিল ৮.৯।

 ০৩। হং কং-

hong_kong_flag পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

তালিকার প্রায় শীর্ষের দিকে আছে হংকং। তাদের এভারেজ ইন্টারনেট গতি ৯.৩ এবং এটি কোন ব্রডব্যান্ড বা ওয়্যার কানেকশন না। সরাসরি ৪জি স্পীড। এটি যথেষ্ট রকমের স্পীড।

 ০২। জাপান-

Japan-Flag পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

আমরা আগাগোড়াই জানি যে, জাপান প্রযুক্তির দিক দিয়ে সেরা। আর তার প্রমান তাঁরা আরও একবার দেখিয়ে দিল তাদের ইন্টারনেট গতি দিয়ে। জাপান বর্তমানে ১১.৬ এমবিপিএস গতির ইন্টারনেট লাইন ব্যাবহার করে। তাঁরা আরও জানিয়েছে যে, অচিরেই তাদের নেট লাইন ৫জি তে নিয়ে যাবার জন্য কাজ চলছে। হয়তো কিছুদিনের ভেতরে সেটিও তাঁরা করে ফেলবে।

 ০১। দক্ষিন কোরিয়া-

korea-south-flag পৃথিবীতে সর্বচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে দেশগুলো।

সবাইকে টপকে তালিকার একেবারে শীর্ষে উঠে এসেছে দক্ষিন কোরিয়া। অ্যাপল যতই সামসাং কে বিড করুন না কেন, তাদের দেশের ইন্টারনেট কানেকশনকে কিন্তু দমাতে বা বিড করতে পারেনি। বর্তমানে বিশ্বের সবথেকে দ্রুতগতি সম্পন্ন ইন্টারনেট গতি হচ্ছে গড়ে ১৪.২ এমবিপিএস। ভাবতেই অবাক লাগে যে এই দেশে বসবাসরত সবাই সর্বনিম্ন ১৪.২ এমবিপিএস গতির লাইন ব্যবহার করে।

***উপরক্ত আলোচনা থেকে আমরা কি বুঝলাম, আমরা বুঝলাম, যে যতই লাফালাফি করুন না কেন পরিসংখ্যান কিন্তু সবসময় তার সাথে থাকবে না। নিদিষ্ট বেক্তি বা কোন দেশের দ্বারা সবদিক দিয়ে বেস্ট হওয়াটা একেবারেই অসম্ভব ব্যপার। যেখানে উন্নত বিশ্ব অনেক এগিয়ে যাচ্ছে সেখানে আমরা এখনো ৩জি আর গড়ে ১.০ এমবিপিএসের লাইন ব্যবহার করছি। তবে আমরা এখন আশাবাদী হতে চাই কারন আমাদের নেট স্পীডও এখন আর আগের মতো কচ্ছপ গতির নেই। আশাকরি খুব তারাতারি আমাদের দেশে ৪জি সেবা চালু হবে এবং ইতিমধ্যে সেটি নিয়ে কাজও শুরু হয়েছে।

 পোষ্টটি পূর্বে প্রকাশিত হয়েছে এখানে। সময় পেলে ঘুরে আসতে পারেন আমাদের বিজ্ঞান প্রযুক্তি ব্লগ থেকে। 

সূত্রঃ ফর্বস্‌

একটি উত্তর ত্যাগ