এনড্রয়েড এর বিস্তারিত কিছু তথ্য ।

0
446

আসসালামু আলাইকুম ।কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালো। আপনারা তো জানেন যে আমি এন্ড্রয়েড নিয়ে বেশি টিউন করি।এখন-ও আমি একটি এন্ড্রয়েড নিয়ে টিউন করব।

এনড্রয়েড কি ?

এনড্রয়েড হলো লিনাক্স ভিত্তিক মোবাইল বা ট্যাবলেট পিসির জন্য অপারেটিং সিস্টেম । যা সি (কোর), সি++, ও জাভা(ইউআই) প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে তৈরী । আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহার করেন তাহলে আপনার অপারেটিং সিস্টেমের প্রয়োজন হবে যেমনঃ উইন্ডোজ ৭, উইন্ডোজ ৮, উইন্ডোজ ৯, লিনাক্স বা ম্যাক । এনড্রয়েড হল তেমন একটি অপারেটিং সিস্টেম যা মোবাইল ফোন বা ট্যাবলেটের জন্য ব্যবহার হয় । তাছাড়া রয়েছে আরও কিছু মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম যেমনঃ জাভা, এপলের iOS, নকিয়ার Symbian, রিম এর ব্ল্যাকবেরি OS, মাইক্রোসফটের Windows Phone ইত্যাদি। তবে বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল এনড্রয়েড ।

এনড্রয়েড এর ইতিহাস

২০০৩ সালের অক্টোবরে ক্যালিফোর্নিয়ার পালো আল্টোয় এনড্রয়েড ইনকর্পোরেট প্রতিষ্ঠা হয়েছিল । এটির প্রধান প্রতিষ্ঠাতা এন্ডি রুবিন এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতা ডেন্জারের,তাছাড়া রিচ মাইনার যিনি ওয়াইল্ডফায়ার কমউনিকেশনস এ নিয়োজিত ছিলেন, ইনকর্পোরেটেডের সহ প্রতিষ্ঠাতা, নিক সিয়ারস তিনি টি-মোবাইলের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ক্রিস হোয়াইট তিনি ওয়েবটিভি’র ডিজাইন এবং ইন্টারফেস প্রধান ছিলেন ।যেহেতু তারা এক এক জন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে নিয়োজিত ছিলেন তাই এনড্রয়েড প্রতিষ্ঠানটি তার কার্যক্রম চালাত অনেকটা লুকিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে এটা বলা হত যে তারা শুধু মোবাইলের একটি সফটওয়্যারের কাজ করছে । ২০০৫ সালের আগষ্ট মাসে গুগল এনড্রয়েড কিনে নেয় ।

এনড্রয়েড কেন জনপ্রিয় ?

এনড্রয়েড অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেম গুলোকে পিছনে ফেলে দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে ও পরিচিত হচ্ছে । আর এর প্রধান কারণ হল এনড্রয়েডের রয়েছে ব্যবহার বান্ধব ইন্টারফেস অর্থাৎ আপনি যদি একটি জাভা আপস তৈরী করেন তাহলে যা ডিভাইসের জন্য তৈরী করা হয়েছে তার মধ্যেই সাপোর্ট করে তথা আপনি যদি Nokia C3-00 একটি জাভা এপ্লিকেশন তৈরী করেন তাহলে তা Nokia 5130 এর মধ্যে ভালবাবে সাপোর্ট করবে না যদিও করে তবে আপস এর সাইজ গুলো ঠিক থাকবে না । দেখা যাবে ডানের টা বামে আর বামের টা ডানে এসে পরেছে অথবা একটি না একটি সমস্যা হবেই । আর আপনি যদি এনড্রয়েড আপস বানান তাহলে সকল ডিভাইসে সাপোর্ট করবে । তাছাড়া এটি লাইসেন্স ফ্রী মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম যে কারণে দিন দিন লিনাক্স ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়ে চলছে, সে কারণেই আমরা অনেকেই এনড্রয়েডের প্রতি আকর্ষিত হচ্ছি ।

এনড্রয়েড ফোন কোনটি ?

মোবাইল ফোন বা ট্যাবলেট প্রস্তুতকারক যেসকল কোম্পানি তাদের মোবাইল বা ট্যাবলেট ডিভাইসে এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে সেটিই হল এনড্রয়েড মোবাইল বা ট্যাবলেট, বর্তমানে অনেক মোবাইল ও ট্যাবলেট প্রস্তুতকারক কোম্পানী এনড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে তাদের মধ্যে Samsung, Symphony, Micromax Acer, Alcatel, Dell, Gigabyte, HTC, Huawei, LG, Motorola, Nexus, T-Mobile, Toshiba, Vodaphone, ZTE ছাড়াও আমাদের দেশের WALTON কোম্পানী ও আরও অনেকে এই জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহার করে ।

এছাড়া ও…

এনড্রয়েড (ইংরেজি: Android) হল মোবাইলের জন্য কিছু সফটওয়্যারের সম্মিলন যেটাতে অপারেটিং সিস্টেম, মিডলওয়্যার এবং এপ্লিকেশনগুলো থাকে[২][১১]। গুগল ইনকর্পোরেটের প্রাথমিক ডেভেলপারদের (এনড্রয়েড ইনকর্পোরেট) কিনে নেয় ২০০৫ সালে।[১২] এনড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম লিনাক্স কারনেলের উপর ভিত্তি করে তৈরী করা হয়েছে। গুগল এবং অন্যান্য মুক্ত হ্যান্ডসেট এল্যায়েন্সের সদস্যরা এন্ড্রয়েডের উন্নয়ন এবং বাজারে উন্মুক্ত করা নিয়ন্ত্রন করে[১৩][১৪]। এনড্রয়েড ওপেন সোর্স প্রজেক্ট’টি (এওএসপি) এন্ড্রয়েডের রক্ষনাবেক্ষন এবং ভবিষ্য উন্নয়নের কাজ করে থাকে[১৫] । এনড্রয়েড হল বিশ্বের শীর্ষ বিক্রিত স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেম[১৬][১৭]।

এন্ড্রয়েডের অনেক উন্নয়নকারী আছে যারা এর জন্য বিভিন্ন এপ্লিকশন তৈরী করে থাকে এতে করে এই অপারেটিং সিস্টেমের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন প্রায় ২০০,০০০ সংখ্যক এপ্লিকশনের উপরে বাজারে এন্ড্রয়েডের এপ্লিকেশন রয়েছে[১৮][১৯]। এনড্রয়েড মার্কেট একটি এপ্লিকশন বাজার যেটা গুগল চালায়, যদিও এপ্লিকেশনগুলো বাইরের কোন থার্ড পার্টি সাইট থেকে ডাউনলোড করা যায়। উন্নয়নকারীরা প্রাথমিকভাবে জাভা প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে লিখে থাকে, যেটা গুগল জাভা লাইব্রেরি দ্বারা নিয়ন্ত্রন করা হয়[২০]।

ওপেন হ্যান্ডসেট এল্যায়েন্সের শুরু সাথে সাথে এন্ড্রয়েডের বিতরন উন্মুক্ত করা হয় ৫ই নভেম্বর ২০০৭ সালে যেখানে ৮০টি হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার এবং টেলিকম কোম্পানী ছিল। তাদের সকলের উদ্দেশ্য ছিল মুক্ত আদর্শ মোবাইল প্লাটফর্ম তৈরী করা[২১][২২]। গুগল এন্ড্রয়েডের বেশিরভাগ কোড ছাড়ে এপ্যাচি এবং মুক্ত উৎসের লাইসেন্সের আওতায়[২৩]।

এন্ড্রয়েডের সফটওয়্যারটি জাভা এপ্লিকেশনের সমন্বয়ে গঠিত যা জাভার উপর ভিত্তি করে তৈরী করা, এটি ডেলভিক ভার্চুয়াল মেশিনে (জেআইটি কম্পাইলেশন ব্যবহার করে) জাভা কোর লাইব্রেরীতে চলে। লাইব্রেরীটি প্রোগ্রামিং ভাষা সি’তে লিখা যাতে আছে সারফেস ম্যানেজার, ওপেন কোর[২৪] মিডিয়া ফ্রেমওর্য়াক, এসকিউলিট রিলেশনাল ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, ওপেনজিএল ইএস ২.০ ৩য় মাত্রার গ্রাফিক্স এপিআই, ওয়েবকিট লেআউট ইন্জিন, এসজিএল গ্রাফিক্স ইন্জিন, এসএসএল এবং বাইওনিক লিবক। এনড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমটি (যাতে লিনাক্স কারনেলও আছে) প্রায় ১২ মিলিয়ন কোডিং লাইনের সমন্বয়ে তৈরী যাতে আছে প্রায় ৩ মিলিয়ন এক্সএমএল লাইন, প্রায় ২.৮ মিলিয়ন সি (প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ) লাইন, ২.১ মিলিয়ন জাভা লাইন, ১.৭৫ মিলিয়ন সি++ (প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ) লাইন[২৫]।

একই সাথে Techolopo.com এ প্রকাশীত

একটি উত্তর ত্যাগ